লকডাউন বিধি উপেক্ষা করে জমিয়ে জুয়ার আসর, পুলিশের জালে ৪ ব্যবসায়ী, উদ্ধার নগদ টাকা

শুক্রবার মাঝরাতে খবর পেয়ে অভিযান চালায় শিলিগুড়ি পুলিশ কমিশনারেটের ভক্তিনগর থানার সাদা পোশাকের পুলিশ।

শুক্রবার মাঝরাতে খবর পেয়ে অভিযান চালায় শিলিগুড়ি পুলিশ কমিশনারেটের ভক্তিনগর থানার সাদা পোশাকের পুলিশ।

  • Share this:

#শিলিগুড়়ি: লকডাউন বিধি উপেক্ষা করে এক হোটেলে জমিয়ে চলছিল জুয়ার আসর। গোপন সূত্রে খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে হানা দেয় ভক্তিনগর থানার পুলিশ। জুয়ার আসর থেকে গ্রেফতার চার জুয়ারি। উদ্ধার করা হয় নগদ টাকা সহ জুয়ার সামগ্রী। এ ঘটনায় চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে শহরে। পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, শিলিগুড়ির সেবক রোডের একটি বিলাসবহুল হোটেলে লকডাউন বিধিকে বুড়ো আঙুল দেখিয়ে বসেছিল জুয়ার আসর।

শুক্রবার মাঝরাতে খবর পেয়ে অভিযান চালায় শিলিগুড়ি পুলিশ কমিশনারেটের ভক্তিনগর থানার সাদা পোশাকের পুলিশ। আসর থেকে গ্রেফতার করা হয় চারজনকে। ধৃত চার জনেই শহরের নামী ব্যবসায়ী বলে পুলিশ জানিয়েছে। জুয়ার আসর থেকে উদ্ধার করা হয়েছে নিগদ ৪ লক্ষ ২৬ টাকা ও জুয়া খেলার সামগ্রী। ধৃতদের শনিবার জলপাইগুড়ি আদালতে তোলা হয়। শিলিগুড়ি পুলিশ কমিশনারেটের এসিপি শুভেন্দ্র কুমার বলেন, "স্বাস্থ্যবিধি উপেক্ষা করে হোটেলে জুয়ার আসর চলছিল। চারজনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। তদন্ত চলছে।" প্রসঙ্গত এর আগে এই থানা এলাকার অন্তর্গত এক হোটেলে জমিয়ে মদের আসর বসেছিল। পাঁচ জন মহিলা সহ ১৪ জন গ্রেফতার হয়েছিল৷

অন্যদিকে ডাকাতি করার আগেই শিলিগুড়ি থানার পুলিশের অভিযানে গ্রেফতার হল ৬ সশস্ত্র দুষ্কৃতী। শুক্রবার গভীর রাতে শিলিগুড়ির জলপাইমোড় এলাকার কাছ থেকে ধারালো অস্ত্র সহ ৬ দুষ্কৃতীকে গ্রেফতার করা হয়। করোনা মোকাবেলায় রাজ্য জুড়ে চলছে  কড়া বিধি নিষেধ। চলছে নাইট কার্ফু। আর এই সুযোগকে কাজে লাগিয়ে শহরে ডাকাতির জন্য জড়ো হয়েছিল দুষ্কৃতীরা। গোপন সূত্রে খবর পেয়ে শিলিগুড়ি থানার সাদা পোশাকের পুলিশ বিশেষ অভিযান চালায় জলপাইমোড় সংলগ্ন এলাকায়  ৬ দুষ্কৃতীকে গ্রেফতার করে। ধৃতদের মধ্যে একজন কোচবিহারের বাসিন্দা এবং বাকি পাঁচ জন শিলিগুড়ির। ধৃতদের কাছ থেকে বেশকিছু ধারালো অস্ত্র উদ্ধার করেছে পুলিশ। ধৃতদের প্রাথমিক জেরা করে পুলিশ  জানতে পেরেছে, মিলন পল্লী এলাকাতে বড় ধরনের ডাকাতির ছক কষেছিল তারা। পুলিশ খবর পেতেই তা বানচাল হয়ে যায়। ধৃতদের জেরা করে এই চক্রের অন্য কেউ সঙ্গে জড়িত কীনা তা খতিয়ে দেখছে তদন্তকারীরা।

Published by:Pooja Basu
First published: