corona virus btn
corona virus btn
Loading

বর্ধমানের করোনা হাসপাতালে রোগীরা কী অবস্থায় আছেন জানেন ?

বর্ধমানের করোনা হাসপাতালে রোগীরা কী অবস্থায় আছেন জানেন ?

বর্ধমানে দুই নম্বর জাতীয় সড়কের পাশে কেমরি হাসপাতালকে করোনা হাসপাতাল হিসেবে গড়ে তোলা হয়েছে। করোনার উপসর্গ নিয়ে ভর্তি হওয়া রোগীদের সেইখানে রেখে চিকিৎসা করা হচ্ছে।

  • Share this:

বর্ধমান: পূর্ব বর্ধমান জেলার কোভিড হাসপাতালে কতজন ভর্তি রয়েছেন জানেন কি? কতজনই বা রয়েছেন অক্সিজেনের আওতায়? ভেন্টিলেশন সাপোর্টে রয়েছেন কতজন? জেলা স্বাস্থ্য দপ্তর সূত্রে জানা গিয়েছে,  বর্ধমান শহর সংলগ্ন দু নম্বর জাতীয় সড়কের ধারে করোনা হাসপাতলে এখনও পর্যন্ত চুয়ান্ন জন ভর্তি রয়েছেন। গত চব্বিশ ঘণ্টায় নতুন করে ভর্তি হয়েছেন আট জন। ভর্তি থাকা চুয়ান্ন জনের মধ্যে পাঁচ জন রয়েছেন সিসিইউতে। অক্সিজেন সাপোর্টে রয়েছেন ছ জন রোগী। একজনের অবস্থা আশঙ্কাজনক হওয়ায় তাকে ভেন্টিলেশনে রাখা হয়েছে। ছুটি দেওয়া হয়েছে সতেরো জনকে।

বর্ধমানে দুই নম্বর জাতীয় সড়কের পাশে কেমরি হাসপাতালকে করোনা হাসপাতাল হিসেবে গড়ে তোলা হয়েছে। করোনার উপসর্গ নিয়ে ভর্তি হওয়া রোগীদের সেইখানে রেখে চিকিৎসা করা হচ্ছে। বর্ধমানের গাঙপুরের ওই কোভিড  হাসপাতলে ফের দুজনের মৃত্যু হয়েছে। ওই দুই রোগী গত কয়েকদিন ধরেই বর্ধমানের ক্যামরি কোভিড হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ছিলেন। জেলা স্বাস্থ্য দপ্তর সূত্রে জানা গিয়েছে, তাদের নমুনা পরীক্ষার জন্য পাঠানো হয়েছে। তাদের মৃত্যুর কারণ খতিয়ে দেখা হচ্ছে। অন্যদিকে, বর্ধমানের নবাবহাটে আরও একটি বেসরকারি হাসপাতালকে কোভিড হাসপাতাল হিসেবে চিহ্নিত করে রাখা হয়েছে। তবে ওই হাসপাতালে এখনও করোনা উপসর্গ নিয়ে কাউকে ভর্তি করা হয়নি। গাঙপুরের কোভিড হাসপাতালে স্থান সংকুলান না হলে তখনই ওই হাসপাতালে ভর্তি নেওয়া শুরু হবে। বর্ধমানে এখনও করোনা পরীক্ষা শুরু না হওয়ায় ক্ষুব্ধ জেলার বাসিন্দারা।তবে বর্ধমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে কয়েক দিনের মধ্যেই করোনা পরীক্ষা শুরু করা যাবে বলে আশ্বাস দিয়েছে জেলা প্রশাসন। জেলা স্বাস্থ্য দপ্তর জানিয়েছে, বর্ধমান মেডিকেলের ইতিমধ্যেই করোনা পরীক্ষার যাবতীয় পরিকাঠামো গড়ে তোলা হচ্ছে। আইসিএমআর খতিয়ে দেখার পরেই শুরু হয়ে যাবে পরীক্ষা। পরীক্ষার জন্য প্রয়োজনীয় কিট এসে পৌঁছেছে। এই হাসপাতালে পরীক্ষা শুরু হলে আরও কিট আসবে বলে রাজ্যের তরফে আশ্বাস মিলেছে।

First published: April 29, 2020, 8:23 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर