করোনা মোকাবিলায় ঐক্যবদ্ধ শিলিগুড়ি, বিনামূল্যে অক্সিজেন-সেফ হোম পরিষেবায় বদ্ধপরিকর

করোনা মোকাবিলায় ঐক্যবদ্ধ শিলিগুড়ি।

কোভিডের (Coronavirus) মোকাবিলায় ঐক্যবদ্ধ শিলিগুড়ি (Siliguri)। শহরের একাধিক ক্লাব, সংগঠন কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে আজ রাস্তায়।

  • Share this:

#শিলিগুড়িঃ কোভিডের (Coronavirus) মোকাবিলায় ঐক্যবদ্ধ শিলিগুড়ি (Siliguri)। শহরের একাধিক ক্লাব, সংগঠন কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে আজ রাস্তায়। আক্রান্তদের (Covid Positive) পাশে, স্যানিটাইজেশনে ব্যস্ত সকলে। আজ এই এলাকা তো কাল অন্য এলাকায়। নিরলসভাবে কাজ করে চলেছে। কেউ আবার আক্রান্তদের বাড়ি পৌঁছে দিচ্ছেন প্রয়োজনীয় ওষুধ, বাজার। এগিয়ে এসছে শিলিগুড়ি ইস্টবেঙ্গল ফ্যান ক্লাবও। শিলিগুড়ি থানা-সহ শহরের বিভিন্ন ট্র‍্যাফিক পুলিশের অফিস স্যানিটাইজ করছে তারা। অনেকেই হাজির অক্সিজেন সিলিণ্ডার নিয়ে।

রবিবার থেকে বিনামূল্যে অক্সিজেন পরিষেবা (Free Oxygen Service) চালু করল শহরেরই ক্লাব গ্লোব টোটার্স স্পোর্টিং। প্রথম দফায় ১৫টি অক্সিজেন সিলিন্ডার নিয়ে হাজির তারা। চাহিদা বাড়লে বাড়বে সিলিন্ডারের সংখ্যা, জানিয়েছে ক্লাব কর্তারা। তবে সিলিন্ডার পেতে সঙ্গে নিয়ে যেতে হবে কোভিড পজিটিভ রিপোর্ট। চিকিৎসকের প্রেস্ক্রিপশন এবং আধার কার্ড। সিলিন্ডার নেওয়ার সময়ে সিকিউরিটি মানি হিসেবে ৫ হাজার টাকা জমা করতে হবে। ফেরতের সময়ে টাকা ফিরিয়ে দেওয়া হবে। আজ এই পরিষেবার উদ্বোধন করেন পুর প্রশাসক গৌতম দেব। শহরবাসীর একটা বড় অংশ উপকৃত হবে বলে ধারনা।

অন্যদিকে, উত্তরবঙ্গ মেডিক্যাল কলেজের উলটো দিকে পথ চলা শুরু করল ৩০ বেডের সেফ হোম (Coid 19 Safe Home)। একাধিক সংগঠনের যৌথ প্রয়াসে চালু হল। যাদের বাড়িতে চিকিৎসার সুবিধে নেই, তারা এখানে থাকতে পারবেন। প্রয়োজনীয় চিকিৎসা পরিষেবা মিলবে, হোমের সূচনা করেন গৌতম দেব।

উল্লেখ্য, কোভিডের সময়ে রক্ত সংকট কাটাতে উদ্যোগী কলেজ পাড়ার ডিফেন্স কমিটি। সংগঠনের উদ্যোগে আজ রক্তদান শিবিরের (Blood Donation) আয়োজন করা হয়। করোনাকালে ভয় দূরে সরিয়ে রেখে রক্ত দিতে এগিয়ে আসেন মহিলারাও। ১০ জনের বেশী বিভিন্ন বয়সী মহিলা আজ রক্ত দান করেন। তরুণ প্রজন্মের উপস্থিতি ছিল লক্ষ্যণীয়। উদ্যোক্তাদের দাবি, কোভিড ছাড়াও অন্য রোগে আক্রান্তদের এই সময়ে রক্তের প্রয়োজন হয়। কিন্তু সরকারি হাসপাতালের ব্লাড ব্যাঙ্কের ভাঁড়ার শূণ্য। তাই এই উদ্যোগ এবং এই সময়ে ভাল সংখ্যায় রক্তদাতার ভিড় আগামীতে উৎসাহ দেবে।

Published by:Shubhagata Dey
First published: