• Home
  • »
  • News
  • »
  • sports
  • »
  • FOOTBALL PEERLESS FOOTBALLER PLAYS CALCUTTA FOOTBALL LEAGUE MATCH EVEN AFTER DEMISE OF HIS FATHER DMG

Akash Mukherjee| Calcutta Football League: সকালে বাবার মৃত্যু, মাথা ফেটে ঝরল রক্ত! দলকে জিতিয়েই শ্মশানে গেলেন আকাশ

মাথা ফেটে আটটি সেলাই পড়ে আকাশের৷ Photo-Facebook

খেলায় টালিগঞ্জ অগ্রগামীকে ৬-০ গোলে হারায় পিয়ারলেস৷ কিন্তু খেলার ফলকে ছাপিয়ে যায় আকাশের দায়বদ্ধতা (Akash Mukherjee| Calcutta Football League)৷

  • Share this:

    #কলকাতা: মাত্র কয়েক মাস আগেকার ঘটনা৷ গত বছরের শেষ দিকে ঐতিহাসিক টেস্ট সিরিজ জিতে ফিরেছিল বিরাট কোহলির ভারত৷ সিরিজ চলার মাঝপথেই বাবার মৃত্যু সংবাদ পেয়েছিলেন মহম্মদ সিরাজ৷ কিন্তু তার পরেও দেশে ফেরেননি তিনি৷ দলকে সিরিজ জিতিয়ে দেশে ফিরে সোজা কবরস্থানে ছুটেছিলেন বাবাকে শ্রদ্ধা জানাতে৷

    সোমবার দলের প্রতি দায়বদ্ধতার এমনই নজিরের সাক্ষী থাকল কলকাতা ময়দান৷ সৌজন্যে আকাশ মুখোপাধ্যায় নামে এক অখ্যাত ফুটবলার৷ বাবাকে হারানোর শোক বুকে চেপে বাইশ গজে বল হাতে আগুন ঝরিয়েছিলেন মহম্মদ সিরাজ৷ আর কলকাতা ফুটবল লিগে মাঠে নামার আগে বাবার মৃত্যুতেও পিছিয়ে আসেননি আকাশ৷ শুধু তাই নয়, খেলার মাঝে চোট পেয়ে মাথাও ফাটে আকাশের৷ আটটি সেলায় পড়ে মাথায়৷ তার পরেও মাঠে নামেন পিয়ারলেসের এই প্রতিশ্রুতিমান ফুটবলার৷ বাবাকে হারানো, মাথা ফাটার মানসিক ও শারীরিক যন্ত্রণা নিয়েই মাঠে ছিলেন আকাশ৷ দল জয় পাওয়ার পরই বাবাকে দাহ করতে শ্মশানে যান তিনি৷

    আরও পড়ুন: রোনাল্ডোকে হিসেব করে ব্যবহার করতে চান ম্যান ইউ কোচ

    খেলায় টালিগঞ্জ অগ্রগামীকে ৬-০ গোলে হারায় পিয়ারলেস৷ কিন্তু খেলার ফলকে ছাপিয়ে যায় আকাশের দায়বদ্ধতা৷ তার পর থেকেই কলকাতার ফুটবলপ্রেমীদের মধ্যে চর্চা পিয়ারলেসের এই বাঙালি ফুটবলারকে নিয়ে৷

    এ দিন কলকাতা ফুটবল লিগের ম্যাচে ইস্টবেঙ্গল মাঠে টালিগঞ্জ অগ্রগামীর মুখোমুখি হয় পিয়ারলেস৷ কিন্তু খেলা শুরুর অনেক আগে সকাল আটটা নাগাদ মৃত্যু হয় আকাশের বাবার৷ ফলে এমন নয় যে মাঠে এসে বাবার মৃত্যুসংবাদ পান আকাশ৷ তার পরেও অবশ্য সময় মতো ইস্টবেঙ্গল মাঠে পৌঁছে যান পিয়ারলেসের নির্ভরযোগ্য এই ফুটবলার৷

    বাবাকে হারানোর যন্ত্রণা বুকে চেপে একা কুম্ভ হয়ে দলের রক্ষণ সামলাতে থাকেন তিনি৷ খেলায় অবশ্য একতরফা দাপট ছিল পিয়ারলেসের৷ এক সময় ৬-০ গোলে এগিয়ে যায় তারা৷ তার পরই বিপক্ষ দলের ফুটবলারের সঙ্গে সংঘর্ষে মাথা ফাটে আকাশে৷ আটটি সেলাই পড়ে তাঁর মাথায়৷ তার পরেও মাঠে নামেন আকাশ৷ যদিও কোচ আর ঝুঁকি না নিয়ে তাঁকে তুলে নেন৷ আকাশ উঠে যাওয়ার পরই দু'টি গোল শোধ করে টালিগঞ্জ৷ মাঠ থেকে সোজা শ্মশানে যান আকাশ৷

    আকাশের এই দায়বদ্ধতায় মুগ্ধ কলকাতার ফুটবল প্রেমীরা৷ অনেকেই বলেছেন খেলার প্রতি ভালবাসা আর দলের প্রতি দায়বদ্ধতা, দৃঢ় মনোভাব এবং সাহসের আর এক নাম আকাশ৷ দলের প্রতি ছেলের এই দায়বদ্ধতা এবং কলকাতা ফুটবল প্রেমীদের মনে আকাশের জায়গা করে নেওয়ার এই খবরে হয়তো সবথেকে বেশি খুশি হতেন তাঁর বাবা-ই৷ এ দিনের ম্যাচের প্রতিশ্রুতিমান খেলোয়াড়ের পুরস্কারও জিতে নেন আকাশ মুখোপাধ্যায়৷ আজকের দিনে তাঁকে ছাড়া এই পুরস্কার যে আর কারও হাতে মানায় না!

    Published by:Debamoy Ghosh
    First published: