Home /News /south-bengal /
Purulia : কুকুরের কামড়ে ক্ষতবিক্ষত মুখ! মুমূর্ষু রোগীকে নতুন জীবন দিয়ে নজির এই জেলার হাসপাতালের

Purulia : কুকুরের কামড়ে ক্ষতবিক্ষত মুখ! মুমূর্ষু রোগীকে নতুন জীবন দিয়ে নজির এই জেলার হাসপাতালের

কুকুরের কামড়ে ক্ষতবিক্ষত মুখ! মুমূর্ষু রোগীকে নতুন জীবন দিয়ে নজির এই জেলার হাসপাতালের

কুকুরের কামড়ে ক্ষতবিক্ষত মুখ! মুমূর্ষু রোগীকে নতুন জীবন দিয়ে নজির এই জেলার হাসপাতালের

Purulia : মহাদেব বাবুর মুখ, ঠোঁট, গাল, নাক খুবলে নেয় কুকুরের দল। মহাদেবের ডানদিকের গাল ও নাকের মাংস ভয়ঙ্কর ভাবে ছিন্নভিন্ন হয়ে যায়।

  • Share this:

#পুরুলিয়া: পুরুলিয়ার নাদিয়ারার বাসিন্দা পঞ্চাশ বছর বয়সি মহাদেব গোপের বাড়ি। বুধবার দুপুরবেলা পুকুরে স্নান করতে যাওয়ার সময়ে তাঁকে কয়েকটি কুকুর তাড়া করে এবং তাঁর উপর ঝাঁপিয়ে পড়ে। মহাদেব বাবুর মুখ, ঠোঁট, গাল, নাক খুবলে নেয় কুকুরের দল। মহাদেবের ডানদিকের গাল ও নাকের মাংস ভয়ঙ্কর ভাবে ছিন্নভিন্ন হয়ে যায়।

আশপাশের কয়েকজন বাসিন্দা তাঁকে উদ্ধার করে দ্রুত পুরুলিয়া দেবেন মাহাতো মেডিকেল কলেজ এর সার্জারি বিভাগে ভর্তি করেন। সেখানে তাঁর মুখের অবস্থা দেখে শিউরে ওঠেন সকলে। অসম্ভব যন্ত্রণা ও প্রচুর রক্তক্ষরণের ফলে মহাদেব গোপ তখন মৃতপ্রায়।

রোগীর ক্ষতর ধরণ দেখে সার্জারি বিভাগ থেকে রোগীকে পাঠানো হয় নাক কান গলা বা ইএনটি বিভাগে। সেখানকার বিভাগীয় প্রধান অ্যাসোসিয়েট প্রফেসর ডক্টর অতীশ হালদার জরুরি ভিত্তিতে চিকিৎসক মনোজ খান এবং বুবাই মণ্ডলকে নিয়ে সার্জিকাল টিম তৈরি করেন। রোগীর অবস্থা ততক্ষণে এতই গুরুতর যে অজ্ঞান করা যাবে কি না সে বিষয়ে সন্দেহ ছিল। নিয়ম মাফিক রোগীকে জলাতঙ্কের ইনজেকশন ও ক্ষতস্থানে ইমিউনোগ্লোব্যুলিন দেওয়া হয়।

এরপর কাটা জায়গাগুলি ইনজেকশন দিয়ে অবশ করে রোগীর ক্ষতস্থান জোড়া লাগানোর কাজ শুরু হয়। যদিও সাধারণত কুকুরে কামড়ালে সেলাই করতে নেই, তবু মহাদেববাবু এত ভয়ংকরভাবে আহত ছিলেন এবং প্রচুর রক্তপাত হয়ে প্রাণহানির আশঙ্কা থাকায় অস্ত্রোপচার ও সেলাই করা হয় বলে জানান চিকিৎসক অতীশ হালদার। প্রত্যন্ত এলাকায় চিকিৎসকরা যে অস্ত্রোপচার করেছেন সেটা শুধু কঠিন নয়, অবিশ্বাস্য বলছেন বিশিষ্ট সার্জেনরা।

আরও পড়ুন- জিনিসপত্রের আগুন দাম! ডিম-মাছ অতীত, মিড-ডে মিলে পড়ুয়াদের পাতে শুধুই সবজি ভাত

পুরুলিয়ার দেবেন মাহাতো মেডিকেল কলেজের ইএনটি বিভাগের প্রধান চিকিৎসক অতীশ হালদার, চিকিৎসক মনোজ খান এবং চিকিৎসক বুবাই মণ্ডলের কর্মদক্ষতায় নতুন জীবন পেলেন মহাদেব গোপ। প্রত্যন্ত জেলার সরকারি হাসপাতালে জরুরি ভিত্তিতে এরকম কঠিন অপারেশন করে নজির সৃষ্টি করলো পুরুলিয়ার দেবেন মাহাতো মেডিক্যাল কলেজের ই এন টি বিভাগ।

রাজ্য স্বাস্থ্য দফতরের তরফ থেকে চিকিৎসকদেরকে কুর্নিশ জানানো হয়েছে। রাজ্যের স্বাস্থ্য অধিকর্তা অজয় চক্রবর্তী জানান,"পুরুলিয়ার প্রত্যন্ত অঞ্চলে উপযুক্ত পরিকাঠামো না থাকা সত্ত্বেও এই চিকিৎসকরা যে কাজ করেছেন তা সত্যিই অভাবনীয়। মুমূর্ষু রোগীকে সুস্থ করে তোলাই চিকিৎসকদের মূল লক্ষ্য। সাধারণ মানুষ যেন এই বিষয়টা বারবার করে মনে রাখে।"

Published by:Swaralipi Dasgupta
First published:

Tags: Purulia

পরবর্তী খবর