রিয়াল কাশ্মীরের বিরুদ্ধে খেলার আগে চাঙ্গা মোহনবাগান, নয়া বিদেশিতে খুশির হাওয়া সবুজমেরুন শিবিরে

রিয়াল কাশ্মীরের বিরুদ্ধে খেলার আগে চাঙ্গা মোহনবাগান, নয়া বিদেশিতে খুশির হাওয়া সবুজমেরুন শিবিরে
Photo- Facebook

পাপা বাগানে কেমন খেললেন? বাগানের বাবা কেমন খেলুড়ে? জেনে নিন বিস্তারিত

  • Share this:

Paradip Ghosh

#শ্রীনগর: প্রিমিয়ার শো দেখে উচ্ছ্বসিত ফুটবল মহল৷ তবে ময়দানের বক্স অফিসে কতটা সফল হবেন, সেটার পরীক্ষা শুরু নতুন বছরে বরফ ঢাকা ভূস্বর্গে৷ রিয়েল কাশ্মীরের বিরুদ্ধে অ্যাওয়ে ম্যাচে খেলতে দলের সঙ্গে কাশ্মীর নিয়ে যাওয়া হচ্ছে বাগানের নতুন বিদেশি পাপা বাবাকর দিওয়ারাকে৷ সোমবার দলের সঙ্গে অনুশীলন করলেন সেনেগালের স্ট্রাইকার৷ উচ্চতা ছয় ফিট৷ ছিপছিপে চেহারা৷ বডি ফেইন্ট মারাত্মক৷ অসাধারণ টাচ ফুটবলে অনুশীলনে বার-বার নিজের প্রতিভা চেনালেন৷

দুরন্ত ভলিতে বল জড়ালেন জালে৷ চোট না থাকলে বাগানের স্ট্রাইকার সমস্যা একাই মিটিয়ে দিতে পারেন গেটাফে, লেভান্তে, সেভিয়ার মতো লা-লিগার ক্লাবে ঘুরে আসা পাপা৷ মাঠ ছোট করে অনুশীলন করাচ্ছিলেন বাগান কোচ৷ ঝলসে উঠলেন পাপা৷ গোল লক্ষ্য করে নেওয়া শট গুলোতেও বিদ্যুতের ঝলক৷ বড় আসরে খেলে আসা পাপার ভারতীয় ফুটবলের সাফল্য পাওয়া কঠিন নয়৷ সেনেগালের স্ট্রাইকার-কে মাঠে দেখে চোখে মুখে খুশির ঝিলিক বাগান ম্যানেজমেন্টের৷ কোচ কিবু ভিকুনা তো বলেই দিলেন, "বাবা কেমন ফুটবলার, সে তো চোখের সামনেই দেখলেন৷ আমার আর কি বলার থাকতে পারে৷"

আরও পড়ুন - পিরিয়ড চলছে, জানেন কি মহিলারা তখন ঠিক কী করেন আর কী মোটেই করতে চান না!

হাজার ওয়াটের হাসি ফিরেছে বাগান কর্তাদের মুখে৷ নিন্দুকদের মতে, বাইশে ডিসেম্বর ডার্বি পিছনোর নেপথ্যে ছিল কলিনাসের চোট৷ গোল-কানা চামোরোর ওপর তো আগেই ভরসা উঠেছিল সৃঞ্জয়-দেবাশিসদের৷ পাপার প্রিমিয়ার শো হাসি ফিরিয়েছে দুই বাগান কর্তার মুখে ৷ যদিও অন্দরের খবর, বাগানের পাপা কানেকশনে না কি যোগসুত্র সেই টুটু বোস ঘনিষ্ঠ দুবাই নিবাসী কর্তা৷ ক্লাবের স্পনসর অন্বেষণ পর্ব থেকে সেনেগালের স্ট্রাইকার এনে ক্লাবকে ভরসা দেওয়া৷ বাগানের অধুনা সব কান্ডেই তো দুবাই নিবাসী কর্তার সক্রিয় অংশগ্রহণ৷ তবে কি বাগানের আভ্যন্তরীণ রাজনীতিতে ক্ষমতার ভরকেন্দ্র বদলানোর ইঙ্গিত? সত্যজিৎ রায় বেঁচে থাকলে নির্ঘাত বলতেন, "কলকাতায় কর্তা কি কম পড়িয়াছে?" হেমন্ত মুখোপাধ্যায় সরণী তো দক্ষিণ কলকাতায় এখনও রমরমিয়ে বর্তমান৷

আরও দেখুন

First published: December 31, 2019, 9:25 AM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर