Subhra Pal| India book of Records| অবিশ্বাস্য প্রতিভা! ইন্ডিয়া বুকস অফ রেকর্ডসে প্রথম সোনারপুরের মেয়ে শুভ্রা!

সোনারপুরের শুভ্রা পালের জয়জয়কার দেশের চিত্রশিল্প মহলে।

Subhra Pal| India book of Records|ইন্ডিয়া বুক অব রেকর্ডসে নাম তুলে ফেললেন দক্ষিণ ২৪ পরগণা জেলা সোনারপুরের মালিরবাগান এলাকার বাসিন্দা শুভ্রা পাল।

  • Share this:

    #সোনারপুর: লেখার শেষ মানে ছোট্ট একটি ডট।  কিন্তু সেখান থেকেও যে' শুরু করা যায়, সেটা হয়তো অনেকেরই অজানা। আর  সেই অজানার খোঁজেই, বাংলার গণ্ডী পেরিয়ে গোটা দেশে তাঁর জয়জয়কার।  ইন্ডিয়া বুক অব রেকর্ডসে নাম তুলে ফেললেন দক্ষিণ ২৪ পরগণা জেলা সোনারপুরের  মালিরবাগান এলাকার বাসিন্দা শুভ্রা পাল। ডট জুড়ে জুড়েই অবিশ্বাস্য অবয়ব আঁকেন তিনি।

    সম্প্রতি শুভ্রা ০.১ মিলিমিটার অসংখ্য পেনের ডট দিয়ে মাত্র ১৫ দিনে একফুট বাই দেড় ফুটের একটি ছবি এঁকেছেন। এই ছবিই ইন্ডিয়া বুকস অফ রেকর্ডসে প্রথম পুরস্কার অর্জন করে নিয়েছে। তাঁর এই সাফল্যে স্বাভাবিক ভাবেই উচ্ছ্বসিত সোনারপুর-নিবাসী তাঁর পরিবার। আগামী দিনে ভারতের হয়ে সারা পৃথিবীর বুকে দেশের নাম উজ্জ্বল করাই  একমাত্র লক্ষ্য বলে জানান তিনি।

    শুভ্রার জন্ম সোনারপুরেই। ছোটবেলায় বাবা মায়ের হাত ধরে সোনারপুর খাসিয়ারা অতুল কৃষ্ণ রায় বিদ্যায়তন আঁকা শিখতে যেতেন। ছোটবেলা থেকেই তাঁর আঁকার প্রতি আলাদা ঝোঁক ছিল। তার মা ভারতী পাল, তিনিও আঁকায় দক্ষ ছিলেন। মার উৎসাহেই এতটা এগিয়ে যাওয়া। এরপর পেরিয়ে যায় অনেক গুলো বছর।

    এরপর ২০১৫ সালে শুভ্রর ভাবতে শুরু করেন, যেখানে ডট দিয়ে যে কোনও লেখা শেষ হচ্ছে, সেখানে দাঁড়িয়ে, যদি সেই শেষ থেকে শুরু করা যায়, তাহলে মানুষের কাছে একটা অন্য রকম উপহার তুলে দেওয়া যেতে পারে। আর এরপর থেকেই তার পথচলা শুরু যায়। শুভ্রা বহু ছবি এঁকেছেন ওই সহস্রবিন্দু বা ডট জুড়ে জুড়ে। বলা যায়, একটা নতুন ধারাই তৈরি করেছেন তিনি।  আর তাতেই এসেছে সাফল্য। বাড়িতে বাবা, মা, দাদা, ও বৌদি এরা সকলেই তাঁকে সবরকম ভাবে উৎসাহ জুগিয়েছেন এক নাগাড়ে।

    কলকাতার পার্কস্ট্রিট গভর্নমেন্ট আর্ট কলেজে  পড়াশুনো শুরু করেছেন তিনি।  ২০২১ সালে কলাভবন থেকে মাস্টার্সও করেছেন শুভ্রা।

    -Arpan Mandal

    Published by:Arka Deb
    First published: