কলকাতায় উড়ান চালু করতে পারে ব্রিটিশ এয়ারওয়েজ

কলকাতায় উড়ান চালু করতে পারে ব্রিটিশ এয়ারওয়েজ

বর্তমানে দিঘা, গঙ্গাসাগর, শান্তিনিকেতন, মালদহ, বালুরঘাটের মধ্যে হেলিকপ্টার পরিষেবা চালু আছে।

  • Share this:

ABIR GHOSHAL

কলকাতায় ব্রিটিশ এয়ারওয়েজ! সম্ভাবনা উডিয়ে দিচ্ছে না রাজ্য সরকার। রাজ্যে শিল্প পরিস্থিতি যথেষ্ট ভালো। এই অবস্থায় ব্রিটিশ এয়ারওয়েজের মতো উড়ান সংস্থা কলকাতা থেকে তাদের পরিষেবা চালু করুক, শিল্প সন্মেলন থেকে এমন আশাই প্রকাশ করল রাজ্য সরকার।

কলকাতা বিমানবন্দর থেকে যাতায়াত করা কোনও উড়ানেই চার থেকে পাঁচ বছর আগে প্রথম শ্রেণির আসনে যাত্রী মিলত না। বিদেশি বিমান সংস্থাগুলির বিচারে দেশের মধ্যে অনেকটাই পিছিয়ে কলকাতা শহর। দিল্লি, মুম্বই, চেন্নাই, বেঙ্গালুরু, হায়দরাবাদ, কোচির পরে রয়েছে কলকাতা। রাজ্য চাইছে উড়ান মানচিত্রে নিজেদের এই অবস্থান বদলাতে। তাই রাজ্য পরিবহণ দফতর ইতিমধ্যেই কথা বলতে শুরু করেছে বড় বিমান সংস্থাগুলির সঙ্গে।

বাম আমলেই এই রাজ্য থেকে ব্রিটিশ এয়ারওয়েজ, লুফৎহানসা তাদের উড়ান তুলে নিয়েছিল। এই মুহূর্তে কলকাতা থেকে সরাসরি উড়ান নেই ইউরোপ, আমেরিকা, দক্ষিণ আফ্রিকা, অস্ট্রেলিয়া বা জাপানে। বাম আমল থেকেই এই পরিস্থিতি তৈরি হয়ে রয়েছে। কলকাতা-লন্ডন সরাসরি উড়ান চালাতে অনিচ্ছুক এয়ার ইন্ডিয়াও। প্রত্যেক বিমান সংস্থার যুক্তি ছিল এই রাজ্য থেকে বিজনেস শ্রেণিতে যাতায়াত করার মতো উচ্চবিত্ত যাত্রী প্রায় পাওয়াই যায় না। প্রথম শ্রেণি আরও খরচ সাপেক্ষ। কলকাতা থেকে ইউরোপ, আমেরিকা বা বিশ্বের অন্যত্র যাওয়ার যাত্রীই বেশির ভাগ সময় পাওয়া মুশকিল ছিল। যদিও এমিরেটস প্রথম শ্রেণির আসন নিয়ে কলকাতা থেকে বিমান চালায়।

দিঘার শিল্প সন্মেলন থেকে মুখ্যমন্ত্রী জানান, ব্রিটিশ এয়ারওয়েজ-সহ বাকি বিদেশি সংস্থাগুলি কলকাতা থেকে বিমান পরিষেবা চালু করুক। জ্বালানি-সহ নানা কর ইতিমধ্যেই রাজ্য সরকার মকুব করে দিয়েছে। রাজ্যে বিনিয়োগের অবস্থা ভালো। তাই এই সংস্থাগুলি আসতেই পারে।

দিঘায় শিল্প সম্মেলনে মুখ্যমন্ত্রী দিঘায় শিল্প সম্মেলনে মুখ্যমন্ত্রী

রাজ্য পরিবহণ দফতরের কর্তারা কলকাতা বিমানবন্দরের আধিকারিকদের সঙ্গে নিয়ে ইতিমধ্যেই কথা বলা শুরু করেছে ব্রিটিশ এয়ারওয়েজের সঙ্গে। সূত্রের খবর, কলকাতা থেকে বিমান পরিষেবা চালু করার ব্যপারে আশার কথা শুনিয়েছে। তবে শুধুমাত্র বড় উড়ান সংস্থার বিষয়ে নয়, রাজ্য সরকার উড়ান পরিকাঠামো বিষয়ে নিজেদের অবস্থান স্পষ্ট করেছে। সেখানে রাজ্যের সমস্ত হেলিপ্যাড ও ছোট ছোট বিমানবন্দর পুরোপুরি চালু করে দেওয়া হবে বলে দাবি করা হয়েছে।

বর্তমানে দিঘা, গঙ্গাসাগর, শান্তিনিকেতন, মালদহ, বালুরঘাটের মধ্যে হেলিকপ্টার পরিষেবা চালু আছে। রাজ্য চাইছে মালদহ, কোচবিহারের মতো বিমানবন্দর থেকেও ছোট বিমান চালু করতে। যদিও কোনও বিমান সংস্থা এখনও আগ্রহ প্রকাশ করেনি। তবে রাজ্য সরকারের দাবি, শীঘ্রই পরিষেবা চালু করা যাবে। বর্তমানে রাজ্যে ২৭টি হেলিপ্যাড আছে। এছাড়া আরও কতগুলি গুরুত্বপূর্ণ জায়গায় হেলিপ্যাড তৈরির সিদ্ধান্ত নিয়েছে রাজ্য।

রাজ্যে শিল্পে বিনিয়োগের জন্য পরিকাঠামো তৈরি আছে। তাতে গুরুত্বপূর্ণ বিষয় উড়ানোর মাধ্যমে সংযোগ বৃদ্ধি। সেই বিষয়কে রাজ্য সরকার গুরুত্ব দিয়ে ভাবছে। মুখ্যমন্ত্রীর কথায়, 'হাসিমুখে রাজ্যে বিনিয়োগ করুন।' রাজ্যের শিল্প বিনিয়োগের বদল দেখে ১১ বছর আগে কলকাতা থেকে চলে যাওয়া ব্রিটিশ এয়ারওয়েজ ফেরত আসে কিনা সেই আগ্রহ তৈরি হয়েছে শিল্প মহলেও।

First published: 10:25:41 AM Dec 12, 2019
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर