বাজাজ পরিবারের এক সদস্য গান্ধিদেরও এক সময় একহাত নিয়েছিলেন

বাজাজ পরিবারের এক সদস্য গান্ধিদেরও এক সময় একহাত নিয়েছিলেন
রামকৃষ্ণ বাজাজ

নিজেকে বলতেন, 'আমি মহাত্মা গান্ধির কুলি৷' ২১ মাসের দীর্ঘ জরুরি অবস্থা চলাকালীন ক্রমাগত হেনস্থার মুখে পড়েন রামকৃষ্ণ বাজাজ৷

  • Share this:

রশিদ কিদওয়াই

সরকারকে খোঁচা দিয়ে রাজনৈতিক বিতর্ক তৈরি করা বাজাজ পরিবারের পুরনো ঐতিহ্য৷ এই পরিবার গান্ধি পরিবারকেও ছাড়েনি৷ অনেক বছর আগের কথা৷ ১৯৭৬ সালের মে মাস৷ রাহুল বাজাজের কাকা ও স্বাধীনতা সংগ্রামী রামকৃষ্ণ বাজাজ সরাসরি সঞ্জয় গান্ধির রাজনৈতিক ভবিষ্যত্‍ নিয়ে প্রশ্ন তোলেন৷ রামকৃষ্ণ বাজাজ হলেন শিল্পপতি যমুনালাল বাজাজের ছেলে৷ মহাত্মা গান্ধির 'ভারত ছাড়ো' আন্দোলনে যোগ দিয়ে ১৯৪২ থেকে ১৯৬৪ সাল পর্যন্ত হাজতে ছিলেন ব্রিটিশ আমলে৷

নিজেকে বলতেন, 'আমি মহাত্মা গান্ধির কুলি৷' ২১ মাসের দীর্ঘ জরুরি অবস্থা চলাকালীন ক্রমাগত হেনস্থার মুখে পড়েন রামকৃষ্ণ বাজাজ৷ রামকৃষ্ণের বাড়িতে একের পর এক আয়কর বিভাগের হানা চলে৷ আরেক গান্ধি অনুগামী বিনোবা ভাবে তখন গো-হত্যার বিরুদ্ধে অনশন আন্দোলন করছেন৷ রামকৃষ্ণকে দিয়ে জোর করে বিনোবার ভাবের আন্দোলন প্রত্যাহার করানো হয়৷

রামকৃষ্ণও হাল ছাড়ার পাত্র নন৷ তিনি প্রধানমন্ত্রী ইন্দিরা গান্ধির সাহায্য চান৷ ইন্দিরা রামকৃষ্ণের ছোটবেলার বন্ধুও ছিলেন৷ তাতেও লাভ হয়নি৷ হেনস্থা চলতেই থাকে৷ ১৯৭৫ সালের ৩০ অগাস্ট, রামকৃষ্ণ তখন বিশ্ব যুবক কেন্দ্রের ডিরেক্টর৷ দিল্লি প্রশানের কাছ থেকে একটি ফরমাশ পান৷ বিশ্ব যুবক কেন্দ্র নিজেদের অধীনে চায় দিল্লি প্রশাসন৷ রামকৃষ্ণ কংগ্রেসে তাঁর বন্ধুদের কাছে খোঁজ খবর নেন, কেন সরকার বিশ্ব যুবক কেন্দ্রে নিয়ন্ত্রণ চাইছে৷ জানতে পারেন, সঞ্জয় গান্ধি ওই বিল্ডিংটির দখল চান৷ উনি যুব-কংগ্রেসের জন্য হস্টেল তৈরি করবেন৷

কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ব্রহ্মানন্দ রেড্ডিকে সব জানান তিনি৷ কিন্তু অরণ্যে রোদন হয় বিষয়টা৷ কেন্দ্রের থেকে নির্দেশ আসে, বিশ্ব যুবক কেন্দ্রের অছি পর্ষজ সঞ্জয়কে দেওয়া হোক৷ এরপর গান্ধিবাদী রামকৃষ্ণ ইন্দিরার দ্বারস্থ হন৷ বিমানে ইন্দিরাকে রামকৃষ্ণ বলেন, 'আপকি মুঝসে কোই নারাজগি হ্যায় ক্যায়া?' ইন্দিরা উত্তরে বলেন, 'হাঁ, সিকায়াতেঁ তো হোতি হি র‍েহতি হ্যায়৷'

আসলে বিশ্ব যুবক কেন্দ্রের বিষয়ে রামকৃষ্ণ ইন্দিরার দৃষ্টি আকর্ষণ করতে চাইছিলেন৷ বন্ধুত্বপূর্ণ ভাবে৷ তাই যাঁরা রাহুল বাজাজের কেন্দ্রকে সমালোচনা নিয়ে আলোচনায় ব্যস্ত, তাঁরা বাজাজ পরিবারের ঐতিহ্য জানেন না বোধ হয়৷ এই পরিবার গান্ধিদেরও ছাড়েনি৷

লেখকের মত ব্যক্তিগত

First published: 03:15:46 PM Dec 02, 2019
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर