Home /News /purba-bardhaman /
Purba Bardhaman: যন্ত্রচালিতের যুগে আজও তাঁতিদের কাছে গুরুত্ব পায় হস্তচালিত তাঁত

Purba Bardhaman: যন্ত্রচালিতের যুগে আজও তাঁতিদের কাছে গুরুত্ব পায় হস্তচালিত তাঁত

title=

ঐতিহ্যবাহী হস্তচালিত তাঁত শিল্প আর অধুনিক যন্ত্রচালিত তাঁত শিল্প বর্তমানে কার্যত একে অপরকে টেক্কা দিয়ে যাচ্ছে। তবে অধুনিক যন্ত্র আসার পরও এখনও নিজের অস্তিত্ব টিকিয়ে রেখেছে ঐতিহ্যবাহী হস্তচালিত তাঁত শিল্প।

  • Share this:

    #পূর্ব বর্ধমান : ঐতিহ্যবাহী হস্তচালিত তাঁত শিল্প আর অধুনিক যন্ত্রচালিত তাঁত শিল্প বর্তমানে কার্যত একে অপরকে টেক্কা দিয়ে যাচ্ছে। তবে অধুনিক যন্ত্র আসার পরও এখনও নিজের অস্তিত্ব টিকিয়ে রেখেছে ঐতিহ্যবাহী হস্তচালিত তাঁত শিল্প। পূর্ব বর্ধমান জেলার কাটোয়া দু নং ব্লকের জগদানন্দপুর পঞ্চায়েতের ঘোড়ানাশ, মুস্থলী গ্রামে বসবাস প্রায় ২০০ টি তাঁতি পরিবারের। এই গ্রামেই রয়েছে ঘোড়ানাশ সিল্ক খাদি গ্রামউদ্যোগ সমিতি। তাঁতিরা সারাদিন ব্যস্ত থাকেন তাঁতের পোশাক বানাতে। কেউ হস্তচালিত তো কেউ যন্ত্রচালিত তাঁত দিয়ে কাজ করেন। তবে তাঁতিদের একাংশের মতে যন্ত্রচালিতের থেকে হস্তচালিত তাঁতে কাজ করা অনেক বেশি লাভজনক। অন্যদিকে যন্ত্রচালিত তাঁতে কাজের সুবিধা হয় বেশি বলছেন অনেকে। দেশের বিভিন্ন প্রান্তে কাটোয়ার এই গ্রাম থেকেই সরবরাহ হয় তাঁতের শাড়ি, ওড়না, কুর্তি ইত্যাদি।

    ফলে তাঁতের শাড়ি পোশাক বানিয়েই সংসার চলে এই গ্রামের বেশিরভাগ মানুষের। গ্রামের বেশ কয়েকজন তাঁতি জানান, বংশ পরম্পরায়স হস্তচালিত তাঁতেই কাজ করে অভ্যেস হয়ে গিয়েছে, আর হস্তচালিততে সময় লাগলেও আয় বেশি। তবে যন্ত্রচালিততে খাটনি কম, সময় কম ব্যয় হয় কিন্তু আয় কম।

    আরও পড়ুনঃ বর্ধমানের জোতরাম বিদ্যাপীঠে কন্যাশ্রী ক্লাবের উদ্বোধন

    জানা গিয়েছে, শাড়িতে বা পোশাকে যদি সুক্ষ কাজ করতে হয় তাহলে হস্তচালিতের বিকল্প নেই। কিন্তু প্লেন কোনও নকশা ছাড়া শাড়ি যদি তৈরি করতে হয় তাহলে যন্ত্রচালিত তাঁতই ভালো। সাধারণত সকলের বাড়িতে যন্ত্রচালিত তাঁত নেই। ইচ্ছে থাকলেও বহু তাঁতি কিনতে পারেন না মেশিন। ফলে তাঁতিদের একাংশের দাবি যদি সরকার সকল তাঁতিকে মেশিন দেওয়ার ব্যাবস্হা করে তাহলে খুব উপকৃত হবেন।

    আরও পড়ুনঃ উপপ্রধানকে মারধর ও সরকারি সম্পত্তি ভাঙচুরের অভিযোগে গ্রেফতার ১৫

    উল্লেখ্য, কয়েকজন এই পেশাকে আঁকড়ে ধরে আছেন। উচ্চমূল্যের কাঁচামাল আর কমতির দিকে থাকা চাহিদার সঙ্গে পাল্লা দিয়ে চলতে গিয়ে অনেকেই এই পেশা ছেড়ে দিচ্ছেন। পূর্ব পুরুষের রেখে যাওয়া এই পেশার মায়া ত্যাগ করে কাটোয়ার এই তাঁতিদের গ্রামের অনেকেই বেছে নিচ্ছেন অন্য পেশা।

    Malobika Biswas
    Published by:Soumabrata Ghosh
    First published:

    Tags: Purba bardhaman

    পরবর্তী খবর