Euro 2020: গোল করেও দুর্ভাগ্য পিছু ছাড়ল না লেওয়ানডস্কির, নক-আউটে সুইডেন

বায়ার্ন মিউনিখের হয়ে তাঁর সাফল্য ঈর্ষণীয়। কিন্তু দেশের জার্সি গায়ে নামলেই তাঁকে বারবার ব্যর্থতা তাড়া করে বেড়ায়।

বায়ার্ন মিউনিখের হয়ে তাঁর সাফল্য ঈর্ষণীয়। কিন্তু দেশের জার্সি গায়ে নামলেই তাঁকে বারবার ব্যর্থতা তাড়া করে বেড়ায়।

  • Share this:

    #হেলসিনবর্গ: তাঁর জন্য নিশ্চয়ই ফুটবলপ্রেমীদের খারাপ লাগে। বায়ার্ন মিউনিখের হয়ে তাঁর সাফল্য ঈর্ষণীয়। কিন্তু দেশের জার্সি গায়ে নামলেই তাঁকে বারবার ব্যর্থতা তাড়া করে বেড়ায়। এটাই তাঁর ফুটবল কেরিয়ারে একমাত্র দুর্ভাগ্য। এদিনই সেই দুর্ভাগ্য তাঁকে তাড়া করল। পোল্যান্ডের হয়ে গোল করলেন রবার্ট লেওয়ানডস্কি। কিন্তু ৩-২ গোলে সুইডেনের কাছে হারল পোল্যান্ড। এমনিতেও পোল্যান্ডের নক-আউট পর্বে যাওয়ার আশা খুব একটা ছিল না। তবে সুইডেনের বিরুদ্ধে জিতলে বিশ্বফুটবলে প্রতিষ্ঠা পেতে পারত তারা। সেটাও হল না। ৬১ ও ৮৪ মিনিটে এদিন জোড়া গোল করলেন লেওয়ানডস্কি। কিন্তু পোল্য়ান্ড হেরে এবারের ইউরো থেকে বিদায় নিল।

    গ্রুপ-ই থেকে সুইডেন ৭ পয়েন্ট নিয়ে ও স্পেন ৫ পয়েন্ট নিয়ে নক-আউট পর্বে পৌঁছল। এদিন সুইডেনের বিরুদ্ধে ৮২ সেকেন্ডের মাথাতেই গোল হজম করে বসল পোলিশরা। আলেক্সান্ডার ইসাকের অ্যাসিস্ট থেকে এমিল ফরসবার্গ গোল করলেন। শুরুতেই চাপে পড়ে গেল পোল্যান্ড। এর পর অবশ্য সমতা ফেরানোর সুযোগ এসেছিল লেওয়ানডস্কির সামনে। কিন্তু সেখানেও দুর্ভাগ্য তাড়া করল তাঁকে। ১৭ মিনিটের মাথায় তাঁর হেড পোস্টে লাগে। ফিরতে বলে ফের হেড দেন লেওয়ানডস্কি। ফের বল লাগে ক্রসবারে। শেষ পর্যন্ত প্রথমার্ধে সুইডেন এগিয়ে থেকেই শেষ করে।

    ম্যাচের ৫৯ মিনিটে গোল করে ব্যবধান বাড়িয়ে দেন সেই এমিল ফরসবার্গ। দুই গোল পিছিয়ে থাকার পর অল আউট ঝাঁপায় পোল্যান্ড। আর তাতে লাভও হয়। ৬১ মিনিটের মাথায় গোল করে দলকে ফেরার রাস্তা দেখান লেওয়ানডস্কি। ৮৪ মিনিটে তিনি আরও একটি গোল করে সমতা ফেরান। কিন্তু ফের পোল্যান্ড ডিফেন্সের ছোট্ট একটা ভুলের ফায়দা তুলে নেয় সুইডেন। অতিরিক্ত সময়ে ভিক্টস ক্লাসেনের গোলে এগিয়ে যায় সুইডেন। ম্যাচের ফল হয় ৩-২। গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন হয়েই পরের রাউন্ডে গেল সুইডেন।

    Published by:Suman Majumder
    First published: