• হোম
  • »
  • খবর
  • »
  • দেশ
  • »
  • WORRIED OVER POLLUTION 16 YEAR OLD GIRL SHOOTS HERSELF DEAD PENS DOWN SUICIDE NOTE ADDRESSED TO NARENDRA MODI SDG

'দূষণ-দুর্নীতি-অমানবিকতায় জর্জরিত দেশ', মোদির উদ্দেশ্যে সুইসাইড নোট লিখে আত্মঘাতী কিশোরী

'দূষণ-দুর্নীতি-অমানবিকতায় জর্জরিত দেশ', মোদির উদ্দেশ্যে সুইসাইড নোট লিখে আত্মঘাতী কিশোরী

প্রতীকী ছবি

১৪ অগাস্ট রাতে নিজের মাথায় গুলি চালিয়ে আত্মঘাতী হয় সে। মৃত্যুর আগে ১৮ পাতার একটি সুইসাইড নোট লিখেছে ওই কিশোরী।

  • Share this:

    #বরেলি: 'দূষণ-দুর্নীতিতে জর্জরিত দেশ'। সেই সব নিয়েই মহা চিন্তা ছিল বছর ১৬-র কিশোরীর। কিন্তু সেই চিন্তার ফলে নিজেকে শেষ করে দেওয়ার মত ভয়াবহ সিদ্ধান্ত নিয়ে ফেলবে, তা স্বপ্নেও কল্পনা করতে পারেনি কেউ। ঘটনাটি ঘটেছে উত্তর প্রদেশের সম্বলে। ১৪ অগাস্ট রাতে নিজের মাথায় গুলি চালিয়ে আত্মঘাতী হয় সে। মৃত্যুর আগে ১৮ পাতার একটি সুইসাইড নোট লিখেছে ওই কিশোরী। যার প্রতিটি ছত্রে রয়েছে সমাজের নানা অবক্ষয় নিয়ে তার দুরূহ চিন্তার বহিঃপ্রকাশ। সেই সুইসাইড নোটেই সে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর সঙ্গে দেখা করে নানা বিষয় নিয়ে আলোচনা করার ইচ্ছাও প্রকাশ করেছে। বলা ভাল সুইসাইড নোটটি প্রধানমন্ত্রীর উদ্দেশ্যেই লেখা।

    জানা গিয়েছে, বাবরালার একটি বেসরকারি স্কুলে পড়ত সে। বরাবরই ভাবুক প্রকৃতির কিশোরী সামাজিক মূল্যবোধের অবক্ষয়, দুর্নীতি, দূষণ, বৃক্ষছেদন-সহ নানা বিষয় নিয়ে অত্যন্ত বিচলিত থাকত। টিভি কিংবা খবরের কাগজে থাকা এই ধরনের খবরে হতাশ হয়ে পড়ত। বয়স্ক কাউকে তাঁদের সন্তানরা বৃদ্ধাশ্রমে রেখেছে শুনলে মুষড়ে পড়ত। আর এই সব বিষয় নিয়েই সে মোদির সঙ্গে কথা বলার জন্য  উদগ্রীব ছিল।

    ১৮ পাতার সুইসাইড নোটে কিশোরী দীপাবলির রাতে বাজি পোড়ানো নিয়েও তার উদ্বেগ প্রকাশ করেছে। এমনকি হোলির সময় ব্যবহৃত রাসায়নিক যুক্ত রংও যাতে তৈরি, বিক্রি এবং ব্যবহারের ক্ষেত্রে নিষিদ্ধ করা হয়, সে বিষয়ে দৃষ্টি আকর্ষণ করতে চেয়েছিল। আর এই সব বিষয় নিয়ে সে কথা বলতে চাইত প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে। কিন্তু তার আশা পূরণ না হওয়ায় হতাশা থেকেই সম্ভবত আত্মঘাতী হয় সে।

    গুন্নাউরের স্টেশন হাউজ অফিসার দেবেন্দ্র কুমার জানিয়েছেন, ১৪ অগাস্ট নিজেকে গুলি করে আত্মঘাতী হয় তরুণী। ঘটনাস্থল থেকে রিভলভারটি উদ্ধার করা হয়েছে। দেহ ময়না তদন্তের জন্য পাঠান হয়েছে। তবে ঘটনার পড়ে তার বাবা-মায়ের প্রতিক্রিয়া জানা যায়নি। এমনকি সে রিভলভারটি কোথা থেকে পেল, তা নিয়ে ধোঁয়াশা রয়েছে। ঘটনাত তদন্ত করছে পুলিশ। সুইসাইড নোট খতিয়ে দেখে তার মানসিক অবস্থা বোঝার চেষ্টা চলছে।

    Published by:Shubhagata Dey
    First published: