• Home
  • »
  • News
  • »
  • south-bengal
  • »
  • মহিলা পকেটমার! বাসের মধ্যেই হাতেনাতে ধরা পড়তেই মহা শোরগোল

মহিলা পকেটমার! বাসের মধ্যেই হাতেনাতে ধরা পড়তেই মহা শোরগোল

পূর্ব বর্ধমানের ভাতার বাজারে বাসের মধ্যে ধরা পড়ল মহিলা পকেটমারের। অভিযোগ, ওই মহিলা অন্য এক জনের ব্যাগ থেকে টাকার ব্যাগ হাপিস করে দিয়েছিলেন।

পূর্ব বর্ধমানের ভাতার বাজারে বাসের মধ্যে ধরা পড়ল মহিলা পকেটমারের। অভিযোগ, ওই মহিলা অন্য এক জনের ব্যাগ থেকে টাকার ব্যাগ হাপিস করে দিয়েছিলেন।

পূর্ব বর্ধমানের ভাতার বাজারে বাসের মধ্যে ধরা পড়ল মহিলা পকেটমারের। অভিযোগ, ওই মহিলা অন্য এক জনের ব্যাগ থেকে টাকার ব্যাগ হাপিস করে দিয়েছিলেন।

  • Share this:

#বর্ধমান: পকেটমারদের কীর্তিকলাপ মোটামুটি সকলেরই জানা। ভিড় বাসে ট্রেনে পকেট থেকে তারা নিপুণ হাতে যে কখন মানিব্যাগ বের করে নেয় তা টের পায় না অনেকেই। যখন বোঝা যায়, তখন সে নাগালের বাইরে। আগে অনেক বাসেই পকেটমার হইতে সাবধান লেখা বাঁধাধরা ছিল। এখনও পকেটমার রয়েছে। শুধু একটু সময়ের অপেক্ষা। তারই মাঝে দেখা মিলল মহিলা পকেটমারের। কোথায়?

পূর্ব বর্ধমানের ভাতার বাজারে বাসের মধ্যে ধরা পড়ল মহিলা পকেটমারের। অভিযোগ, ওই মহিলা অন্য এক জনের ব্যাগ থেকে টাকার ব্যাগ হাপিস করে দিয়েছিলেন। খোঁজাখুঁজি শুরু হতেই ওই মহিলার কাছ থেকে সেই ব্যাগ মেলে। বাস থেকে নামিয়ে গন ধোলাই শুরু হয়। খবর পেয়ে ভাতার থানার পুলিশ গিয়ে তাকে আটক করে থানায় নিয়ে যায়।

শুক্রবার ভাতার বাজারে বাসের মধ্যে করে এক মহিলা চিৎকার শুরু করে দেন। তিনি জানান, ব্যাংক থেকে টাকা তুলেছিলেন। সেই টাকার ব্যাগ চুরি হয়ে গিয়েছে। পাশে দাঁড়ানো দুই মহিলাকে সন্দেহ করেন তিনি। অন্যান্য মহিলা যাত্রীরা তল্লাশি শুরু করতেই এক জনের কাছ থেকে সেই টাকা উদ্ধার হয়। এরপর গনধোলাই দিয়ে তাকে পুলিশের হাতে তুলে দেওয়া হয়।

টাকা হারানো ওই মহিলার নাম নীলিমা মাঝি। তাঁর বাড়ি স্হানীয় ঊষাা গ্রামে।বলগোনা বাজার থেকে বাসে ওঠেন তিনি। বর্ধমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি থাকা এক আত্মীয়কে দেখতে যাচ্ছিলেন তিনি।সেই সময় তাঁর সঙ্গে বলগোনা বাস স্ট্যান্ড থেকে আরও দুই মহিলা উঠে।

এরপর বাসে চালকের সহকারী যখন ভাড়া চান তখন ওই মহিলা খেয়াল করেন ব্যাগে রাখা টাকা নেই। টাকার ব্যাগ চুরি হয়ে গিয়েছে। তখনই তিনি হইচই শুরু করেন। জানান,অপর যে দুই মহিলা বলগোনা থেকে উঠেছিলেন তারাই টাকা চুরি করেছে। সার্চ করতেই তাদের কাছ থেকে টাকা বের হয়ে যায়। এরপর শুরু হয় গণধোলাই। তারপর ভাতার থানার পুলিশের হাতে তুলে দেওয়া হয় ।

Published by:Dolon Chattopadhyay
First published: