ট্রেনের মধ্যেই প্রসব যন্ত্রণায় কাতরাচ্ছিলেন মহিলা! মানবিক পদক্ষেপ করে নজির রেলপুলিশের

ট্রেনের মধ্যেই প্রসব যন্ত্রণায় কাতরাচ্ছিলেন মহিলা! মানবিক পদক্ষেপ করে নজির রেলপুলিশের

রোজ লাঠি হাতে দুর্বৃত্তদের সামলান। আজ অন্য ভুমিকা নিলেন পুলিশকর্মীরা।

রোজ লাঠি হাতে দুর্বৃত্তদের সামলান। আজ অন্য ভুমিকা নিলেন পুলিশকর্মীরা।

  • Share this:

    #দক্ষিণ ২৪ পরগনা: রোজ লাঠি হাতে দুর্বৃত্তদের সামলান। আজ অন্য ভুমিকা নিলেন পুলিশকর্মীরা। তাঁদের সহযোগিতাতেই প্ল্যাটফর্মে ফুটফুটে এক পুত্র সন্তানের জন্ম হল আজ। এভাবেই দেখা গেল বারুইপুর রেল পুলিশের মানবিক মুখ।

    প্রসব যন্ত্রণায় ছটফট করছিলেন মহিলা। ট্রেন দাঁড় করিয়ে মহিলাকে স্ট্রেচারে করে নামানোর হয়। বারুইপুর প্ল্যাটফর্মে পুত্রসন্তানের জন্ম দেন মহিলা রেলযাত্রী। ঘটনা দক্ষিণ ২৪ পরগনার শিয়ালদহ দক্ষিণ শাখার বারুইপুর স্টেশনের। দক্ষিণ ২৪ পরগনার মাধবপুরের বাসিন্দা সুভাষ মণ্ডল পেশায় স্কুল শিক্ষক। তিনি তাঁর গর্ভবতী স্ত্রী পূজা মণ্ডলকে নিয়ে আপ লক্ষীকান্তপুর ট্রেনে উঠেছিলেন।

    কলকাতার শিশু মঙ্গলে চিকিৎসা করাতে নিয়ে যাওয়ার জন্য। যখন ট্রেনটি বারইপুর স্টেশন ঢোকে, তখন প্রচন্ড প্রসব যন্ত্রণায় ছটফচ করছিলেন ওই মহিলা রেল যাত্রী। পাশে থাকা রেল যাত্রীরা খবর দেন বারুইপুর জিআরপিতে। সঙ্গে সঙ্গেই বারুইপুর জিআরপি ওসি অর্ণব দত্তের উদ্যোগে মহিলা পুলিশকর্মীরা পৌঁছে যান ওই কম্পার্টমেন্টে। অন্যদিকে স্টেশন মাস্টারকে খবর দেওয়া হয় ট্রেনটিকে দাঁড় করিয়ে রাখার জন্য। তার পর ওই মহিলা রেল যাত্রীকে স্ট্রেচারে করে নামানো হয়। সঙ্গে সঙ্গেই তিনি প্ল্যাটফর্মে একটি পুত্র সন্তানের জন্ম দেন।

    সদ্যজাত পুত্র সন্তান ও তাঁর মাকে স্ট্রেচারে করে পাঠানো হয় বারুইপুর সুপার স্পেশালিটি হাসপাতালে। সেখানেই লেবার রুমে চিকিৎসা চলছে মা ও সদ্যজাত পুত্রসন্তানের। চিকিৎসকরা জানিয়েছেন মা ও শিশু দুজনেই সুস্থ আছেন, কয়েক ঘণ্টা পরেই তাদেরকে নরমাল ওয়ার্ডে স্থানান্তরিত করা হবে। জিআরপির মানবিকতায় তাঁর স্ত্রী ও সন্তান দুজনই সুস্থ রয়েছেন বলে জানিয়েছেন সদ্য পিতা হওয়া সুভাষ মণ্ডল।

    অর্পণ মণ্ডল

    Published by:Swaralipi Dasgupta
    First published:
    0