corona virus btn
corona virus btn
Loading

সংখ্যা বেড়েই চলেছে, ফের করোনা আক্রান্তের হদিশ মাটিগাড়ায়, সংক্রমিত হলেন অসম ফেরত ১

সংখ্যা বেড়েই চলেছে, ফের করোনা আক্রান্তের হদিশ মাটিগাড়ায়, সংক্রমিত হলেন অসম ফেরত ১

তাঁর পরিবারের লোকেদেরও আইশোলেশন ওয়ার্ডে রাখা হয়েছে।

  • Share this:

#শিলিগুড়ি: শহরের পর এবারে মাটিগাড়া। নতুন করে এক করোনা আক্রান্তের খোঁজ মেলায় সচেতন ও সতর্ক জেলা প্রশাসন। আক্রান্ত ব্যক্তির বাড়ি মাটিগাড়া ব্লকের পতিরাম জোত এলাকায়। আজ সকালেই ঘটনাস্থলে যান মাটিগাড়ার বিধায়ক রুনু রায়। পৌঁছন মাটিগাড়া থানার ওসি সুবল রায়ও। আক্রান্ত ব্যক্তির চারপাশ ঘিরে ফেলা হয়। এগিয়ে আসেন স্থানীয়রাও। তারাই উদ্যোগী হয়ে এলাকা বাঁশের ব্যারিকেডে ঘিরে ফেলা হয়। যাতে করে আক্রান্তের সংখ্যা না বাড়ে। অহেতুক বহিরাগতদের প্রবেশ আটকাতেই এই উদ্যোগ নিয়েছেন এলাকার বাসিন্দারা।

আজ সকালে দমকল কর্মীরা দ্রুত আক্রান্তের বাড়ি ও চারপাশ স্যানিটাইজড করে। গতকাল রাতেই আক্রান্ত ব্যক্তিকে কোভিড স্পেশাল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। তাঁর পরিবারের লোকেদেরও আইশোলেশন ওয়ার্ডে রাখা হয়েছে। প্রয়োজনে সরকারী কোয়ারেন্টাইন সেন্টারে রাখা হবে। পরিবারের লোকেদের আনতে গত ১৬ মে অসম যান ওই ব্যক্তি। ফিরে আসেন ১৯ মে। গুয়াহাটিতেই তাঁর সোয়াব পরীক্ষা করা হয়। পরবর্তীতে উত্তরবঙ্গ মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালেও সোয়াব পরীক্ষা হয়। গতকাল রাতেই রিপোর্ট পজিটিভ আসে। তড়িঘড়ি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। তবে আক্রান্ত ব্যক্তি অন্য কারোর সংস্পর্ষে এসছিলেন কীনা সেটাই খতিয়ে দেখছে প্রশাসনিক কর্তারা। বিডিও জানান, সবরকম সতর্কতা নেওয়া হচ্ছে। এলাকাতেও সচেতনতা প্রচার চলবে।

এর আগে মাটিগাড়া ব্লকে করোনা আক্রান্তের খোঁজ মিলেছিল। উত্তরবঙ্গ মেডিকেলের এক কর্তব্যরত নার্স ও তাঁর পরিবারের সদস্যরা আক্রান্ত হন। কোভিড স্পেশাল হাসপাতালে চিকিৎসায় সাড়া দিয়ে সুস্থ হয়ে ফিরেছেন। মেডিকেলে মৃত আক্রান্ত মহিলার সংস্পর্ষে এসছিলেন ওই নার্স। কিন্তু পতিরাম জোতের বাসিন্দা কীভাবে আক্রান্ত হলেন, তা ভাবাচ্ছে স্বাস্থ্য কর্তাদেরও। আপাতত এলাকাকে স্যানিটাইজড করা হচ্ছে। তবে এক্ষুনি কনটেইনমেন্ট জোন হিসেবে ঘোষণা করা হয়নি। এদিকে কোভিড সাস্পেক্টেড হাসপাতালে বেশ কয়েকজনের চিকিৎসা চলছে। তবে মিরিকের সৌরিণীর আক্রান্ত মহিলার পরিবারের লোকেদের রিপোর্ট নেগেটিভ আসায় স্বস্তির নিঃশ্বাস ফেলেছে স্বাস্থ্য কর্তারা।

Partha Pratim Sarkar

Published by: Ananya Chakraborty
First published: May 22, 2020, 7:02 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर