• Home
  • »
  • News
  • »
  • south-bengal
  • »
  • Mukul Roy: সকাল সকাল 'ময়দানে' মুকুল রায়, কাঁচরাপাড়ায় ভোটদান কৃষ্ণনগরের বিজেপি প্রার্থীর

Mukul Roy: সকাল সকাল 'ময়দানে' মুকুল রায়, কাঁচরাপাড়ায় ভোটদান কৃষ্ণনগরের বিজেপি প্রার্থীর

দল ক্ষমতায় এলেও মূলত সাংগঠনিক ভূমিকাতেই থেকে গিয়েছেন৷ তৃণমূল দ্বিতীয় ইউপিএ সরকার ছেড়ে বেরিয়ে এলেও রাজ্য এবং দিল্লির রাজনীতিতে তাঁর গুরুত্বও কমেনি, বরং বেড়েছে৷

দল ক্ষমতায় এলেও মূলত সাংগঠনিক ভূমিকাতেই থেকে গিয়েছেন৷ তৃণমূল দ্বিতীয় ইউপিএ সরকার ছেড়ে বেরিয়ে এলেও রাজ্য এবং দিল্লির রাজনীতিতে তাঁর গুরুত্বও কমেনি, বরং বেড়েছে৷

ষষ্ঠ দফায় (6th Phase) উত্তর ২৪ পরগনার কাঁচরাপাড়ার মিউনিসিপ্যাল পলিটেকনিক হাই স্কুলে এদিন ভোট দিতে যান মুকুল রায়। ১৪১ নম্বর বুথে ভোট দেন তিনি। ষষ্ঠ দফার ভোটে মুকুল রায় নিজেও বিজেপির হয়ে প্রার্থী হিসেবে দাঁড়িয়েছেন।

  • Share this:

    #কাঁচরাপাড়া: সকাল সকাল ভোটদান সারলেন বিজেপির জাতীয় সহ-সভাপতি মুকুল রায় (Mukul Roy)। বাংলার নির্বাচনের (West Bengal Election 2021) ষষ্ঠ দফায় (6th Phase) উত্তর ২৪ পরগনার কাঁচরাপাড়ার মিউনিসিপ্যাল পলিটেকনিক হাই স্কুলে এদিন ভোট দিতে যান মুকুল রায়। ১৪১ নম্বর বুথে ভোট দেন তিনি। ষষ্ঠ দফার ভোটে মুকুল রায় নিজেও বিজেপির হয়ে প্রার্থী হিসেবে দাঁড়িয়েছেন। কৃষ্ণনগর উত্তর আসনের বিজেপি প্রার্থী তিনি। তৃণমূলে এই আসনে তাঁর প্রতিদ্বন্দ্বী অভিনেত্রী কৌশানি মুখোপাধ্যায়।

    দীর্ঘ কুড়ি বছর, অবশেষে 'আসল পরিবর্তনের' জন্য ভোটে দাঁড়িয়েছেন বিজেপির সর্বভারতীয় সহ-সভাপতি তথা একসময় তৃণমূলের সেকেন্ড ইন কম্যান্ড মুকুল রায়। তাঁকে কৃষ্ণনগর উত্তর আসনে বিজেপি প্রার্থী করা হয়েছে। বস্তুত সাংগঠনিক নেতা হিসেবে বরাবর সমাদর পেয়ে এসেছেন মুকুল রায়। হয়েছেন রাজ্যসভার সাংসদ, সেই সূত্রে কেন্দ্রীয় রেল বা জাহাজ মন্ত্রকের মন্ত্রীও। কিন্তু ২০০১ সালের আর ভোটে দাঁড়াননি মুকুল। অবশেষে এবার তাঁকে আবার ভোটের ময়দানে নামিয়েছে গেরুয়া শিবির।

    ২০০১ সালে শেষবার জগদ্দল থেকে বিধানসভা ভোটে লড়েছিলেন মুকুল রায়। সেবার অবশ্য হেরে গিয়েছিলেন তিনি। তার পর থেকেই তৃণমূলের সাংগঠনিক সেনাপতি হয়ে ওঠেন তিনি। দলের গুরুদায়িত্ব দিলেও তাঁকে আর কখনও ভোটের ময়দানে নামাননি মমতা। এরপর বিজেপিতে যাওয়ার পরও মুকুলের সেই সংগঠন গড়ে তোলার ক্ষমতাকেই কাজে লাগাতে শুরু করে গেরুয়া শিবির। লোকসভা ভোটেও তাঁকে প্রার্থী করার কথা ভাবেনি বিজেপি। কিন্তু এবার পরিস্থিতি আলাদা। এর আগের প্রার্থী তালিকায় চার সাংসদকেও ভোটে দাঁড় করিয়েছিল বিজেপি। নবান্ন দখলে একেবারে মরিয়া চেষ্টা করছেন অমিত শাহরা। সেই সূত্রেই মুকুলকে প্রার্থী করা হল বলে অনুমান রাজনৈতিক মহলের।

    Published by:Raima Chakraborty
    First published: