• Home
  • »
  • News
  • »
  • off-beat
  • »
  • শনির মহাদশা থেকে পরিত্রাণ পেতে যা-যা করবেন--

শনির মহাদশা থেকে পরিত্রাণ পেতে যা-যা করবেন--

File image

File image

শনির মহাদশা থেকে পরিত্রাণ পেতে যা-যা করবেন--

  • Share this:

    #কলকাতা: বৈদিক জ্যোতিষ অনুযায়ী শনি সবচেয়ে অগ্নিময় গ্রহ। সৌরজগতের ধীরতম চলন্ত গ্রহ। কাজেই, ঠান্ডা, অনুর্বর ও শুষ্ক । শনির প্রভাব অন্য কোন গ্রহের চেয়ে তীব্রতর এবং সেইসঙ্গে বেশি সময়সীমার জন্য অনুভূত হয়। কথিত আছে , শুক্রের অধীনে যাঁরা জন্মগ্রহণ করেন, তাঁরা শনির অনুকূলে থাকেন। অন্যদিকে, যারা বুধের অধীনে জন্মান তাঁদের পক্ষে শনি ক্ষতিকারক। জ্যোতিষশাস্ত্রমতে, শনি একটি সাপ, যার মাথাকে রাহু এবং লেজকে কেতু বলা হয়। কেতু কে অগ্রাধিকার দিলে ব্যক্তির উপকার হয়। কাজেই, শনির অবস্থান যে-কোনও ব্যক্তির সাফল্য ও ব্যর্থতা নির্ধারণ করে। কোনও ব্যক্তি শনির মহাদশায় পড়লে, তাঁর জীবনে নেমে আসে ঘন অন্ধকার। স্বাস্থ্যের সমস্যা যেমন ক্যান্সার, চর্মরোগ, পক্ষাঘাত, বাত, গেঁটেবাত, বদহজম, বাতুলতা, পুরুষত্বহীনতা, হাঁপানি, প্রস্রাব, মানসিক অবসাদ এবং চোখ ও কিডনির সমস্যা দেখা দেয়। পরিবারের সদস্যদের সমস্যা, গার্হস্থ্য সঙ্কট ও কার্যক্ষেত্রে একাধিক সমস্যা হতে পারে। পাশাপাশি দেখা দেয় আর্থিক সঙ্কট, মানসিক অস্থিরতা। কাজেই শনির মহাদশার প্রভাব কাটিয়ে ওঠার জন্য রয়েছে কয়েকটি কার্যকর প্রতিকার--

    ১) সোমবার ও শনিবার শিবলিঙ্গে জল ঢালুন। শিবের কাছে প্রার্থনা করলে শনি দেবতা সন্তুষ্ট হন। কাজেই সম্ভব হলে প্রতিদিন বা তা নাহলে শনিবারে কাঁচা দুধের সঙ্গে কালো তিল মিশিয়ে শিবলিঙ্গে নিবেদ করুন।

    ২) মঙ্গলবার ও শনিবার হনুমানের উপাসনা করলে মন শান্ত থাকে। এছাড়াও, প্রতিদিন হনুমান চালিসা পাঠ করুন।

    ৩) দরিদ্র মানুষকে কালো মাষকলাইয়ের ডাল দান করুন এবং কিছুটা ডাল নদীতে ভাসিয়ে দিন। শনিবার, চাল এবং কালো মাষকলাই ডালের খিচুড়ি খান এবং ওই দিন আমিষ খাবার এড়িয়ে চলুন।

    ৪) একটি বাটিতে সর্ষের তেল ঢেলে, সেই তেলে আপনার ছায়া দেখুন এবং শনিবারে তেলটি শনি দেবতাকে নিবেদন করুন। এছাড়া, প্রতি শনিবার রাতে, ঘুমাতে যাওয়ার আগে শরীর ও নখের উপর সর্ষের তেল লাগান।

    ৫) কালো শনি দেবের পছন্দের রং। তাই শনিবার কালো পোশাক পরুন।
    শনি মন্ত্র
    ৬) শনি মন্ত্র হল--"নীলাঞ্জন সমভাষাম রবিপুথোরাম যমরাজাম ছায়া মার্থন্দ সম্ভূতম থম নমামি সানাইশ্যারাম"। শনিবার যত বার সম্ভব এই মন্ত্র উচ্চারণ করুন।১০৮ বার পাঠ করতে পারলে তো খুবই ভাল!

    আরও পড়ুন-আপনি রাতে কী স্বপ্ন দেখেন ? জেনে নিন কোন স্বপ্ন দেখলে কী হয়

    First published: