• Home
  • »
  • News
  • »
  • north-bengal
  • »
  • Latest Bengali News: প্রেমের বিয়ের কী করুণ পরিণতি, প্রিয় স্বামীর হাতেই সব শেষ সরস্বতীর!

Latest Bengali News: প্রেমের বিয়ের কী করুণ পরিণতি, প্রিয় স্বামীর হাতেই সব শেষ সরস্বতীর!

প্রতীকী ছবি

প্রতীকী ছবি

Latest Bengali News: গতকাল, রবিবার তা চরমে পৌঁছায়। এরপরই স্ত্রীর গলায় ফাঁস লাগিয়ে দেয় স্বামী।

  • Share this:

    #নকশালবাড়ি: স্ত্রীকে গলায় ফাঁস লাগিয়ে মারার ঘটনা ঘটল নকশালবাড়িতে। গ্রেফতার স্বামী। নকশালবাড়ির দক্ষিণ রথখোলার গত ৫বছর আগে প্রেম করে শ‍্যামল রায়ের সঙ্গে বিবাহ হয় সরস্বতীর রায়ের। অভিযোগ, বিয়ের পর থেকেই শারীরিক অত‍্যাচার ও মারধর করা হতে সরস্বতীকে। কিন্তু গতকাল, রবিবার তা চরমে পৌঁছায়। এরপরই স্ত্রীর গলায় ফাঁস লাগিয়ে দেয় স্বামী।

    ঘটনাস্থলেই মৃত্যু হয় স্ত্রী সরস্বতীর। পরে স্বামীকে গ্রেফতার করা হয়। ঘটনায় উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়লে শ্যামল রায়ের পরিবারের সদস্যদের আটক করে নকশালবাড়ি পুলিশ। সোমবার মৃতদেহ ময়নাতদন্তের জন্য উত্তরবঙ্গ মেডিক্যাল কলেজ ও হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। এদিন নকশালবাড়ি হাসপাতালে মৃতদেহ শনাক্ত করেন হাসপাতালে বিডিও অরিন্দম মণ্ডল। গোটা ঘটনায় কঠোর শাস্তির দাবি মেয়ের পরিবারের সদস্যদের।

    আরও পড়ুন: প্রথমে মুড়িতে মাদক, পরে দু'চোখ নষ্ট, তারপর.... ভাঙড়ে প্রেমিকের হাড়হিম নৃশংসতা

    অপরদিকে, গরুপাচার করতে গিয়ে সীমান্তে বিএসএফ এর তাড়ায় পালাতে গিয়ে আহত হলেন এক দুষ্কৃতী৷ আহত নবিউল ইসলাম মেখলিগঞ্জ হাসপাতালে ভর্তি। মেখলিগঞ্জের জামালদহের ঘটনা। মেখলিগঞ্জের উছলপুকুরিতে শনিবার রাতে গরু উদ্ধার করতে গিয়ে আহত হন ১২ পুলিশ। সেই ঘটনার পরেও সীমান্ত গরু পাচার যে চলছেই তা স্পষ্ট রবিবার রাতে এই ঘটনায়৷ জানা গেছে নবিউল ইসলাম নামে এই অভিযুক্ত জামালদহ সীমান্তে গিয়ে গরুপাচারের জন্য। রতনপুর বিওপির বিএসএফ রাতে সীমান্ত পাহাড়ার দায়িত্বে ছিলেন।

    আরও পড়ুন: নাকা চেকিংয়ে থামল পরপর দুটি গাড়ি, ভেতর থেকে যা উদ্ধার হল, পুলিশের চক্ষু চড়কগাছ

    এই দুষ্কৃতী গরু পাচারের উদ্দেশ্যে সীমান্ত এলাকায় গিয়েছিলেন৷ বিএসএফ তা বুঝতে পেরে পিছু ধাওয়া করলে গরু ফেলে দৌড়ে পালান এই দুষ্কৃতী। পালাতে গিয়ে মাথায় গুরুতর আঘাত পেয়েছেন। পরে মেখলিগঞ্জ থানার পুলিশের হাতে ধরা পরে যায় সে৷ অভিযুক্ত মেখলিগঞ্জ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আছেন।

    Published by:Suman Biswas
    First published: