সম্প্রীতির এই কালী পুজোয় প্রসাদ খাওয়ার জন্য হিন্দুরা বাড়ি বাড়ি নিমন্ত্রণ করেন মুসলিমদের

সম্প্রীতির এই কালী পুজোয় প্রসাদ খাওয়ার জন্য হিন্দুরা বাড়ি বাড়ি নিমন্ত্রণ করেন মুসলিমদের

এই গ্রামের হিন্দু ধর্মালম্বীরা যেমন এই পুজোর দিকে সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দেন, হাত বাড়িয়ে দেন গ্রামের মুসলিম সম্প্রদায়ের মানুষজনেরাও।

  • Share this:

Supratim Das

#কাঁকরতলা: শিব চতুর্দশীর পরের দিনই ছিল অমাবস্যা। বছরের এই দিনটাতে বীরভূমের কাঁকরতলা থানা এলাকার কদমডাঙ্গা গ্রামের মহামায়া আশ্রমে হয় কালীপুজো। এই উপলক্ষ্যে গ্রামে একটি বড় মেলাও বসে,  মেলা চলে তিনদিন। এই বছর এই মেলা ও কালীপুজো পড়ল ৫৬ বছরে। গ্রামের নিমাই গঙ্গোপাধ্যায় নামে এক ব্যাক্তি এই পুজোর প্রচলন করেন। এই মেলা ও কালীপুজো সবটাই কিন্তু হয় সর্বধর্মের সমন্বয়ে ৷ এই গ্রামের হিন্দু ধর্মালম্বীরা যেমন এই পুজোর দিকে সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দেন, হাত বাড়িয়ে দেন গ্রামের মুসলিম সম্প্রদায়ের মানুষজনেরাও।

তবে এই কালীপুজোর একটা রীতি আছে ৷ সেই রীতি অনুযায়ী অষ্টমঙ্গলার দিন পুজো কমিটির হিন্দু ধর্মালম্বী লোকেরা গ্রামের মুসলিম ধর্মালম্বীদের বাড়ি বাড়ি গিয়ে নিমন্ত্রণ করে আসেন প্রসাদ খাওয়ার জন্য এবং সেখানে সবাই আসেন মা কালী প্রসাদ খাওয়ার জন্য। ঐ দিন গ্রামবাসীরা সকলে একসঙ্গে মিলে কালী পূজার অষ্টমঙ্গলার প্রসাদ খান। এই পুজো দেখতে শুধু কাঁকরতলা থানা এলাকার লোকজনরাই নয়, আশেপাশের বর্ধমান জেলার লোক আসেন এই পুজো দেখতে। এই পুজো বীরভূম জেলার বুকে সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির একটা উদাহরণ তৈরি করে আসছে বছরের পর বছর ধরে।

First published: February 23, 2020, 8:55 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर