মকরসংক্রান্তিতে বক্রেশ্বরের উষ্ণ প্রস্রবনে স্নানের হিড়িক পুণ্যার্থীদের

মকরসংক্রান্তিতে বক্রেশ্বরের উষ্ণ প্রস্রবনে স্নানের হিড়িক পুণ্যার্থীদের

এখানে শুধু বীরভূম নয়, বীরভূম লাগোয়া বর্ধমান মুর্শিদাবাদ এবং পার্শ্ববর্তী রাজ্য ঝাড়খন্ড থেকে প্রচুর পুণ্যার্থী আসেন এখানে। অনেক সাধুসন্তও আসেন।

  • Share this:

Supratim Das

#বক্রেশ্বর: বীরভূমের বক্রেশ্বর উষ্ণ প্রস্রবনে চলছে মকর সংক্রান্তির পুণ্যস্নান। তবে এখানে স্নানের মজা একটু আলাদা, তার কারণ এখানে পুণ্যার্থীরা স্নান করছেন গরম জলে। কেউ কেউ জল থেকে উঠতেই চাইছেন না,  ঘন্টার পর ঘন্টা জলে নেমে মকর সংক্রান্তির পূণ্যস্নানের মজা নিচ্ছেন তাঁরা।

বীরভূমের বক্রেশ্বর ৫১ পীঠের অন্যতম সতীপীঠ। তাই বক্রেশ্বরের স্নান করলে যে আলাদা পুণ্য অর্জন করা যায় তা নিয়ে কোনও সন্দেহ নেই ভক্তদের মনে ৷ আর সেই কারণেই ভোর থেকে পুণ্যার্থীদের লাইন পড়ে গিয়েছে স্নানের জন্য। স্নানের পর বক্রেশ্বর মন্দিরে পুজো দিচ্ছেন পুর্ন্যার্থীরা। বক্রেশ্বরে বেশ কয়েকটি উষ্ণ প্রস্রবণ রয়েছে ৷ যার সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ১০৪ ডিগ্রি। অন্যদিকে এখানে রয়েছে শীতলকুণ্ডও। বিভিন্ন কুন্ড থেকে গরমজল পাইপ লাইনের মাধ্যমে নিয়ে এসে স্নানের ঘাট তৈরি করা হয়েছে এখানে। পুরুষ এবং মহিলাদের জন্য আলাদা আলাদা স্নানের ঘাট রয়েছে।

3549_IMG-20200115-WA0075

এখানে শুধু বীরভূম নয়,   বীরভূম লাগোয়া বর্ধমান মুর্শিদাবাদ এবং পার্শ্ববর্তী রাজ্য ঝাড়খন্ড থেকে প্রচুর পুণ্যার্থী আসেন এখানে। অনেক সাধুসন্ত আসেন। মকরসংক্রান্তির দিনে ভিড় বেশি থাকলেও অন্যান্য দিনও কম ভিড় থাকেনা এখানে ৷ কারণ শীতকালে গরম জলে স্নান করার মজা ছাড়তে চান না পর্যটকরা।  বৈজ্ঞানিকদের মতে ভূপৃষ্ঠের প্লেট সরে থাকার কারণে এই এলাকা থেকে হিলিয়াম গ্যাস তৈরি হয়, ফলে ওই অঞ্চল দিয়ে গরম জল বের হয় ৷ তবে বৈজ্ঞানিক মত আর যাই হোক, শীতকালে গরম জলে নেমে স্নানের আনন্দই আলাদা জানিয়েছেন পর্যটকরা ৷

First published: January 15, 2020, 3:17 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर