• Home
  • »
  • News
  • »
  • south-bengal
  • »
  • তৃণমূল নেতাদের ধার রাখতে চান না শীলভদ্র, ফেরাতে শুরু করলেন টাকা

তৃণমূল নেতাদের ধার রাখতে চান না শীলভদ্র, ফেরাতে শুরু করলেন টাকা

ব্যারাকপুরের তৃণমূল বিধায়ক শীলভদ্র দত্ত৷ Photo-Facebook

ব্যারাকপুরের তৃণমূল বিধায়ক শীলভদ্র দত্ত৷ Photo-Facebook

  • Share this:

#ব্য়ারাকপুর: দলের সঙ্গে দুরত্ব তৈরি হয়েছে৷ আর নির্বাচনে তৃণমূলের টিকিটে দাঁড়াবেন না বলে জানিয়েও দিয়েছেন৷ এবার দলীয় সতীর্থদের আর্থিক ঋণ শোধ করতে শুরু করলেন ব্যারাকপুরের বিধায়ক শীলভদ্র দত্ত৷

২০১৯ সালে শীলভদ্র দত্তের লিভার প্রতিস্থাপন হয়৷ সেই সময় বিপুল অর্থের প্রয়োজন ছিল৷ অর্থের সংস্থান করতে সেই সময় ব্যারাকপুরের বিধায়কের পাশে দাঁড়িয়েছিলেন বেশ কিছু তৃণমূল নেতা৷ অনেকেই আর্থিক সাহায্য করেছিলেন তাঁকে৷ সবমিলিয়ে যার পরিমাণ কমবেশি ১২ লক্ষ৷ সেই টাকাই এবার ফেরাতে শুরু করলেন শীলভদ্র৷

সূত্রের খবর, ব্যারাকপুর পুরসভার চেয়ারম্যান উত্তম দাস শীলভদ্র দত্তকে ২ লক্ষ টাকা ধার দিয়েছিলেন৷ এ দিনই সেই টাকা চেক মারফত ফেরত পাঠান শীলভদ্র বাবু৷ কিন্তু উত্তমবাবু জানান তিনি ওই অর্থ তিনি নগদ দিয়েছিলেন শীলভদ্র দত্তকে৷ ফলে তা নগদেই ফেরত চান৷ এর পর ব্যাঙ্ক থেকে টাকা তুলে উত্তমবাবুকে নগদে সেই টাকা ফেরত পাঠান শীলভদ্র৷

জানা গিয়েছে, যে কয়েকজন তৃণমূল নেতার থেকে টাকা নিয়েছিলেন, তাঁদের প্রত্যেকের টাকাই আগামী কয়েকদিনে তিনি ফিরিয়ে দেবেন জানিয়েছেন শীলভদ্র দত্ত৷ তিনি বলেন, 'যাঁদের থেকে চিকিৎসার টাকা নিয়েছি, তাঁদের প্রত্যেকের টাকাই আমি ফেরত দিয়ে দিতে চাই৷ কারও দেনা রাখতে চাই না৷' সেই তালিকায় রয়েছেন নৈহাটির বিধায়ক পার্থ ভৌমিক, খাদ্যমন্ত্রী ও জেলা সভাপতি জ্যোতিপ্রিয় মল্লিক, উত্তর চব্বিশ পরগণা জেলা পরিষদের সদস্য নারায়ণ গোস্বামীর মতো নেতারা৷

তৃণমূলের যে নেতারা প্রকাশ্য দলের বিরোধিতা করছেন, তাঁদের অনেকেরই বিজেপি যোগের কথা শোনা যাচ্ছে৷ যদিও শীলভদ্র দত্তের ক্ষেত্রে এখনও ধোঁয়াশা রয়েছে৷ তবে বিজেপি নেতা মুকুল রায় কয়েকদিন আগেও জানিয়েছেন, শীলভদ্র দত্তের সঙ্গে তাঁর নিয়মিত যোগাযোগ রয়েছে৷

প্রশান্ত কিশোর এবং তাঁর দলের কাজকর্ম নিয়ে অক্টোবর মাসেই প্রকাশ্যে ক্ষোভপ্রকাশ করেন ব্যারাকপুরের বিধায়ক৷ মুকুল রায় দল ছাড়ার পর থেকেই তিনি কোণঠাসা ছিলেন৷ শীলভদ্রের মান ভাঙাতে দিন কয়েক আগে থেকে সচেষ্ট হয় তৃণমূল নেতৃত্ব৷ প্রথমে পিকে-র দলের দুই প্রতিনিধি, পরে খাদ্যমন্ত্রী জ্যোতিপ্রিয় মল্লিক নিজে তাঁর বাড়িতে গিয়ে শীলভদ্র দত্তের সঙ্গে দেখা করার চেষ্টা করেন৷ কিন্তু কাজের কাজ হয়নি৷ শীলভদ্র নিজের অবস্থানে অনড় থেকেছেন৷ এবার দলীয় সতীর্থদের টাকা ফেরানোর উদ্যোগ নিয়ে নিজের অবস্থান আরও স্পষ্ট করে দিলেন তিনি৷

Rajorshi Roy

Published by:Debamoy Ghosh
First published: