Home /News /south-bengal /
Bardhaman Bank Dacoity: বর্ধমানের ব্যাঙ্ক ডাকাতি কাণ্ডে বিহারের গ্যাং! তদন্তে কী সূত্র পেল পুলিশ?

Bardhaman Bank Dacoity: বর্ধমানের ব্যাঙ্ক ডাকাতি কাণ্ডে বিহারের গ্যাং! তদন্তে কী সূত্র পেল পুলিশ?

Bardhaman Bank Dacoity Case: বিহারের গ্যাং এসে বাংলার দুষ্কৃতিদের সঙ্গে হাত মিলিয়ে ডাকাতি করেছিল! তদন্তে কী তথ্য পেল পুলিশ!

  • Share this:

#বর্ধমান: বর্ধমানে ব্যাঙ্ক ডাকাতির ঘটনায় জড়িত বিহার গ্যাং! প্রাথমিক তদন্তের পর এমনটাই মনে করছে পূর্ব বর্ধমান জেলা পুলিশ। শুক্রবার বর্ধমানের প্রাণকেন্দ্র কার্জন গেটে  পাঞ্জাব ন্যাশনাল ব্যাঙ্ক শাখায় দুঃসাহসিক ডাকাতির ঘটনা ঘটে। তারপর ২৪ ঘন্টা পার হয়ে গেলেও এখনও দুষ্কৃতীদের পাকড়াও করতে পারেনি পুলিশ। তবে প্রাথমিক তদন্তের পর পুলিশ মনে করছে, বিহার থেকে আসা দুষ্কৃতীদের সঙ্গে স্থানীয় দুষ্কৃতীরা মিলিত হয়ে এই ডাকাতির ঘটনা ঘটিয়েছে।

বর্ধমানের কার্জন গেটে পাঞ্জাব ন্যাশনাল ব্যাঙ্ক শাখায় প্রায় ৫০ মিনিট ধরে অপারেশন চালায় দুষ্কৃতীরা। অন্তত পক্ষে ৩৩ লক্ষ টাকা ব্যাগে ভরে চম্পট দিয়েছে তারা। এই ঘটনার পর পরই স্পেশাল ইনভেস্টিগেশন টিম বা সিট গঠন করে পূর্ব বর্ধমান জেলা পুলিশ।

আরও পড়ুন- অজান্তেই কামড়ে দিয়েছিল বিষধর কালাচ, যুবক যা করলেন, অবাক চিকিৎসকরা

জেলা পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, দক্ষ অফিসারদের নিয়ে এই তদন্তকারী দল গঠন করা হয়েছে। তাঁরা ঘটনার সব দিক খতিয়ে দেখছেন। শুক্রবার সন্ধ্যা পর্যন্ত ব্যাঙ্কে প্রাথমিক তদন্ত চালান পুলিশ আধিকারিকরা। ঘটনার পর ব্যাঙ্কে আসে ফরেনসিক দল। ফরেনসিক বিশেষজ্ঞরা ফিঙ্গার প্রিন্ট সহ নমুনা সংগ্রহ করে।

ঘটনার পরই বর্ধমান শহর ও জেলার সব থানা এলাকায় নাকা চেকিং শুরু করে জেলা পুলিশ। শহর থেকে বেরোনোর সব রাস্তায় বাড়তি নজরদারির ব্যবস্থা করা হয়। দুচাকা, চার চাকা গাড়ি দাঁড় করিয়ে তল্লাশি চালানো হয়। যদিও তা থেকে তেমন কোনও সূত্র মেলেনি।

জেলা পুলিশের এক পদস্থ আধিকারিক জানান, সাম্প্রতিক কালের বিভিন্ন ব্যাঙ্ক ডাকাতির ঘটনায় বিহারের গ্যাংয়ের যোগ থাকার প্রমাণ মিলেছিল। এই ঘটনাতেও বিহার গ্যাং বা বাইরের রাজ্যের দুষ্কৃতীদের যোগ রয়েছে বলে মনে করা হচ্ছে।

আরও পড়ুন- জনসংযোগ হচ্ছে না, বৃষ্টির সকালে চপ ভেজে এলাকার লোকজনকে খাওয়ালেন বিজেপি বিধায়ক

ঘটনাস্থলে উপস্থিত ব্যাঙ্ক কর্মী অফিসার ও আমানতকারীরা জানিয়েছেন, দুষ্কৃতীরা হিন্দিতে কথা বলছিল। একজন বাংলায় কথা বলছিল। তাই স্হানীয় দুষ্কৃতীর সঙ্গে হাত মিলিয়ে বাইরের রাজ্য থেকে আসা দুষ্কৃতীরা এই অপরাধ সংগটিত করেছে বলেই মনে করা হচ্ছে। ডাকাতি হওয়া টাকা উদ্ধার ও দুষ্কৃতীদের হদিশ পেতে সবরকম চেষ্টা চালানো হচ্ছে।

Published by:Suman Majumder
First published:

Tags: Bank Dacoity, Bardhaman, Bardhaman news, Bardhaman police

পরবর্তী খবর