• Home
  • »
  • News
  • »
  • north-bengal
  • »
  • Son Killed Mother: বাটাম দিয়ে বৃদ্ধা মাকে মার, ছেলের হাতে মা খুন

Son Killed Mother: বাটাম দিয়ে বৃদ্ধা মাকে মার, ছেলের হাতে মা খুন

নিজের মাকে খুন করে  (Son Killed Mother)।মৃত বৃদ্ধার নাম ধানকি টিজ্ঞা লাকড়া(৭০)। বৃদ্ধার ছেলে কিরন লাকড়াকে গ্রেফতার করেছে মেটেলি থানার পুলিশ (Police)।

নিজের মাকে খুন করে (Son Killed Mother)।মৃত বৃদ্ধার নাম ধানকি টিজ্ঞা লাকড়া(৭০)। বৃদ্ধার ছেলে কিরন লাকড়াকে গ্রেফতার করেছে মেটেলি থানার পুলিশ (Police)।

নিজের মাকে খুন করে (Son Killed Mother)।মৃত বৃদ্ধার নাম ধানকি টিজ্ঞা লাকড়া(৭০)। বৃদ্ধার ছেলে কিরন লাকড়াকে গ্রেফতার করেছে মেটেলি থানার পুলিশ (Police)।

  • Share this:

    #জলপাইগুড়ি: ছেলের হাতে মা খুন (Son Killed Mother)। ঘটনাটি ঘটেছে মালবাজার  (Malbazar)  মহকুমার চালসাতে। জলপাইগুড়ি জেলা তৃণমূল কংগ্রেসের শ্রমিক সংগঠনের (INTTUC)  জেলা সভাপতির ভাই, নিজের মাকে খুন করে  (Son Killed Mother)।মৃত বৃদ্ধার নাম ধানকি টিজ্ঞা লাকড়া(৭০)। বৃদ্ধার ছেলে কিরন লাকড়াকে গ্রেফতার করেছে মেটেলি থানার পুলিশ (Police)।

    এদিকে জলপাইগুড়ি জেলা তৃণমূল কংগ্রেসের শ্রমিক সংগঠনের (AITUC) জেলা সভাপতি  রাজেশ লাকড়া ফোনে জানান ,গতকাল রাতে ভাই মাকে খুন করেছে।বাটাম দিয়ে মা কে খুন করা হয়েছে (Son Killed Mother)। মানসিক ভারসাম্যহীন ছিল ভাই। তাঁর দীর্ঘদিন ধরেই চিকিৎসা চলছিল। জলপাইগুড়ি জেলা তৃণমূল কংগ্রেসের INTTUC এর জেলা সভাপতি রাজেশ লাকড়ার ভাই কিরন লাকড়া তার মাকে খুন করার ঘটনায় এলাকায় চাঞ্চল্য এর সৃষ্টি হয়েছে।

    আরও পড়ুন - Shreyas Iyer Sister: রূপের তুবড়ি এই সুন্দরী একেবারে ঘোল খাওয়াচ্ছেন, চিনুন শ্রেয়স আইয়েরর বোনকে

    মেটেলি থানার পুলিশ (Police) সুত্রে জানা গেছে বাড়ির মেঝেই রক্তাক্ত অবস্থায় ধানকি টিজ্ঞা লাকড়াকে পড়ে থাকতে দেখা গেছে। বাটাম দিয়ে আঘাত করে কিরন লাকড়া ধানকি টিজ্ঞা লাকড়াকে মেরেছে।

    আরও পড়ুন - Lifestyle: পার্টনারের শরীরের কী পায়ের পাতাই সবচেয়ে পছন্দ, যৌনমিলনে সেটা আবার বাধাও!

    জলপাইগুড়ি জেলা তৃণমূল কংগ্রেসের (INTTUC) সভাপতি মহুয়া গোপ বলেন শ্রমিক সংগঠনের জেলা সভাপতি রাজেশ লাকড়ার মাকে তার ভাই খুন করেছে।অত্যন্ত দুঃখজনক ঘটনা।রাজেশ লাকড়াই ভাইকে পুলিশের হাতে তুলে দিয়েছে অভিযুক্ত ভাইকে গ্রেফতার করেছে মেটেলি থানার পুলিশ।আমরা শোকাহত।

    Published by:Debalina Datta
    First published: