Corona Second Wave: বাড়ছে আক্রান্তের সংখ্যা, কমতে পারে আরও লোকাল ট্রেন!

Corona Second Wave: বাড়ছে আক্রান্তের সংখ্যা, কমতে পারে আরও লোকাল ট্রেন!

করোনায় আক্রান্ত প্রায় ১৭০ জন রেলকর্মী। যার জেরে আজ শিয়ালদহ ডিভিশনে বাতিল থাকছে ১০৮ টি লোকাল ট্রেন।

করোনায় আক্রান্ত প্রায় ১৭০ জন রেলকর্মী। যার জেরে আজ শিয়ালদহ ডিভিশনে বাতিল থাকছে ১০৮ টি লোকাল ট্রেন।

  • Share this:

#কলকাতা:

ক্রমশ করোনায় আক্রান্ত ও মৃতের সংখ্যা বেড়ে যাওয়ায় কমতে চলেছে লোকাল ট্রেনের সংখ্যা। শিয়ালদহ ডিভিশনে গত ৩ দিনে মৃত্যু হয়েছে ৮ জনের। হাওড়া ডিভিশনেও বাড়ছে আক্রান্তের সংখ্যা। এই অবস্থায় কতদিন পূর্ণ মাত্রায় পরিষেবা দেওয়া সম্ভব হবে, তা নিয়ে সংশয় তৈরি হয়েছে রেলে। ইতিমধ্যেই শিয়ালদহ ডিভিশনে বাতিল লোকাল ট্রেনের সংখ্যা ১০৮ টি। পূর্ব রেল সূত্রে জানানো হচ্ছে, যাত্রীও ক্রমাগত কমছে। এই পরিস্থিতিতে ট্রেন চালানো কার্যত মুশকিল হয়ে পড়েছে। ২৯ এপ্রিল ভোট মিটলে কমতে পারে আরও বেশ কিছু ট্রেন।

করোনায় আক্রান্ত প্রায় ১৭০ জন রেলকর্মী। যার জেরে আজ শিয়ালদহ ডিভিশনে বাতিল থাকছে ১০৮ টি লোকাল ট্রেন। আক্রান্তের সংখ্যা যেভাবে বাড়ছে তাতে আগামী দিনে আরও বেশি সংখ্যক ট্রেন বাতিল হতে পারে। তবে যে সংখ্যক ট্রেন বাতিল হয়েছে তাতে যাত্রী পরিষেবায় কোনও প্রভাব পড়বে না বলে দাবি করছে পূর্ব রেল। আজ যে সংখ্যক ট্রেন বাতিল করা হল, তার কোনওটাই অবশ্য অফিস টাইমে নয়। পূর্ব রেল সূত্রে জানানো হয়েছে, নন পিক আওয়ারে বাতিল করা হয়েছে এই সব লোকাল ট্রেন। করোনা সংক্রমণের দ্বিতীয় ঢেউ আছড়ে পড়েছে রেল পরিষেবাতেও। গত বছর করোনা সংক্রমণের জেরে বাতিল ছিল দীর্ঘ দিন পরিষেবা। স্পেশাল ট্রেন পরিষেবা চালু করা হলেও দীর্ঘ দিন যাত্রীদের জন্যে বন্ধ ছিল রেল পরিষেবা। সেই পরিষেবা পুরোদমে চালু করা হলেও ফের ধাক্কা খেল পরিষেবায়।

শিয়ালদহ ডিভিশন সূত্রে খবর, ব্যারাকপুর লোকাল, নৈহাটি লোকাল, ডানকুনি লোকাল, গোবরডাঙা লোকাল, দত্তপুকুর লোকাল, সোনারপুর লোকাল সহ বিভিন্ন রুটে ট্রেন বাতিল করা হয়েছে। যদিও এই সব লোকাল অফিস টাইমে নয়। শিয়ালদহ ডিভিশনের একাধিক গার্ড, মোটরম্যান, সিগন্যাল-টেলিকমিউনিকেশন বিভাগের কর্মীরা আক্রান্ত হয়েছেন। তাই রেল পরিষেবা চালু রাখতে গিয়ে বেশ সমস্যায় পড়তে হচ্ছে শিয়ালদহ ডিভিশনকে। পূর্ব রেলের মুখ্য জনসংযোগ আধিকারিক একলব্য চক্রবর্তী  বলেছেন, ''আমরা নিরবিচ্ছিন্ন পরিষেবা দিতে প্রস্তুত। সেই পরিষেবা দেওয়ার কাজ আমরা করেও চলেছি। কিন্তু যে ভাবে কর্মীরা আক্রান্ত হতে শুরু করেছেন তাতে পরিষেবা দেওয়া মুশকিল হয়ে পড়েছে।'' ইতিমধ্যেই বিভিন্ন রেল স্টেশনে যাত্রীদের করোনা নিয়ে সচেতনতা বাড়াতে প্রচার শুরু করেছে রেল। রেল কর্মীদের জন্যেও গ্রহণ করা হয়েছে একাধিক ব্যবস্থা। তবে বহু ক্ষেত্রেই কাজের জন্যে কর্মীদের মধ্যে শারীরিক দূরত্ব বজায় রাখা সম্ভব হচ্ছে না। তাই বিপদ বাড়ছে রেল কর্মীদের মধ্যে। যার প্রভাব পড়ছে রেল পরিষেবায়।

Published by:Suman Majumder
First published:

লেটেস্ট খবর