হোম /খবর /উত্তরবঙ্গ /
মাথায় বন্দুক ঠেকিয়ে, লোহার রড দিয়ে বেদম মার, হাসপাতালে তৃণমূল নেতা

মাথায় বন্দুক ঠেকিয়ে, লোহার রড দিয়ে বেদম মার, হাসপাতালে তৃণমূল নেতা

হাসপাতালে আহত তৃণমূল নেতা

হাসপাতালে আহত তৃণমূল নেতা

আক্রান্ত নেতার দাবি, প্রাক্তন ব্লক সভাপতির কাছ থেকে তিনি ২০ হাজার টাকা পান। সেই টাকা চাইতে গেলে তাঁকে বেশ কয়েকবার হুমকি দেওয়া হয়।

  • Share this:

#মালদহ: মালদহের হরিশ্চন্দ্রপুরে তৃণমূলের প্রাক্তন পঞ্চায়েত প্রধানকে আক্রমণের অভিযোগ প্রাক্তন ব্লক সভাপতির অনুগামীদের বিরুদ্ধে। মাথায় আগ্নেয়াস্ত্র ঠেকিয়ে, লোহার রড দিয়ে মারধর করে তৃণমূলের প্রাক্তন পঞ্চায়েত প্রধানকে মেরে মাথা ফাটিয়ে দেওয়া হয়।

আক্রান্ত তৃণমূল নেতা ভর্তি হরিশ্চন্দ্রপুর গ্রামীণ হাসপাতালে। যদিও হামলার অভিযোগ অস্বীকার করেছেন ওই এলাকার তৃণমূলের প্রাক্তন ব্লক সভাপতি। ঘটনা ঘিরে ফের একবার প্রকাশ্যে মালদহের তৃণমূলের গোষ্ঠীদ্বন্দ্ব।

হরিশ্চন্দ্রপুর থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন আক্রান্ত তৃণমূল নেতা। সুযোগ পেয়ে কটাক্ষ করতে ছাড়েনি বিজেপিও। জানা গিয়েছে, হরিশ্চন্দ্রপুর-২ নম্বর ব্লকের দৌলতনগর গ্রাম পঞ্চায়েতের তৃণমূলের প্রাক্তন প্রধান একই সঙ্গে বর্তমান পঞ্চায়েত সদস্য মহঃ নাজিবুর রহমানকে রাতের অন্ধকারে ঘিরে ধরে আগ্নেয়াস্ত্র দেখিয়ে় ও লোহার রড দিয়ে মারধর করা হয়।

আক্রান্তের অভিযোগ, এই হামলার পেছনে রয়েছেন হরিশ্চন্দ্রপুর-২ নম্বর ব্লকের প্রাক্তন তৃণমূল ব্লক সভাপতি হজরত আলি এবং পঞ্চায়েত সমিতির কৃষি কর্মাধ্যক্ষের দলবল। হরিশচন্দ্রপুরের বাংরুয়া গ্রামে উরুষ মেলা দেখে বাড়ি ফিরছিলেন প্রাক্তন পঞ্চায়েত প্রধান। সেই সময় তাঁর ওপর হামলা চালানো হয় বলে অভিযোগ।

আক্রান্ত নেতার দাবি, প্রাক্তন ব্লক সভাপতির কাছ থেকে তিনি ২০ হাজার টাকা পান। সেই টাকা চাইতে গেলে তাঁকে বেশ কয়েকবার হুমকি দেওয়া হয়। এমনকি মিথ্যে মামলাও করা হয়। শেষে গতরাতে তাঁর ওপর হামলা চালানো হয়।

প্রধান পদ চলে যাওয়ার পর তাঁকে দৌলতনগর পঞ্চায়েতের তৃণমূল দলনেতার পদ দেওয়া হবে এই আশ্বাস দিয়ে প্রাক্তন ব্লক সভাপতি ওই টাকা নিয়েছিলেন বলে দাবি আক্রান্তের। হামলার সময় অভিযুক্ত নেতার দুই ছেলেও উপস্থিত ছিলেন বলেও দাবি।

আরও পড়ুন, ৫৮ ঘণ্টা টানা চুম্বন, রেকর্ড করে তাক লাগালেন এই দম্পতি

যদিও গোটা বিষয়টি অস্বীকার করে তৃণমূল প্রাক্তন ব্লক সভাপতি হজরত আলির পাল্টা দাবি, প্রাক্তন প্রধানের কাছে তিনি কোনওরকম টাকা নেননি। দলের পঞ্চায়েত সদস্য নাজিবুর রহমান পদ হারিয়ে তাঁকেই শারীরিক ভাবে আক্রমণ করেছিলেন। এনিয়ে তিনি আগেই মামলা করেছেন বলেও জানান।

আরও পড়ুন,  সুপ্রিম কোর্টে পিছিয়ে গেল DA মামলার শুনানি! আপাতত স্বস্তিতে রাজ্য সরকার...

এদিকে পঞ্চায়েত ভোটের আগে দলের গোষ্ঠীদ্বন্দ্বে অস্বস্তিতে তৃণমূল নেতৃত্ব। দলের অভ্যন্তরে আলোচনার মাধ্যমে সমস্যা মেটানো হবে বলে জানান তৃণমূল ব্লক সভাপতি তবারক হোসেন চৌধুরী। পুলিশ জানিয়েছে, অভিযোগ খতিয়ে দেখা হচ্ছে, অভিযোগ প্রমাণিত হলে আইনানুগ পদক্ষেপ নেওয়া হবে।

Published by:Suvam Mukherjee
First published:

Tags: BJP, Malda, Politics, TMC, তৃণমূল, বিজেপি