শিক্ষক সমিতির সভায় বিতর্কিত মন্তব্য, বিপাকে জেলা প্রাথমিক শিক্ষা সংসদ চেয়ারম্যান

শিক্ষক সমিতির সভায় বিতর্কিত মন্তব্য, বিপাকে জেলা প্রাথমিক শিক্ষা সংসদ চেয়ারম্যান

রবিবার সিউড়ির রবীন্দ্রসদনে তৃণমূল প্রাথমিক শিক্ষক সমিতির বিশেষ বর্ধিত সভা ছিল।

  • Share this:

#সিউড়ী: আরএসএস ও বিজেপি সংগঠনের সঙ্গে যুক্ত শিক্ষকদের পনের দিনের মধ্যে বদলির কথা বলে বিতর্কে বীরভূম জেলা প্রাথমিক শিক্ষা সংসদের চেয়ারম্যান প্রলয় নায়েক।

রবিবার সিউড়ির রবীন্দ্রসদনে তৃণমূল প্রাথমিক শিক্ষক সমিতির বিশেষ বর্ধিত সভা ছিল। সভায় উপস্থিত ছিলেন বিভিন্ন সংগঠনের নেতারা। সেখানেই বীরভূম জেলা প্রাথমিক শিক্ষা সংসদের চেয়ারম্যান প্রলয় নায়েকের মুখে শোনা যায় বেশ কিছু মন্তব্য। আর সেই বেফাঁস কথা বলে বিতর্কে জড়িয়েছেন তিনি।

প্রলয় নায়েক বলেছেন, বীরভূমের ময়ূরেশ্বর এলাকায় শিক্ষক সংগঠনে বিজেপি শক্তি বৃদ্ধি করছে। কিন্তু তাঁর দলের শিক্ষক সংগঠনের লোক চুপ করে বসে আছে। এরপরই তিনি বলে বসেন, অবিলম্বে সেই সমস্ত শিক্ষক যাঁরা আরএসএস ও বিজেপি সংগঠনের সঙ্গে যুক্ত তাঁদের নামের তালিকা তৈরি করে দিতে। কারণ তাঁদের সকলকেই নাকি ১৫ দিনের মধ্যে  ট্রান্সফার করে দেওয়া হবে। এ ছাড়াও তৃণমূল শিক্ষক সমিতির সদস্যদের বলা হয়, পদ নিয়ে বসে থাকলে হবে না দলীয় মিটিং মিছিলে যেতে হবে। এমনকি যাঁরা তৃণমূলে থেকেও তৃণমূলের বিরুদ্ধাচরণ করবে তাঁদের ক্ষেত্রে সোজা আঙুলে ঘি না উঠলে আঙুল বাঁকানোর হুমকিও দেন তিনি।

এরপর মোবাইলে ছবি তুলতে দেখে, তিনি তাঁকে মোবাইল বন্ধ করার নির্দেশ দেন। যদিও এই ভিডিও সাউন্ড ট্রাক ছড়িয়ে পড়েছে বিভিন্ন মোবাইলে। তবে প্রলয় নায়েকের দাবি, তিনি এই সভাতে উপস্থিত ছিলেন তৃণমূলের নেতা হিসেবে। তবে ট্রান্সফার প্রসঙ্গে তিনি বলেন, বিজেপির শিক্ষক সংগঠন ওই এলাকায় মিড ডে মিলের কাজ ঠিকমত হতে দিচ্ছে না। তাই তাদের নাম জমা দেওয়ার কথাই বলা হয়েছে।

First published: February 23, 2020, 6:35 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर