• Home
  • »
  • News
  • »
  • south-bengal
  • »
  • একরোখা পাড়ার লোক,জোর করে আটকালেন রাস্তা, আইসোলেশনে থাকবে বাধ্য বিদেশ থেকে আসা বাসিন্দা!

একরোখা পাড়ার লোক,জোর করে আটকালেন রাস্তা, আইসোলেশনে থাকবে বাধ্য বিদেশ থেকে আসা বাসিন্দা!

এরপরেই এদিন স্থানীয় বাসিন্দারা ওই ব্যক্তির বাড়ির সামনের রাস্তা বাঁশ দিয়ে ঘিরে দিলেন। সেখানে পোস্টার লাগিয়ে লকডাউন লিখে দেওয়া হল।

এরপরেই এদিন স্থানীয় বাসিন্দারা ওই ব্যক্তির বাড়ির সামনের রাস্তা বাঁশ দিয়ে ঘিরে দিলেন। সেখানে পোস্টার লাগিয়ে লকডাউন লিখে দেওয়া হল।

এরপরেই এদিন স্থানীয় বাসিন্দারা ওই ব্যক্তির বাড়ির সামনের রাস্তা বাঁশ দিয়ে ঘিরে দিলেন। সেখানে পোস্টার লাগিয়ে লকডাউন লিখে দেওয়া হল।

  • Share this:

#শান্তিনিকেতন: কানাডায় থাকা এক ব্যক্তি দীর্ঘদিন ছিলেন কলকাতায় । সেখান থেকে বুধবার বীরভূমের শান্তিনিকেতনের অ্যান্ড্রুজ পল্লীর বাড়িতে ফিরেছেন তিনি। স্থানীয় বাসিন্দাদের দাবি, নিয়মমাফিক তিনি যেন ১৪ দিন হোম কোয়ারান্টিনে থাকেন। কিন্তু, অভিযোগ ওই ব্যক্তির বাড়িতে পরিচারিকা, রাজমিস্ত্রির কর্মীরা নিয়মিত যাতায়াত করছেন। পুলিশ প্রশাসনকে জানিয়েও কোনো ফল হয়নি। এরপরেই এদিন স্থানীয় বাসিন্দারা ওই ব্যক্তির বাড়ির সামনের রাস্তা বাঁশ দিয়ে ঘিরে দিলেন। সেখানে পোস্টার লাগিয়ে লকডাউন লিখে দেওয়া হল।

করোনা আতঙ্কে মানুষ অনেকটাই সচেতন হয়েছে তার প্রমাণ মিলল শান্তিনিকেতনে৷ কারণ বাইরে থেকে এলে কোন ব্যক্তিকে হোম কোয়ারান্টিনে থাকতে হবে এই দাবিতেই তা প্রমাণিত৷ এই ধরনের সচেতনতার ফলে জেলার বাইরে থেকে আসা অন্য কোন লোক লুকিয় পার পাচ্ছেন না৷ তাদেরকে হোম আইসোলেশনে থাকতেই হচ্ছে। আর এতে আখেড়ে লাভ হচ্ছে বীরভূম জেলা প্রশাসনের৷ কারণ পাড়ার বাসিন্দারা খবর পৌঁছে দিচ্ছে পুলিশের কাছে আর পুলিশের মারফত খবর পেয়ে জেলা স্বাস্থ্য দফতরের প্রতিনিধিরাও পৌঁছে যাচ্ছেন সেই সব এলাকাতে৷ যারা বাইরে থেকে এসে বীরভূমেরর কোন গ্রামে বা পাড়াতে থাকার চেষ্টা করছেন, তাদের একেবারে আলাদা থাকার ব্যবস্থা করে দেওয়া হচ্ছে।

Published by:Pooja Basu
First published: