পাশের বাড়ির মেয়েকে ফাঁকা বাড়িতে একা পেয়ে, ঝাঁপিয়ে পড়ল যুবক! ধর্ষণের পর খুনের চেষ্টা, অভিযোগ...

পাশের বাড়ির মেয়েকে ফাঁকা বাড়িতে একা পেয়ে, ঝাঁপিয়ে পড়ল যুবক! ধর্ষণের পর খুনের চেষ্টা, অভিযোগ...
প্রতীকী ছবি

কিশোরীর বাবা ঘটনার প্রতিবাদ জানাতে অভিযুক্ত যুবকের বাড়িতে গেলে যুবকের সঙ্গীরা তাঁকে প্রাণনাশের হুমকি দেয় বলেও অভিযোগ। ঘটনার পর অভিযুক্ত যুবকরা সেখান থেকে পালিয়ে যায়।

  • Share this:

#চোপড়া: ফাঁকা বাড়িতে একা পেয়ে নবম শ্রেনীর ছাত্রীকে ধর্ষণ করে খুনের চেষ্টার অভিযোগ প্রতিবেশী এক যুবকের বিরুদ্ধে। অভিযুক্ত যুবক পলাতক। পুলিশ ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে। এলাকায় ব্যপক চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে। জানা গিয়েছে ,গতকাল, মঙ্গলবার, দুপুরে উত্তর দিনাজপুর জেলার চোপড়া থানার হপ্তিয়াগছ গ্রামের এক কিশোরীকে বাড়িতে এক পেয়ে প্রতিবেশী এক যুবক ধর্ষণ করে বলে অভিযোগ। ধর্ষণের পর অভিযুক্ত যুবক কিশোরীকে বিষ খাইয়ে খুনের চেষ্টা করে, এমনও অভিযোগ উঠেছে। কিশোরীর বাবা ঘটনার প্রতিবাদ জানাতে অভিযুক্ত যুবকের বাড়িতে গেলে যুবকের সঙ্গীরা তাঁকে প্রাণনাশের হুমকি দেয় বলেও অভিযোগ। ঘটনার পর অভিযুক্ত যুবকরা সেখান থেকে পালিয়ে যায়।

ঘটনার কথা কিশোরী তার আত্মীয়দের জানায়। কিশোরীর বাবা সেই সময় স্বাস্থ্য সাথী কার্ড করতে বাড়ির বাইরে ছিলেন। কিশোরীর আত্মীয় ঘটনাটি তাঁর বাবাকে জানানোর পাশাপাশি চোপড়া দলুয়া স্বাস্থ্যকেন্দ্রে চিকিৎসার জন্য নিয়ে আসেন। অবস্থার অবনতি হওয়ায় কিশোরীকে উত্তরবঙ্গ মেডিক্যাল কলেজে স্থানান্তর করা হয়। শিলিগুড়িতে স্থানান্তরের পর কিশোরীর বাবা চোপড়া থানার তিনজনের বিরুদ্ধে লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন। নির্যাতিতত কিশোরীর বাবা জানিয়েছেন, বাড়িতে মেয়েকে একা পেয়েই প্রতিবেশী যুবক ধর্ষণ করেছে। ঘটনার প্রতিবাদ জানাতে যুবকের বাড়িতে গেলে তাকে আগ্নেয়াস্ত্র দেখিয়ে তার বন্ধুরা খুনের হুমকি দেয়।ঘটনার সময় তিনি স্বাস্থ্য সাথী কার্ড আনতে তিনি পঞ্চায়েত অফিসে এসেছিলেন। তার ভাই ঘটনার কথা জানান। পুলিশের কাছে তিনজনের বিরুদ্ধে লিখিত অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে।

আরও পড়ুন Execution of Shabnam: যৌবনের উদ্দাম প্রেম থেকে ফাঁসির সাজা! স্বাধীন ভারতে প্রথম মহিলার ফাঁসির প্রস্তুতি


কিশোরীর বাবার অভিযোগ, পুলিশের কাছে অভিযোগ জানাতে গেলে পুলিশ প্রথমে অভিযোগ গ্রহণ করতে রাজি হননি।পরে অবশ্য পুলিশ অভিযোগ জমা নেয়। যারা মেয়ের উপর এই জঘন্য কাজ করল তাদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি করেছেন। জেলার পুলিশ সুপার শচীন মক্কার জানান, লিখিত অভিযোগের ভিত্তিতে পুলিশ তদন্ত শুরু করেছে। অভিযুক্তদের বাড়িতে পুলিশ তল্লাশি চালিয়েছে। যারা এই জঘন্য কাজে যুক্ত তারা কেউ ছাড় পাবে না বলে পুলিশ সুপার আশ্বস্ত করেছেন। এই ঘটনার এলাকায় ব্যপক চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে।

Published by:Pooja Basu
First published: