হোম /খবর /মেদিনীপুর /
বিপাকে তৃণমূল প্রার্থী, মনোনয়ন বাতিলের দাবিতে আদালতে স্ত্রী

West Bengal Election 2021 : বিপাকে খেজুরির তৃণমূল প্রার্থী! মনোনয়ন বাতিলের দাবিতে আদালতে স্ত্রী

বিপাকে তৃণমূল প্রার্থী Photo-File Photo

বিপাকে তৃণমূল প্রার্থী Photo-File Photo

তৃণমূল প্রার্থীর মনোনয়ন খারিজ করার দাবি জানিয়ে আদালতের দ্বারস্থ হয়েছেন তাঁর স্ত্রী। তৃণমূল প্রার্থীর স্ত্রীর অভিযোগ হলফনামায় দ্বিতীয় বিয়ের তথ্য গোপন করেছেন ওনার স্বামী।

  • Last Updated :
  • Share this:

#মেদিনীপুর : কিছুদিন আগে নন্দীগ্রামের আসন থেকে তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের মনোনয়ন বাতিল করার দাবি জানিয়েছিলেন বিজেপি নেতা শুভেন্দু অধিকারী। পরে সেই অভিযোগ খারিজ হয়ে যায় আদালতে। কিন্তু এবার কোনও রাজনৈতিক প্রতিদ্বন্দ্বী নয়, মনোনয়ন বাতিলের দাবি তুললেন খোদ প্রার্থীর স্ত্রী।

তৃণমূল প্রার্থীর মনোনয়ন খারিজ করার দাবি জানিয়ে আদালতের দ্বারস্থ হয়েছেন তাঁর স্ত্রী। তৃণমূল প্রার্থীর স্ত্রীর অভিযোগ হলফনামায় দ্বিতীয় বিয়ের তথ্য গোপন করেছেন ওনার স্বামী। আর এই অভিযোগেই আদালতের দ্বারস্থ হয়েছেন পূর্ব মেদিনীপুরের খেজুরির তৃণমূল প্রার্থী পার্থপ্রতিম দাসের স্ত্রী।

পার্থপ্রতিমবাবুর স্ত্রী লিপিকা দাস অভিযোগ করে বলেছেন যে, ওনাদের দুজনের মধ্যে বিবাহ-বিচ্ছেদের মামলা চলছে। সেই মামলার এখনও নিষ্পত্তি হয়নি। আর মামলা নিষ্পত্তির আগেই ওনার স্বামী পার্থপ্রতিম দাস আরেকটি বিয়ে করেছেন যেটা আইনত দণ্ডনীয় অপরাধ। লিপিকাদেবী এও জানান যে, পার্থপ্রতিমবাবু ওনার দ্বিতীয় বিয়ের কথা হলফনামায় গোপন করেছেন। আর এই অভিযোগ নিয়েই এবার কলকাতা হাইকোর্টের দ্বারস্থ হয়েছেন লিপিকা দাস।

এছাড়াও লিপিকা দাস অভিযোগ করে বলেছেন যে, প্রার্থী পার্থপ্রতিম দাস নিজের সম্পত্তির পরিমাণ সঠিক জানান নি। এছাড়াও পার্থপ্রতিম দাসের উপর কে কে নির্ভরশীল সে কথাও হলফনামায় জানান নি তিনি। লিপিকাদেবী অভিযোগ করে বলেছেন, ওনার স্বামীর একটি বাইকও আছে, সেটাও তিনি নিজের হলফনামায় জানান নি। প্রসঙ্গত, একই অভিযোগ নিয়ে লিপিকাদেবী এর আগে কমিশনের দ্বারস্থ হয়েছিলেন, কিন্তু সেখানে তিনি সুবিচার না পাওয়ায় আদালতের দ্বারস্থ হয়েছেন।

প্রসঙ্গত, কিছুদিন আগেই তৃণমূল সুপ্রিম মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের বিরুদ্ধে ফৌজদারি মামলা গোপনের অভিযোগ তুলেছিলেন বিজেপি নেতা শুভেন্দু অধিকারী। একই অভিযোগে মমতার মনোনয়ন বাতিলের দাবি তুলেছিলেন তিনি। শুভেন্দুবাবু অভিযোগ করেছিলেন, তৃণমূল নেত্রী তাঁর বিরুদ্ধে চলা ফৌজদারি মামলার কথা হলফনামায় গোপন করেছেন। এমনকি ওনার বিরুদ্ধে সিবিআই-এর একটি মামলা চলছে বলেও জানিয়েছিলেন শুভেন্দুবাবু।

শুভেন্দু অধিকারীর দাবির পর রাজ্য রাজনীতিতে শোরগোল পড়ে যায়। এরপরই সিবিআই-এর তরফ থেকে জানানো হয় যে, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের আছে ঠিকই, কিন্তু অভিযুক্ত মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এবং তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় দুই পৃথক ব্যক্তি। অভিযুক্ত মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় একজন সরকারি কর্মীর স্ত্রী। এরপরই শুভেন্দু অধিকারীর দাবি খারিজ হয়ে যায়। তবে এবার ভোটের মুখে নতুন করে বেকায়দায় শাসক দল।

Published by:Sanjukta Sarkar
First published:

Tags: E-Nomination, Khejuri, Trinamul congress