BJP Worker Death: বিজেপি কর্মীর রহস্য মৃত্যু ঘিরে উত্তেজনা কালনায়, মৃতদেহ আটকে বিক্ষোভ

BJP Worker Death: বিজেপি কর্মীর রহস্য মৃত্যু ঘিরে উত্তেজনা কালনায়, মৃতদেহ আটকে বিক্ষোভ

পূর্বস্থলী দক্ষিণ কেন্দ্রের তৃণমূল কংগ্রেস প্রার্থী স্বপন দেবনাথ বলেন, এটি বিজেপির একটি বড় মিথ্যাচার ছাড়া আর কিছু নয়। বাজার গরম করার জন্য তাঁরা এই কাজ করছে।

পূর্বস্থলী দক্ষিণ কেন্দ্রের তৃণমূল কংগ্রেস প্রার্থী স্বপন দেবনাথ বলেন, এটি বিজেপির একটি বড় মিথ্যাচার ছাড়া আর কিছু নয়। বাজার গরম করার জন্য তাঁরা এই কাজ করছে।

  • Share this:

Saradindu Ghosh

#কালনা: ভোট মিটতে না মিটতেই পূর্ব বর্ধমান জেলার কালনার কল্যাণপুরের কামার পাড়ার বিজেপি কর্মীর মৃত্যু ঘিরে চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে। সোমবার সকালে বাড়ি থেকে কিছুটা দূরে আম গাছে ওই ব্যক্তির ঝুলন্ত মৃতদেহ পাওয়া যায়। তাঁকে পিটিয়ে খুন করার পর মৃতদেহ গাছে ঝুলিয়ে দেওয়া হয় বলে অভিযোগ বিজেপি নেতৃত্বের। মৃতদেহ আটকে রেখে বিক্ষোভ দেখায় বিজেপি। তাঁদের অভিযোগ, কয়েকদিন ধরেই ওই কর্মীকে প্রাণনাশের হুমকি দিচ্ছিল তৃণমূল আশ্রিত দুষ্কৃতিরা। তারই বহিঃপ্রকাশ এই খুন। হুমকির ঘটনায় জড়িত তৃণমূল কর্মীদের গ্রেফতার করা না হওয়া পর্যন্ত মৃতদেহ পুলিশের হাতে দেওয়া হবে না বলে জানিয়েছে বিজেপি নেতৃত্ব।

মৃতের নাম অখিল প্রামাণিক। তাঁর দাদা দেবু প্রামাণিক জানিয়েছেন, অনেক রাতে বাড়ি থেকে বেরিয়ে গিয়েছিল অখিল। এরপর সকালে তাঁর ঝুলন্ত মৃতদেহ দেখা গিয়েছে বলে খবর আসে। সেখানে গিয়ে দেখি ছোট একটি  আম গাছে অখিলের মৃতদেহ ঝুলছে। পা মাটিতে ঠেকে রয়েছে। গলায় দড়ি দিয়ে এ ভাবে আত্মহত্যা হতে পারে না। ওঁকে খুন করা হয়েছে বলে আমরা নিশ্চিত। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে যান কালনার বিজেপি প্রার্থী বিশ্বজিৎ কুণ্ডু। তিনি বলেন, মৃতদেহে টেনে হিঁচড়ে নিয়ে যাওয়ার দাগ রয়েছে। মাটিতে রক্তের চিহ্ন রয়েছে। আমরা নিশ্চিত আমাদের এই সক্রিয় কর্মীকে খুন করার পর মৃতদেহ গাছে ঝুলিয়ে দেওয়া হয়েছে। তৃণমূল আশ্রিত দুষ্কৃতিরা এই খুন করেছে। বিষয়টি জেলা ও রাজ্য নেতৃত্বকে জানানো হয়েছে। নির্বাচনে পরাজয় নিশ্চিত বুঝে সেই হতাশা থেকেই তৃণমূল এই খুন করেছে।

যদিও বিজেপির এই অভিযোগ ভিত্তিহীন বলে দাবি করেছে পূর্ব বর্ধমান জেলা তৃণমূল কংগ্রেস নেতৃত্ব। তৃণমূল কংগ্রেসের পূর্ব বর্ধমান জেলার সভাপতি তথা পূর্বস্থলী দক্ষিণ কেন্দ্রের তৃণমূল কংগ্রেস প্রার্থী স্বপন দেবনাথ বলেন, এটি বিজেপির একটি বড় মিথ্যাচার ছাড়া আর কিছু নয়। বাজার গরম করার জন্য তাঁরা এই কাজ করছে। এর আগেও আত্মহত্যার ঘটনাকে খুন বলে চালানোর চেষ্টা করেছিল বিজেপি। এই ঘটনার সঙ্গে তৃণমূল কংগ্রেসের কোনও যোগ নেই।

ঘটনার খবর পেয়ে কল্যাণপুর গ্রামে যায় কালনা থানার পুলিশ। ময়না তদন্তের জন্য মৃতদেহ নিতে গেলে পুলিশকে বাধা দেয় বিজেপি কর্মী সমর্থকরা। তাদের দাবি, ঘটনার উচ্চ পর্যায়ের তদন্ত করতে হবে।অবিলম্বে

দোষীদের গ্রেপ্তার করতে হবে। তা না হওয়া পর্যন্ত মৃতদেহ পুলিশের হাতে দেওয়া হবে না বলে জানিয়ে দিয়েছেন তাঁরা। পুলিশ জানিয়েছে, ঠিক কী কারণে এই মৃত্যু হয়েছে তা ময়না তদন্তের রিপোর্টে পরিষ্কার হয়ে যাবে।

Published by:Simli Raha
First published:

লেটেস্ট খবর