• Home
  • »
  • News
  • »
  • south-bengal
  • »
  • বিরল প্রজাতির তক্ষক পাচারের অভিযোগে ধৃত এক মহিলা !

বিরল প্রজাতির তক্ষক পাচারের অভিযোগে ধৃত এক মহিলা !

Photo: News18 Bangla

Photo: News18 Bangla

দত্তাবাদ থেকে সোনালী তক্ষক-সহ এক মহিলাকে গ্রেফতার করল বিধাননগর দক্ষিণ থানার পুলিশ।

  • Share this:

    #কলকাতা: সল্টলেকের দত্তাবাদ থেকে সোনালী তক্ষক-সহ এক মহিলাকে গ্রেফতার করল বিধাননগর দক্ষিণ থানার পুলিশ। বেশ কিছুদিন ধরেই এলাকায় এক প্রাণীর বিকট শব্দ শুনতে পেত স্থানীয় বাসিন্দারা।

    গতকাল হঠাৎই দত্তাবাদ গুলের মাঠের বাসিন্দা কোমাল সিং-কে ঘরের বাইরে কিছু জিনিস খুঁজতে দেখে স্থানীয়রা তার কাছে জানতে চাইলে ওই মহিলা স্থানীয়দের জানান তার পোষা এক প্রাণীকে খাঁচার ভিতরে খাবার দেওয়ার সময় অসচেতনতার বশে খাঁচা খোলা থাকায় পালিয়ে যায় ৷

    প্রতিবেশীরা ওই মহিলার সঙ্গে অজ্ঞাত পরিচয়ের প্রাণীটির খোঁজ শুরু করলে একটি ঘর থেকে আবারও সেই বিকট প্রাণীর ডাক শুনতে পান এবং সেই ঘরে গিয়ে টিকটিকি জাতীয় এক প্রাণীকে দেখতে পেয়ে স্থানীয় বাসিন্দাদের সন্দেহ হয়। সন্দেহের বিষয়টি বিধাননগর দক্ষিণ থানাতে জানানো হলে পুলিশ এসে দেখেন ওই টিকটিকি জাতীয় প্রাণীটি আসলে বিলুপ্ত প্রজাতির একটি সোনালী তক্ষক। তার পরেই বিধাননগর দক্ষিণ থানার পুলিশ ওই তক্ষক-সহ তক্ষক সংরক্ষণকারী কোমল সিং নামের মহিলাকে আটক করে।

    পুলিশ সূত্রে খবর, ওই মহিলার কাছ থেকে তক্ষক রাখার অনুমতিপত্র পাওয়া যায়নি। স্থানীয়দের দাবি ওই মহিলা এই ধরনের প্রাণী পাচার করার সঙ্গে যুক্ত আছে তাই সেই প্রাণীগুলিকে জনসমক্ষে না এনে ঘরের মধ্যে লুকিয়ে খাঁচায় রাখতেন ও খাঁচাটিকে কাপড় দিয়ে ঢেকে রাখতেন।

    বিলুপ্তপ্রায় প্রজাতির এই সোনালী তক্ষকের লেজে থাকা বিষ দিয়ে জীবনদায়ী ওষুধ প্রস্তুত করা হয় বলে চোরা পাচারকারীদের বাজারে এই তক্ষকের মূল্য আনুমানিক কয়েক কোটি টাকা হতে পারে বলে পুলিশ সূত্রে খবর। ওই বিলুপ্ত প্রজাতির তক্ষক কেন সে লুকিয়ে ঘরের মধ্যে রেখেছিল সেই বিষয়ে তদন্ত করার জন্য ওই মহিলাকে জিজ্ঞাসাবাদ করছে বিধাননগর দক্ষিণ থানার পুলিশ। মহিলার সঙ্গে তক্ষক চোরা পাচারকারীদের সংযোগ আছে কি না তাও তদন্ত করে দেখছে বিধাননগর দক্ষিণ থানার পুলিশ।

    First published: