বর্ধমান শহরে ঘরে ঘরে সংক্রমণ, আতঙ্কিত বাসিন্দারা, নতুন করে আক্রান্ত প্রায় ৩০০

পূর্ব বর্ধমান জেলায় গত চব্বিশ ঘন্টায় নতুন করে করোনা আক্রান্ত হয়েছেন ৬৯৯ জন

পূর্ব বর্ধমান জেলায় গত চব্বিশ ঘন্টায় নতুন করে করোনা আক্রান্ত হয়েছেন ৬৯৯ জন

  • Share this:

#বর্ধমান: বর্ধমান শহরে ঘরে ঘরে ছড়িয়ে পড়েছে করোনার সংক্রমণ। পূর্ব বর্ধমান জেলার মধ্যে সবচেয়ে বেশি আক্রান্তের হদিশ মিলছে জেলার এই সদর শহরে। তার সঙ্গে তাল মিলিয়ে বাড়ছে মৃত্যুর সংখ্যাও। করোনার দ্বিতীয় পর্বের সংক্রমণ ও তার ভয়াবহতা অনেক বেশি হওয়ায় আতঙ্কের মধ্যে রয়েছেন বাসিন্দাদের অনেকেই। অনেকেই সংক্রমণ এড়াতে মাস্কে মুখ ঢাকছেন, হ্যান্ড স্যানিটাইজার ব্যবহার করছেন। তবে সংক্রমনের এত ব্যাপকতা সত্ত্বেও বিনা প্রয়োজনে ঘরের বাইরে,বাজারে বেরিয়ে পড়ছে এমন ব্যক্তি সংখ্যাও কম নয়। বিশেষজ্ঞদের মতে, বিনা কারণে যারা বাইরে বের হচ্ছেন তাঁরা অযথা এই মারণ রোগকে ঘরের মধ্যে টেনে আনছেন। তাদের মধ্যে দিয়ে পরিবারের অন্যান্যরা আক্রান্ত হচ্ছেন।

পূর্ব বর্ধমান জেলায় গত চব্বিশ ঘন্টায় নতুন করে করোনা আক্রান্ত হয়েছেন ৬৯৯ জন। তার মধ্যে ২৭৪ জনই বর্ধমান শহর এলাকার বাসিন্দা। বর্ধমান শহরের পঁয়ত্রিশটি ওয়ার্ডের সবকটিতেই কমবেশি করোনা আক্রান্তের হদিশ মিলছে। এছাড়াও কাটোয়া পৌরসভা এলাকায় নতুন করে ৩০ জন করোনা আক্রান্ত হয়েছেন। গুসকরা পৌরসভা এলাকায় আক্রান্ত হয়েছেন চারজন। কালনা পৌরসভা এলাকাতেও চারজন করোনা আক্রান্তের হদিশ মিলেছে। মেমারি পৌরসভা এলাকায় নতুন করে দশজন করোনা আক্রান্ত হয়েছেন।

জেলার গ্রামীণ এলাকাগুলোর মধ্যে আউশগ্রাম এক নম্বর ব্লকে পাঁচজন করোনা আক্রান্ত হয়েছেন। আউশগ্রাম দু'নম্বর ব্লকে করোনা আক্রান্ত হয়েছেন একজন। ভাতার ব্লকে আক্রান্তের সংখ্যা বেড়েই চলেছে। এই ব্লকে ফের ৩৩ জন করোনা আক্রান্ত হয়েছেন। বর্ধমান এক নম্বর ব্লকে গত চব্বিশ ঘন্টায় ৫৮ জন করোনা আক্রান্ত হয়েছেন। বর্ধমান দু'নম্বর ব্লকে করোনা আক্রান্ত হয়েছেন আঠাশ জন। গলসি এক নম্বর ব্লকের ১৭ জন আক্রান্ত হয়েছেন। গলসি দু নম্বর ব্লকে করোনা আক্রান্ত হয়েছেন ৫ জন। জামালপুর ব্লকে আট জন আক্রান্ত হয়েছেন।

কালনা এক নম্বর ব্লকে করোনা আক্রান্ত হয়েছেন ১১ জন। কালনা দু নম্বর ব্লকে আক্রান্ত হয়েছেন দু'জন। কাটোয়া এক নম্বর ব্লকে কুড়িজন আক্রান্ত হয়েছেন। কাটোয়া দু'নম্বর ব্লকে আক্রান্ত হয়েছেন নজন। কেতুগ্রাম এক নম্বর ব্লকে তিনজন করোনা আক্রান্ত হয়েছেন। কেতুগ্রাম দু নম্বর ব্লকে করোনা আক্রান্ত হয়েছেন ১১ জন। খণ্ডঘোষ ব্লকে ছয়জন করোনা আক্রান্ত হয়েছেন। মন্তেশ্বর ব্লকের করোনা আক্রান্ত হয়েছেন ১৫ জন। মেমারি এক নম্বর ব্লকে ২০ জন আক্রান্ত হয়েছেন। মেমারি দু'নম্বর ব্লকে করোনা আক্রান্ত হয়েছেন দু'জন। মঙ্গলকোট ব্লকে ১১ জন করোনা আক্রান্ত হয়েছেন। পূর্বস্থলী এক নম্বর ব্লকে করোনা আক্রান্ত হয়েছেন ২২ জন। পূর্বস্থলী দু'নম্বর ব্লক ১৭ জন আক্রান্ত হয়েছেন। রায়না এক নম্বর ব্লকে করোনা আক্রান্ত হয়েছেন ১৩ জন। রায়না দু নম্বর ব্লকের ১৪ জন করোনা আক্রান্ত হয়েছেন।

Published by:Ananya Chakraborty
First published: