উত্তরবঙ্গ

corona virus btn
corona virus btn
Loading

হুহু করে বাড়ছে কোভিড ! বোধনের আগে শিলিগুড়ি পুর এলাকায় একদিনে আক্রান্ত ১৪৬ জন !

হুহু করে বাড়ছে কোভিড ! বোধনের আগে শিলিগুড়ি পুর এলাকায় একদিনে আক্রান্ত ১৪৬ জন !

বাজারে ভিড়ের ক্ষেত্রে ছাড় কেন? একদিনে পুর এলাকায় ১০০ ছুঁই ছুঁই সংক্রমণ।

  • Share this:

#শিলিগুড়ি: চতুর্থীতেই শিলিগুড়ি পুর এলাকায় আক্রান্ত ১০০ ছুঁই ছুঁই! এখনও তো পুজো বাকি আছে। মণ্ডপে ভিড় জমানো যাবে না। হাইকোর্টের নির্দেশ। পালটা বেশ কয়েকটি বড় পুজো কমিটিও হাইকোর্টের দ্বারস্থ হয়েছে। মণ্ডপে না হয় ভিড় করা যাবে না, ঠিক আছে। বাজারে? আজও শিলিগুড়ির বিধান মার্কেট, শেঠ শ্রীলাল মার্কেটে গিজ গিজ করছে কালো মাথা। রাত বাড়তে আরও ভিড়। নতুন জামাকাপড়, জুতো, শাড়ি কেনার ধুম লেগেছে! কোথায় দূরত্ব বিধি? কোথায় সবার মুখে মাস্ক? না, মানছে না এক শ্রেণীর মানুষ। আর তাতেই লাফিয়ে লাফিয়ে চড়ছে সংক্রমণ। পুজোয় ভিড় করা নিয়ে যখন সোচ্চার অনেকে। বাজারে ভিড় করার ক্ষেত্রে নয় কেন? প্রশ্ন শহরের একাধিক পেশার মানুষজনের।

তাদের কথায়, কেনাকাটা হোক। কেন মানা হচ্ছে না দূরত্ব বিধি? একজনকে ঠেলে অন্য জনের কেনাকাটার হিড়িক। কেন প্রশাসন এক্ষেত্রে উদাসীন? অষ্টমীর অঞ্জলী থেকে সিঁদুর খেলা, কলা বউ স্নান থেকে সন্ধি পুজোর ক্ষেত্রে কোভিড বিধি মানার সিদ্ধান্ত নিয়েছে পুজো উদ্যোক্তারা। তাহলে বাজারে ভিড়ের ক্ষেত্রে ছাড় কেন? একদিনে পুর এলাকায় ১০০ ছুঁই ছুঁই সংক্রমণ। উৎসব শুরুর মুখে চিন্তা বাড়লো বই কমেনি। গত ২৪ ঘন্টায় শিলিগুড়ি পুরসভার ৪৭টি ওয়ার্ড এবং দার্জিলিংয়ের পাহাড় ও সমতলের গ্রামীন এলাকা মিলিয়ে আক্রান্তের সংখ্যা ১৪৬ জন! এর মধ্যে পুর এলাকায় ৯৪ জন!

সাম্প্রতিককালে নয়া রেকর্ড! মহকুমার গ্রামীন চার ব্লকে নতুন করে আক্রান্ত ৩৭ জন। যার মধ্যে মাটিগাড়ায় ১৯ জন, ফাঁসিদেওয়ায় ৯ জন, নকশালবাড়িতে ৭ জন এবং খড়িবাড়িতে আক্রান্ত ২ জন। পাহাড়ে আক্রান্তের সংখ্যা ১৫ জন। কার্শিয়ংয়ের পুরসভা ও গ্রামীন এলাকা মিলিয়ে ৬ জন, বিজনবাড়ি ও সুখিয়াপোখরিতে ৩ জন করে, মিরিকে ২ জন এবং তাকদায় আক্রান্ত ১ জন। সবমিলিয়ে আক্রান্তের উর্ধমুখী গ্রাফ দেখে উদ্বেগ বাড়ছে জেলাজুড়ে। একেই বেডের সংখ্যা অপ্রতুল। সামনে কঠিন সময় আসছে। আর তাই কোভিডের উত্তরবঙ্গের ভারপ্রাপ্ত স্বাস্থ্য কর্তা সুশান্ত রায় বার বার বলছেন, পুজো আবারও আসবে। স্বাস্থ্য বিধি মেনে চলতে হবে। এবার পুজো না হয় নিজের পাড়াতেই কাটান। সব্বাই নিজের নিজের পাড়ায় পুজো নিয়ে মেতে উঠলে কিছুটা হলেও গ্রাফ কমার সম্ভাবনা রয়েছে।

PARTHA PRATIM SARKAR 

Published by: Piya Banerjee
First published: October 20, 2020, 11:34 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर