Bomb Blast in Bengal: ভোট বঙ্গে ফের বোমা বিস্ফোরণ, কেঁপে উঠল গোটা এলাকার বাড়ি-ঘর!

Bomb Blast in Bengal: ভোট বঙ্গে ফের বোমা বিস্ফোরণ, কেঁপে উঠল গোটা এলাকার বাড়ি-ঘর!

ফের বর্ধমানে বোমা বিস্ফোরণ

গলসির ১নং ব্লকের আটপাড়া গ্রামে রবিবার রাত ৯টা নাগাদ মারাত্মক একটি বিস্ফোরণ হয় বলে জানা গিয়েছে। বীভৎস আওয়াজে আতঙ্কিত হয়ে পড়েন এলাকার বাসিন্দারা।

  • Share this:

    #বর্ধমান: মঙ্গলবার রাজ্যে তৃতীয় দফার ভোট। কিন্তু তার আগেই ফের বিস্ফোরণের (Bomb Blast in Bengal) ঘটনায় চাঞ্চল্য ছড়াল বাংলায়। এবারের ঘটনাস্থল পূর্ব বর্ধমানের (Purba Bardhaman) গলসি। গলসির ১নং ব্লকের আটপাড়া গ্রামে রবিবার রাত ৯টা নাগাদ মারাত্মক একটি বিস্ফোরণ হয় বলে জানা গিয়েছে। বীভৎস আওয়াজে আতঙ্কিত হয়ে পড়েন এলাকার বাসিন্দারা। এলাকাবাসীরা জানিয়েছেন, বিস্ফোরণের তীব্রতায় আশপাশের কয়েকটি বাড়িও কেঁপে ওঠে। প্রসঙ্গত, দিন কয়েক আগে বর্ধমানে অপর একটি বিস্ফোরণে মৃত্যু হয় এক শিশুর।

    এলাকাবাসীর একাংশের দাবি, শেখ ফটিকের বাড়ির উঠোনের কাছেই বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটে। অনেকেরই অভিযোগ, এলাকায় শেখ ফটিকের বাড়িতে বোমা আগে থেকেই মজুত ছিল। সেই পুরনো বোমাই উনুনে সেঁকতে গিয়ে তা ফেটে যায়। প্রসঙ্গত, ভোটের আগেও ওই এলাকায় বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটেছে।

    গত বছর সেপ্টেম্বর মাসে ওই গ্রামেরই একটি শিশু শিক্ষাকেন্দ্রে বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটেছিল। সে সময়ও মজুত বোমা থেকে বিস্ফোরণ ঘটেছিল বলে অভিযোগ ওঠে। সেই ঘটনার রেশ মিটতে না মিটতেই ফের বিস্ফোরণের ঘটনায় এলাকায় নতুন করে আতঙ্ক ছড়িয়েছে। এই ঘটনায় কেউ হতাহত হয়নি। তবে, ইতিমধ্যেই ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে সিআইডি। দিনকয়েকের মধ্যেই ওই এলাকার ভোট রয়েছে। তার আগে এহেন বিস্ফোরণের ঘটনায় শোরগোল পড়ে গিয়েছে এলাকায়।

    প্রসঙ্গত, বিধানসভা নির্বাচন ঘিরে উত্তাল বাকবিতণ্ডা চলছে বাংলায়। এর আগেও একাধিক বিস্ফোরণের ঘটনায় শাসক তৃণমূলকে কাঠগড়ায় তুলেছে বিজেপি, বাম -সব শিবিরই। বাংলার বিধানসভা নির্বাচনে এবার হিংসা রুখতে তৎপর হয়েছে নির্বাচন কমিশন। আর সেই সূত্রে পুলিশ-প্রশাসনে একঝাঁক বদল করেছে কমিশন। ভোটের দিন ঘোষণার আগেই রাজ্যের বিভিন্ন প্রান্তে টহল দিতে শুরু করেছিল কেন্দ্রীয় বাহিনী। হিংসা রুখে সুষ্ঠু ও অবাধ ভোট করা এবার কমিশনের কাছে রীতিমতো চ্যালেঞ্জ। কিন্তু এরই মধ্যে একের পর এক বিস্ফোরণে চিন্তা বাড়ছে কমিশনের।

    Published by:Suman Biswas
    First published: