Corona: ঘটা করে চলছে 'করোনা মাই'-এর পুজো! মহামারীতে ভিড় করে লাইন মহিলাদের

ঘণ্টার পর ঘণ্টা লাইনে দাঁড়ালেন সেই গ্রামের মহিলারা।

ঘণ্টার পর ঘণ্টা লাইনে দাঁড়ালেন সেই গ্রামের মহিলারা।

  • Share this:

    #মুম্বই:

    করোনার দ্বিতীয় ঢেউয়ে জেরবার গোটা দেশ। নাজেহাল অবস্থা সাধারণ মানুষের। তবে এই পরিস্থিতিতেও কিছু মানুষ কুসংস্কারে আচ্ছন্ন। আসলে রোজই দেশে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা বাড়ছে। এমন অবস্থায় দেশবাসী এই মহামারীর কবল থেকে উদ্ধারের কোনও রাস্তা দেখছে না হয়তো। তাই শেষমেশ কুসংস্কারের উপর ভর করেই এত বড় বিপদ থেকে উদ্ধার পাওয়ার চেষ্টা করছে। প্রশাসন যেখানে বারবার বলছে, সংক্রমণ এড়াতে যে কোনওরকম ভিড় থেকে দূরে থাকতে হবে। কোনও অবস্থাতেই একসঙ্গে অনেক মানুষ এক জায়গায় থাকতে পারবে না। সেখানে বারাণসীর কাছে কুশীনগর গ্রামের মহিলারা ভিড় করে করোনা মাই-এর পুজো করলেন। একসঙ্গে অনেক মহিলা এক জায়গায় বসে পুজোর আয়োজন করলেন। আবার কয়েকশো মহিলা ভিড় করে লাইনে দাঁড়িয়ে পুজোও দিলেন। ফলে উত্তরপ্রদেশে সংক্রমণের সম্ভাবনা আচমকাই আরও কয়েক গুণ বেড়ে গেল। এমনিতেই কোভিডে জেরবার অবস্থা উত্তরপ্রদেশের। তার মধ্যে এমন ভুলের বড়সড় মাশুল দিতে হবে না তো!

    ওই গ্রামের এক মহিলা বলেছেন, ২১ দিন ধরে চলেছে করোনা মাই-এর পুজো। তাঁদের অন্ধবিশ্বাস, এই পুজোর ফলে দেশ থেকে করোনাভাইরাস মুছে যাবে। আর কোনও সংক্রমণ হবে না। কিন্তু তাঁদের এমন উপদেশ দিল কে! কার উপদেশে গ্রামের মহিলারা এমন মহামারীতে ভিড় করে এই পুজোর আয়োজন করলেন! গ্রামের এক মহিলা জানিয়েছেন, পুরোহিতদের পরামর্শে তাঁরা এই পুজোর আয়োজন করেছেন। পুরোহিতরা দাবি করেছেন, এই পুজোর ফলে দেশ থেকে করোনা দূর হবে। কিছুতেই তাঁদের বোঝানো সম্ভব হয়নি, এভাবে করোনার প্রকোপ কমবে না। উল্টে সংক্রমণের সম্ভাবনা আরও বাড়বে। মহিলাদের দাবি, সবাই বিশ্বাস করে করোনাকে দেবী হিসাবে পুজো করলে এই বিপদ থেকে রক্ষা পাওয়া যাবে।

    ঘণ্টার পর ঘণ্টা লাইনে দাঁড়ালেন সেই গ্রামের মহিলারা। সেখানে কোনও সামাজিক দূরত্বের পালন হয়নি। গ্রামের মহিলারা পুজোর জোগাড় করেছেন ভিড় করে। সেখানে তাঁরা একসঙ্গে বসে ফল কেটেছেন। আবার ফুলের মালাও গেঁথেছেন। তাঁদের মধ্যে অনেকের মুখে তো মাস্কও ছিল না।

    Published by:Suman Majumder
    First published: