শতাব্দী প্রাচীন বিষ্ণুমূর্তি উদ্ধার, লক্ষ টাকার ‘ঐতিহাসিক’ মূর্তিকে নিয়ে গ্রামবাসীদের মধ্যে উত্তেজনা তুঙ্গে

শতাব্দী প্রাচীন বিষ্ণুমূর্তি উদ্ধার, লক্ষ টাকার ‘ঐতিহাসিক’ মূর্তিকে নিয়ে গ্রামবাসীদের মধ্যে উত্তেজনা তুঙ্গে

মূর্তিটি একাদশ কিংবা দ্বাদশ শতকের

  • Share this:

#কালিয়াগঞ্জ: পুকুর কাটার সময় কষ্টি পাথরের মূর্ত্তি উদ্ধার হল।এই ঘটনায় এলাকায় ব্যপক চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়।গ্রামবাসিরা মূর্ত্তিটিকে মন্দিরে রেখে পুজোপাঠ শুরু করেছে।মূর্তিটিকে দেখতে দূরদূরান্তের মানুষ সেখানে ভিড় জমিয়েছেন।ঘটনাটি কালিয়াগঞ্জ থানার ররুনা গ্রাম পঞ্চায়েতের দিলালপুর গ্রামে।কালিয়াগঞ্জ থানার পুলিশ জানিয়েছেন,মূর্তি উদ্ধারের ঘটনা তারা জেনেছেন।গ্রামবাসীরা মূর্তিটিকে পুজা অর্চনা শুরু করেছে। ইতিহাস বিভাগের প্রাক্তন শিক্ষক বৃন্দাবন ঘোষ জানিয়েছেন,মূর্তিটি একাদশ কিংবা দ্বাদশ শতকের।

কালিয়াগঞ্জ থানার দিলালপুর গ্রামের অশ্বিনী দেবশর্মা নামে এক ব্যাক্তি পুকুর কাটার জন্য শ্রমিকদের কাজে লাগিয়েছে।গতকাল বিকাল নাগাদ মাটি কাটার সময় আচমকা মূর্তিটি কোদালে উঠে আসে। শ্রমিকরা মূর্তিটিকে দেখে কিছুটা হতচকিত হয়ে পড়েন।গর্ত থেকে মূর্তিকে উপরে তুলে পরিষ্কার করে দেখা যায় কষ্টি পাথরের বিষ্ণুমূর্তি।যার আনুমানিক মূল্য কয়েক লক্ষ টাকা। এই খবর ছড়িয়ে পড়তেই এলাকায় চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়। খবর দ্রুত এলাকায় ছড়িয়ে পড়ে।আশেপাশের অসংখ্য মানুষ সেখানে ভিড় জমায়।

আরও পড়ুন - #RanjiTrophyFinal: প্রথম ইনিংসে সৌরাষ্ট্র ৪২৫ রানে অলআউট, বড় চ্যালেঞ্জ অনুষ্টুপ-মনোজদের

অশ্বিনীবাবু মূর্ত্তিটি তুলে নিয়ে মন্দিরে স্থাপন করেন। শুরু হয় গ্রামবাসীদের পুজাঅর্চনা।মূর্তি উদ্ধারের খবর কালিয়াগঞ্জ পুলিশের কাছে পৌছালেও মূর্তি উদ্ধারে তেমন কোন পদক্ষেপ গ্রহন করে নি।কালিয়াগঞ্জ থানার আই সি জানিয়েছেন,গ্রামবাসীরা মূর্তিটিকে নিয়ে মন্দিরে স্থাপন করে পূজা শুরু করেছে।গ্রামবাসীদের দাবিকে গুরুত্ব দেওয়া হবে।জমির মালিক অশ্বিনীবাবু জানিয়েছেন,মূর্তিটিকে তারা পূজা করবেন।পুলিশ মূর্তিটি নিতে চাইলে সেটি দেওয়া হবে না।ইতিহাদের প্রাক্তন শিক্ষক বৃন্দাবন ঘোষ জানান,মাটির তলায় এধরনের প্রচুর নির্দর্শন পাওয়া যাচ্ছে।এই মূর্তি   উদ্ধারের সঙ্গে সঙ্গে এখানে আর কোন নির্দশন আছে কিনা তার হদিশ করা উচিত বলে তিনি মনে করেন।

Uttam Paul

First published: March 11, 2020, 11:10 AM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर