corona virus btn
corona virus btn
Loading

মুখ্যমন্ত্রীর নামে কুরুচিকর মন্তব্য, পাকড়াও করতে আসায় এসআইয়ের মাথা ফাটিয়ে দিল অভিযুক্তের বাবা

মুখ্যমন্ত্রীর নামে কুরুচিকর মন্তব্য, পাকড়াও করতে আসায় এসআইয়ের মাথা ফাটিয়ে দিল অভিযুক্তের বাবা
প্রতীকী ছবি

পুলিশ অভিযুক্তকে জিজ্ঞাসাবাসের পর আটক করতে গেলে পুলিশের সঙ্গে অশান্তি শুরু হয়। অভিযুক্ত অমিত রায় ও তার বাবা অমর রায় দু'জনে মিলে পুলিশের ওপর চড়াও হয় । পিছন থেকে লোহার রড এনে এসআইয়ের মাথায় আঘাত করেন অমিতের বাবা।

  • Share this:

#হাবরাঃ  রাজ্যে ফের আক্রান্ত পুলিশ । অভিযুক্তকে ধরতে গিয়ে মাথা ফাটল হাবরা থানার এসআইয়ের। হাতে চোট পেয়েছেন এক কনস্টেবল । ঘটনার সূত্রপাত সোশ্যাল মিডিয়ার একটি পোস্টকে কেন্দ্র করে । জানা গিয়েছে, স্যোশাল মিডিয়ায় মুখমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে নিয়ে কুরুচিকর মন্তব্য করেন হাবরার বাসিন্দা  অমিত রায়। তাঁর বিরুদ্ধে থানায় অভিযোগ দায়ের হয় । এরপর এদিন রাতে হাবরা থানার কৈ-পুকুর এলাকায় অমিত রায়ের বাড়িতে বাড়িতে হানা দেয় পুলিশ । সেখানেই অমিত এবং তাঁর বাবার বিরুদ্ধে থানার এসআইকে লোহার রড দিয়ে মেরে মাথা ফাটিয়ে দেওয়ার অভিযোগ ওঠে ।

পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, মুখ্যমন্ত্রীর নামে কুরুচিকর মন্তব্য করায় হাবরা কৈ-পুকুরের এক যুবকের বিরুদ্ধে লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন তৃণমূল কংগ্রেসের সভাপতি সিতাংশু দাস । তদন্তে নেমে পুলিশ অমিত রায়ের সন্ধান পায় । জানতে পারে অভিযুক্ত কৈ-পুকুর এলাকার বাসিন্দা । এরপর শুক্রবার রাতে হাবরা থানার এসআই রাখোহরি ঘোষ-সহ কয়েকজন কনস্টেবল তাঁর বাড়িয়ে হানা দেয় । সেইসময়ে বাড়িতেই ছিলেন অভিযুক্ত । অভিযোগ, পুলিশ বাড়িতে ঢুকতেই পরিবারের সদস্যরা চিৎকার চেঁচামেচি জুড়ে দেন। এরপর অমিতকে জিজ্ঞাসাবাসের পর আটক করতে গেলে অমিত ও তাঁর বাবা অমর রায় দু'জনে মিলে পুলিশের ওপর চড়াও হয় । পিছন থেকে লোহার রড এনে এসআই রাখোহরি ঘোষের মাথায় আঘাত করেন অমিতের বাবা । আর তাতেই মাথা ফেটে যায় তাঁর । এদিকে হাতে চোট পান কনস্টেবল অভিজিৎ ঘোষ । এরপর অভিযুক্ত দু’জনকে গ্রেফতার করা হয় । আহত দুই পুলিশকর্মীকে হাবরা হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য নিয়ে আসা হয় ।

এদিকে, রাতেই হাবরা থানার বিশাল পুলিশবাহিনী যায় অভিযুক্তের বাড়িতে । গ্রেফতার করে হয় অভিযুক্ত অমিত রায় ও অমর রায়কে । জেলার পুলিশ সপুার অভিজিৎ বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, "এ দিন দু'টি পৃথক মামলা দায়ের হয়েছে । পুলিশ বরাবর স্যোশ্যাল মিডিয়ার উপর নজরদারি চালাচ্ছে । অভিযোগ পাওয়ার পর ঘটনার সত্যতা যাচাই করে পুলিশ গিয়েছিল অভিযুক্তকে ধরতে । পুলিশকে আক্রমণ ও স্যোশাল মিডিয়াতে কুরুচিকর পোস্টের জন্য আইটি অ্যাক্ট-সহ একাধিক জামিন অযোগ্য ধারার মামলা রুজু হয়েছে । ধৃতদের শনিবার বারাসত আদালতে পাঠানো হয়েছে ।

RAJARSHI ROY

Published by: Shubhagata Dey
First published: May 16, 2020, 2:01 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर