দেবশ্রী রায়কে আর টিকিট দিচ্ছে না তৃণমূল, দাবি রাজ্যের মন্ত্রীর

দেবশ্রী রায়কে আর টিকিট দিচ্ছে না তৃণমূল, দাবি রাজ্যের মন্ত্রীর
দেবশ্রী রায়৷

  • Share this:

#কুলপি: বিধানসভা নির্বাচনে দেবশ্রী রায়কে টিকিট দিচ্ছে না তৃণমূল কংগ্রেস৷ এমনই দাবি করলেন রাজ্যের মন্ত্রী এবং মগরাহাট পশ্চিম কেন্দ্রের তৃণমূল বিধায়ক গিয়াসুদ্দিন মোল্লা৷ এ দিন কুলপিতে অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের জনসভায় গরহাজির ছিলেন রায়দিঘির বিধায়ক দেবশ্রী৷ সভা শেষে এ নিয়ে প্রশ্ন করা হলে রাখঢাক না করেই গিয়াসুদ্দিন বলে দেন, দেবশ্রী রায়কে এবার প্রার্থী করছে না দল৷ এ বিষয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নিয়ে ফেলেছে দল৷

এমনিতে এ দিন কুলপিতে অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের জনসভায় জেলার অনেক বিধায়কই এসেছিলেন৷ আবার বেশ কয়েকজন ছিলেন না৷ অসুস্থতার জন্য থাকতে পারেননি জেলার বিধায়ক এবং মন্ত্রী মন্টুরাম পাখিরাও৷ আবারও সাগর, মন্দিরবাজারের মতো বিধানসভার বিধায়করাও অভিষেকের সভায় এসেছিলেন৷ অভিষেক নিজেই বলেন, এ দিনের সভায কুলপি, মন্দিরবাজার এবং রাযদিঘি থেকে মানুষ এসেছেন৷ অথচ, সেই সভাতেই গরহাজির ছিলেন রায়দিঘির দু' বারের বিধায়ক দেবশ্রীকে৷

এ বিষয়ে প্রশ্ন করা হলে সংখ্যালঘু উন্নয়ন দফতরের মন্ত্রী গিয়াসুদ্দিন মোল্লা বলেন, 'উনি কেন আসেননি বলতে পারব না৷ যাঁরা মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে ভালবাসেন তাঁরা এমনিই আসবেন৷ আর দেবশ্রী রায়কে তো দল এবার আর প্রার্থী করছে না৷ ফলে উনি এলেন কি না এলেন কিছু আসে যায় না৷'


২০১১ সালে রায়দিঘি কেন্দ্র থেেক তৎকালীন মন্ত্রী কান্তি গঙ্গোপাধ্যায়কে হারিয়ে সাড়া ফেলে দেন দেবশ্রী৷ তৃণমূলের অন্দরের খবর, দেবশ্রীর ভূমিকায় তাঁর বিধানসভা এলাকাতেই দলীয় নেতৃত্বেকর অন্দরে ক্ষোভ তৈরি হয়৷ ফলে ২০১৬ সালে তাঁকে টিকিট না দেওয়ার সিদ্ধান্ত একরকম চূড়ান্তই হয়ে গিয়েছিল৷ কিন্তু সেই সময় তৃণমূলের জেলা সভাপতি এবং দলের অন্যতম শীর্ষ নেতা শোভন চট্টোপাধ্যায়ই দায়িত্ব নিয়ে দ্বিতীয়বার দেবশ্রীকে রায়দিঘি থেকে প্রার্থী করার জন্য তদ্বির করেন৷ জিতেও যান দেবশ্রী৷ কিন্তু শোভন দল ছাড়তেই দেবশ্রীকে নিয়েও তৈরি হয় ধোঁয়াশা৷ কারণ ২০১৯ সালে যেদিন শোভন চট্টোপাধ্যায় ও বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায় বিজেপি-তে যোগ দেন, সেদিনই দিল্লির সদর দফতরে দেখা গিয়েছিল দেবশ্রীকে৷ শেষ পর্যন্ত অবশ্য বিজেপি-তে যোগ দেননি দেবশ্রী৷ এর পর থেকে সেভাবে রাজনৈতিক কর্মসূচিতে দেখা যায়নি রায়দিঘির বিধায়ককে৷

তবে কিছুদিন আগে হঠাৎই শোভন চট্টোপাধ্যায় এবং বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায়ের বিরুদ্ধে মানহানির মামলা দায়ের করেন দেবশ্রী৷ সূত্রের খবর, দেবশ্রীর এই পদক্ষেপে সায় ছিল শাসক দলেরও৷ কিন্তু এ দিন গিয়াসুদ্দিন মোল্লা যে দাবি করলেন, তাতে অভিনেত্রী বিধায়কের রাজনৈতিক ভবিষ্যৎ নিয়েই প্রশ্ন উঠে গেল৷

Avijit Chanda

Published by:Debamoy Ghosh
First published: