corona virus btn
corona virus btn
Loading

নো মাস্ক, নো স্যুইটস! শিলিগুড়িতে এবারে করোনা সতর্কতা মিষ্টির দোকানেও

নো মাস্ক, নো স্যুইটস! শিলিগুড়িতে এবারে করোনা সতর্কতা মিষ্টির দোকানেও

রাজ্যেও লকডাউন মেনে চলার নির্দেশ দিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। নিয়ম ভাঙলেই আইন অনুযায়ী পদক্ষেপ নেওয়ার নির্দেশ দিয়েছে রাজ্য।

  • Share this:

#শিলিগুড়ি: করোনা ক্রমেই ছড়াচ্ছে। বাড়ছে আক্রান্তের সংখ্যাও। আবার চিকিৎসায় সাড়াও দিচ্ছে অনেক করোনা আক্রান্ত রোগী। সুস্থ হয়ে ঘরে ফিরছেন অনেকেই। তবু এখনও আতঙ্ক মুক্ত নয় বিশ্ববাসী। কেননা বিশ্বজুড়েই মৃত্যু মিছিল অব্যাহত। আর এই করোনা প্রতিরোধ সম্ভব একমাত্র লকডাউনের মধ্য দিয়ে।

রাজ্যেও লকডাউন মেনে চলার নির্দেশ দিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। নিয়ম ভাঙলেই আইন অনুযায়ী পদক্ষেপ নেওয়ার নির্দেশ দিয়েছে রাজ্য। আর তাই রাজ্যজুড়েই এখন অতি সক্রিয় ভূমিকায় পুলিশ। বেশ কিছু ক্ষেত্রে আজ থেকে লকডাউনে ছাড় দেওয়া হয়েছে। তবে সামাজিক দূরত্ব মেনে চলার পরামর্শ দেওয়া হয়েছে। স্বাস্থ্য দফতরের নির্দেশিকা মেনেই বাজার, দোকানে যেতে হবে প্রত্যেক ক্রেতাকে। করোনা সতর্কতা মেনেই চলতে হবে।

এবারে করোনা সতর্কতা শিলিগুড়ির এক মিষ্টির দোকানেও! সামনে সাঁটানো হয়েছে পোস্টার। তাতে লেখা রয়েছে "নো মাস্ক, নো স্যুইটস"। অর্থাৎ মাস্ক না পড়লে মিষ্টি নয়! এমনই পোস্টার সাঁটানো হয়েছে দোকানজুড়ে। রাজ্যের নির্দেশ মেনেই নির্দিষ্ট সময়ে খোলা থাকছে মিষ্টির দোকান। পারস্পরিক দূরত্ব মেনেই চলছে রকমারি মিষ্টি, দই কেনাবেচা। সেইসঙ্গে মাস্ক বাধ্যতামূলক করা হয়েছে। নইলে দই বা মিষ্টি কিছুই দেওয়া হবে না ক্রেতাদের হাতে। শিলিগুড়ি চিল্ড্রেন্স পার্কের একটি মিষ্টির দোকানে এমনই পোস্টার পড়েছে।

দোকানের কর্ণধার পঙ্কজ ঘোষ জানান, করোনা সতর্কতা হিসেবেই রাজ্যের নির্দেশেই এই ব্যবস্থা চালু করা হয়েছে। দোকানের মালিক থেকে কর্মী সকলেই সতর্কতা অবলম্বন করেছে। প্রত্যেকের মাথায় মেডিকেটেড ক্যাপ, হ্যাণ্ড গ্লাভস এবং মাস্ক। সেইসঙ্গে হ্যাণ্ড স্যানিটাইজার ব্যবহারও বাধ্যতামূলক করা হয়েছে। দোকানে অবশ্য দাঁড়িয়ে মিষ্টি খাওয়া আপাতত বন্ধ রাখা হয়েছে। করোনা সতর্কতা হিসেবেই এই ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে। এমনকী মাস্ক পড়ে না আসায় অনেক ক্রেতাকেই ফিরিয়ে দেওয়া হয়েছে আজও। তবে দোকানের এহেন উদ্যোগকে সাধুবাদ জানিয়েছেন অধিকাংশ ক্রেতা। তাদের কথায়, এই সময়ে এই ধরনের উদ্যোগ প্রশংসনীয়।

First published: April 25, 2020, 3:52 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर