প্রবল তুষারপাতে সিকিমে আটকে পর্যটকরা! জাঁকিয়ে ঠান্ডা দার্জিলিং-এও

প্রবল তুষারপাতে সিকিমে আটকে পর্যটকরা! জাঁকিয়ে ঠান্ডা দার্জিলিং-এও

তুষারাবৃত ছাঙ্গু এলাকায় আটকে পড়েন অনেকেই। তুষারপাতের তীব্রতা এতটাই যে চারপাশের সবুজ গাছপালাও পরিণত হয়েছে সাদা বরফের চাদরে।

তুষারাবৃত ছাঙ্গু এলাকায় আটকে পড়েন অনেকেই। তুষারপাতের তীব্রতা এতটাই যে চারপাশের সবুজ গাছপালাও পরিণত হয়েছে সাদা বরফের চাদরে।

  • Share this:

#শিলিগুড়ি: কথায় আছে বাঙালির পায়ের তলায় সর্ষে। তাই প্রতি বছরই শীতে বরফ দেখার জন্য বাঙালি ভিড় করে সিকিম, দার্জিলিঙে। বরফ দেখার সেই ইচ্ছে পূরণ করেই প্রবল তুষারপাত হচ্ছে সিকিমে। তবে বরফ দেখতে গিয়ে বিপদেও পড়েছেন অনেকে।

তুষারাবৃত ছাঙ্গু এলাকায় আটকে পড়েন অনেকেই। তুষারপাতের তীব্রতা এতটাই যে চারপাশের সবুজ গাছপালাও পরিণত হয়েছে সাদা বরফের চাদরে। যার ফলে বহু পর্যটকের গাড়ি আটকে পড়েছে এই এলাকায়। উদ্ধারকাজে নামে সেনা বাহিনী। সিকিম প্রশাসনও এগিয় আসে উদ্ধারকার্যে। প্রবল তুষারপাতের জন্যই আজ আর নতুন করে ছাঙ্গু যাওয়ার অনুমতি দেয়নি সিকিম প্রশাসন।

সিকিম প্রশাসন জানিয়েছে, আবহাওয়া আবার অনুকূল হলেই সেখানে যাওয়ার ছাড়পত্র মিলবে। সিকিমে তুষারপাতের রেশ রয়েছে দার্জিলিং ও কালিম্পং-এও। এই এলাকাগুলিতে জাঁকিয়ে ঠান্ডা পড়েছে। সূর্যের দেখা নেই। তাপমাত্রা দিনভর ঘোরাফেরা করে ৭ থেকে ৮ ডিগ্রির আশপাশে। সন্ধ্যের পর তা আরো কিছুটা নামছে।

তবে সেই ঠান্ডা উপভোগ করছেন পর্যটকরা। পারদ নীচের দিকে নামতে থাকলেও দার্জিলিং অঞ্চলে মানুষের ভিড় বহাল থেকেছে। কখনও ম্যাল, আবার কখনও চা বাগান অঞ্চলেই ভিড় দেখা যাচ্ছে মানুষের। বরং এই ঠান্ডাকে তুড়ি মেড়ে তারা দার্জিলিং এও বরফ দেখার আশায় বুক বেঁধেছে।

অন্যদিকে দিনভর মেঘলা আর কুয়াশার চাদরে ঢেকেছে শিলিগুড়ি। সন্ধের পরে প্রবল বৃষ্টিও হয় এখানে। উত্তুরে হাওয়া এবং বৃষ্টির হাত ধরে তাই শিলিগুড়িতেও জাঁকিয়ে ঠান্ডা পড়েছে।

Published by:Swaralipi Dasgupta
First published: