বীরভূমে স্কুলের ক্রীড়া অনুষ্ঠানে মুকাভিনয়ে সমাজকে বার্তা পড়ুয়াদের 

বীরভূমে স্কুলের ক্রীড়া অনুষ্ঠানে মুকাভিনয়ে সমাজকে বার্তা পড়ুয়াদের 

কিছু না বলে স্রেফ অভিনয় করে সমাজকে বড়ো বার্তা দিল বীরভূমের দুবরাজপুরের হেতমপুরের হেতমপুর রাজ উচ্চ বিদ্যালয়ের ছাত্রছাত্রীরা।

  • Share this:

#বীরভূম: কিছু না বলে স্রেফ অভিনয় করে সমাজকে বড়ো বার্তা দিল বীরভূমের দুবরাজপুরের হেতমপুরের হেতমপুর রাজ উচ্চ বিদ্যালয়ের ছাত্রছাত্রীরা। 'ধর্ম নিয়ে ভেদাভেদ? , ধর্ম নিয়ে হানাহানি? , ধর্ম নিয়ে রাজনীতি? ' এই সব প্রশ্নকে সামনে রেখে চমকপ্রদ মূকাভিনয় ওই স্কুলের বার্ষিক ক্রীড়া প্রতিযোগিতায়। দেশের বর্তমান পরিস্থিতি পড়ুয়াদের কতটা বিপদের দিকে ঠেলে দিচ্ছে সে কথা মাথায় রেখেই স্কুলের শিক্ষক শিক্ষিকারা এমন মূকাভিনয়ের আয়োজন করে। স্কুলের শিক্ষক থেকে শিক্ষিকারা সকলেই জানান, "আমাদের ভারতবর্ষ হচ্ছে এমন এক দেশ যেখানে জাতি ধর্ম বর্ণ নির্বিশেষে সকলেই বাস করেন। এই দেশ হল 'বিবিধের মাঝে মিলন মহান'।

কিন্তু বর্তমানে বেশ কিছু রাজনৈতিক দল, রাজনৈতিক নেতারা ধর্মের সুড়সুড়ি দিয়ে মানুষের মধ্যে হানাহানি সৃষ্টি করছেন। আর আমাদের স্কুলে সমস্ত ধর্মের ছেলেমেয়েরা একসাথে পড়াশোনা করেন। তাহলে দেশের বর্তমান পরিস্থিতি দেখে তাদের মধ্যে কি বার্তা পৌঁছাবে? সেই বিষয়টিকেই পরিস্ফুটিত করতে, ভারতের আসল মর্যাদাকে পরিস্ফুটিত করতে একটা বড় প্ল্যাটফর্ম বার্ষিক ক্রীড়া প্রতিযোগিতাকে বেছে নেওয়া হয়েছে এই মূকাভিনয় পরিবেশনের জন্য। যাতে করে স্কুলের বর্তমান পড়ুয়ারা থেকে প্রাক্তন পড়ুয়াদের, অভিভাবকদের মধ্যেও এই ভারত ভাব অর্থাৎ সবাই একসাথে থাকার বার্তা আমরা পৌঁছে দিতে পারি।" আজ বীরভূমের হেতমপুরের গড়ের মাঠে অনুষ্ঠিত মূকাভিনয়ে দেখা যায়, স্কুলের পড়ুয়ারা কেউ মৌলবি, কেউ পুরোহিত, আবার খ্রিস্টান রূপে ময়দানে। আর তারা যখন ধর্মের দোহায় দিয়ে নিজেদের মধ্যে লড়াইয়ে নেমে পড়ে তখন ছুটে আসেন ভারতমাতা।

ভারতমাতা তাদের বোঝান, 'তোরা সবাই আমার সন্তান, কেউ আলাদা নয়। সবাই একসাথে থাক। এটাই আমাদের ভারতবর্ষ। এই ক্রীড়া প্রতিযোগিতায় ২৬ টি ইভেন্টের আয়োজন করা হয়েছিল। যেখানে ২৭৫ পড়ুয়াদের অংশগ্রহণ লক্ষ্য করা যায়। দিনভর চলে এই ক্রীড়া প্রতিযোগিতা।

First published: February 8, 2020, 9:06 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर