• Home
  • »
  • News
  • »
  • south-bengal
  • »
  • পণ না দিতে পারায় গৃহবধূকে পুড়িয়ে খুন, আটক স্বামী

পণ না দিতে পারায় গৃহবধূকে পুড়িয়ে খুন, আটক স্বামী

প্রতীকী ছবি

প্রতীকী ছবি

পণ না দিতে পারায় গৃহবধূকে পুড়িয়ে খুনের অভিযোগ উঠল শ্বশুড়বাড়ির বিরুদ্ধে ৷ রবিবার গভীর রাতে শ্বশুরবাড়ি থেকে গৃহবধূর ঝুলন্ত মৃতদেহ উদ্ধারকে কেন্দ্র করে এলাকা জুড়ে চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে ৷

  • Share this:

    #সোনারপুর : পণ না দিতে পারায় গৃহবধূকে পুড়িয়ে খুনের অভিযোগ উঠল শ্বশুড়বাড়ির বিরুদ্ধে ৷ রবিবার গভীর রাতে শ্বশুরবাড়ি থেকে গৃহবধূর ঝুলন্ত মৃতদেহ উদ্ধারকে কেন্দ্র করে এলাকা জুড়ে চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে ৷ শ্বশুরবাড়ির বিরুদ্ধে সোনারপুর থানায় অভিযোগ দায়ের করে মৃতার পরিবার ৷ ঘটনার তদন্তে নেমে স্বামীকে আটক করেছে পুলিশ । যদিও বাকিরা এখনও অবধি পলাতক বলে পুলিশ সূত্রে খবর ৷

    আরও পড়ুন: চেয়েছিলেন কন্যাসন্তান ! রাগে-ক্ষোভে ১০ মাসের পুত্রসন্তানকে খুন করলেন মা

    ঘটনাটি ঘটেছে নরেন্দ্রপুরের কাদারহাটে। ৬ বছর আগে বিয়ে হয় কাদারহাটের বাসিন্দা গৌতম নস্করের সঙ্গে বিয়ে হয় শেফালি নস্করের । গৌতম পেশায় ব্যবসায়ী । তার মুদিখানার দোকান ছিল । বিয়ের পর থেকেই সুখের সংসার করছিলেন শেফালি ৷ কিন্তু কন্যাসন্তান হওয়ার পরই সুখের সংসারের ছন্দপতন ঘটে ৷

    মৃতের পরিবারের অভিযোগ, নানা অছিলায় বাপের বাড়ি থেকে টাকা আনার জন্য চাপ দিত শেফালির শ্বশুরবাড়ি ৷ পণের কারণে স্বামী ছাড়াও শ্বশুর চন্ডীচরন নস্কর ও শ্বাশুড়ি শোভা নস্কর অত্যাচার চালাত বলে অভিযোগ করে মৃতার বাবা ।

    শেফালির বাবা জানিয়েছেন, রবিবার রাতে সাড়ে আটটা নাগাদ ফোন করে গৌতম ৷ সে জানায়, শেফালি অসুস্থ । এরপরই শেফালির বাবা মেয়ের শ্বশুড়বাড়ি গিয়ে জানতে পারেন, মেয়ে গলায় ফাঁস লাগিয়ে আত্মহত্যা করেছে ৷ যদিও তাঁর দাবি, এটি আত্মহত্যা নয় ৷ তার মেয়েকে খুন করা হয়েছে বলে পুলিশের কাছে অভিযোগ দায়ের করেন শেফালির বাবা ৷

    First published: