• Home
  • »
  • News
  • »
  • north-bengal
  • »
  • মাধ্যমিক পরীক্ষার মধ্যেই জোরে মাইক বাজিয়ে চলল চটুল নাচের আসর

মাধ্যমিক পরীক্ষার মধ্যেই জোরে মাইক বাজিয়ে চলল চটুল নাচের আসর

ডিজের আওয়াজে সাধারন মানুষ থেকে মাধ্যমিক ছাত্রছাত্রীরা চরম সমস্যায় পড়েন।

ডিজের আওয়াজে সাধারন মানুষ থেকে মাধ্যমিক ছাত্রছাত্রীরা চরম সমস্যায় পড়েন।

ডিজের আওয়াজে সাধারন মানুষ থেকে মাধ্যমিক ছাত্রছাত্রীরা চরম সমস্যায় পড়েন।

  • Share this:
#রায়গঞ্জ: রায়গঞ্জ থানার মারাইকুড়া গ্রাম পঞ্চায়েতের ভিটিকাটিহার গ্রামে গত দুই দিন যাবদ মাধ্যমিক পরীক্ষার মধ্যে সারা রাত্রি ডি জে বাজিয়ে চটুল নাচের আসর চলল। ডিজের আওয়াজে সাধারন মানুষ থেকে মাধ্যমিক ছাত্রছাত্রীরা চরম সমস্যায় পড়েন।অভিযোগ পুলিশের ১০০ নম্বরে ডায়াল করেও পুলিশের পক্ষ থেকে কোন রকম পদক্ষেপ নেওয়া হয়নি। রায়গঞ্জ পঞ্চায়েত সমিতির সহ সভাপতি মানস ঘোষ ঘটনার তীব্র নিন্দা করেন। যারা এর আসর বসিয়েছিল তাদের বিরুদ্ধে আইনগত পদক্ষেপ নেবার জন্য রায়গঞ্জ থানার আই সি কে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে বলে তিনি জানিয়েছেন। গত ১৯ / ২০ ফেব্রুয়ারি রায়গঞ্জ থানার ভিটিকাটিহার গ্রামে স্থানীয় কিছু মানুষ এই চটুল নাচের আসর বসিয়েছিল।টিকিটের দাম করা হয়েছিল ৪০ টাকা।সারা রাত ধরে চলে এই চটুল নাচ।মাইকের আওয়াজে নাধ্যমিক পরীক্ষার্থিদের পড়াশুনা শিকেয় ওঠে।শিক্ষাদরদ্রি কিছু মানুষ পুলিশের ১০০ ডায়ালে ফোন করে অভিযোগ জানালেও কাজের কাজ কিছুই হয় নি। পুলিশের পক্ষ থেকে তাদের জানানো হয়েছে,ভিটিকাটিহার গ্রাম রায়গঞ্জ থানা থেকে বহু দূরে।পুলিশের সেখানে যেতে পারছে না।ভিলেজ পুলিশকে সেখানে পাঠানোর আশ্বাষ দিলেও ভিলেজ পুলিশ সেখানে যায় নি।আজ ভোরে সেই আসর শেষ হয়।আসর শেষ হবার পরই মঞ্চ ভেঙে ফেলা হয়।উদ্যোক্তাদের কারও নাগাল পাওয়া যায় নি।রায়গঞ্জ পঞ্চায়েত সমিতির সহ সভাপতি মানস ঘোষ জানিয়েছেন,এই ঘটনা কোনভাবেই মানা যাবে না।এলাকায় সংস্কৃতি নষ্ট হচ্ছে।উদ্যোক্তদের বিরুদ্ধে আইনগত পদক্ষেপ নেবার জন্য পুলিশকে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।পুলিশ সুপার  সুমিত কুমার জানিয়েছেন,তাদের কাছে এধরনের কোন অভিযোগ নেই।কেউ ১০০ নম্বর ডায়ালে ফোন করলে থানা ফাঁড়িতে কেন অভিযোগ জানায় নি প্রশ্ন পুলিশ সুপারের। Uttam Paul
Published by:Elina Datta
First published: