টানা বৃষ্টি ও ব্যারেজ থেকে ছাড়া জলে জেলায় প্লাবন পরিস্থিতি তৈরির আশঙ্কা

টানা বৃষ্টি ও ব্যারেজ থেকে ছাড়া জলে জেলায় প্লাবন পরিস্থিতি তৈরির আশঙ্কা
নিজস্ব চিত্র

ঝাড়খণ্ডের টানা বৃষ্টিতে বাড়ছে আশঙ্কা। জল ছাড়ছে ডিভিসি সহ বিভিন্ন ব্যারাজ থেকে। যার জেরে বাড়ছে ময়ূরাক্ষী, অজয়, কুঁয়ে নদীর জল। জল ছাড়ার পরিমাণ বাড়াচ্ছে দুর্গাপুর ব্যারাজ।

  • Share this:

#রাঁচি: ঝাড়খণ্ডের টানা বৃষ্টিতে বাড়ছে আশঙ্কা। জল ছাড়ছে ডিভিসি সহ বিভিন্ন ব্যারাজ থেকে। যার জেরে বাড়ছে ময়ূরাক্ষী, অজয়, কুঁয়ে নদীর জল। জল ছাড়ার পরিমাণ বাড়াচ্ছে দুর্গাপুর ব্যারাজ। পরিস্থিতির দিকে নজর রাখছে জেলা প্রশাসন । এদিকে প্রবল ঝড়বৃষ্টিতে মুর্শিদাবাদ ও আসানসোলের অনেক জায়গায় কাঁচা বাড়ি ভেঙে পড়েছে।

ছাড়া জলে নতুন করে প্লাবনের আশঙ্কা তৈরি হয়েছে। ঝাড়খণ্ডে টানা বৃষ্টি। তার উপর ব্যারাজ থেকে ছাড়া জলে নতুন করে প্লাবন পরিস্থিতি তৈরির আশঙ্কা তৈরি হয়েছে। বাড়ছে দামোদরের জলস্তর। ঝাড়খণ্ডে বৃষ্টির জন্যই জল ছাড়া হচ্ছে বলে দাবি ডিভিসির।

জল ছাড়া হয়েছে ঝাড়খণ্ডের ম্যাসাঞ্জোর, সিউড়ির তিলপাড়া ও হিংলো জলাধার থেকে। তার ফলে জলস্তর বাড়ছে ময়ূরাক্ষী, অজয়, কুঁয়ে নদীর। অজয় নদীর চরে পনেরজন শ্রমিক আটকে পড়েন। বর্ধমানের দিক থেকে নৌকা করে এসে তাঁদের উদ্ধার করা হয়।

ঝাড়খণ্ডের টানা বৃষ্টির জেরে জল ছেড়েছে দুর্গাপুর ব্যারাজও। বৃষ্টি বাড়লে জল ছাড়ার পরিমাণ আরও বাড়বে। দুপুরের পর কয়েক দফা বৃষ্টি হয় দুর্গাপুরের বিভিন্ন এলাকায়।

ময়ূরাক্ষীতে জলের তোড়ে ভেসে যায় একটি ট্রাক। ময়ূরেশ্বরের নিমপুরডাঙ্গার ঘটনা । চালক-খালাসিকে উদ্ধার করেন স্থানীয় বাসিন্দারা ।

মঙ্গলবারের ভারি বৃষ্টিতে দারুল নদীর জলস্তর বেড়ে ভেসে যায় কারলা ব্রিজ। বুধবার সকালে জলস্তর কমলে দেখা যায় ভেঙে গেছে ব্রিজের একাংশ। আসানসোল থেকে বারাবনি যাওয়ার মূল রাস্তায় যান চলাচল বন্ধ হয়ে যায়। প্রবল বৃষ্টিতে আসানসোলের রেলপাড় এলাকায় বেশি কিছু বাড়ি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে।

ঝড়বৃষ্টিতে ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে মুর্শিদাবাদের সাগরদিঘির পাটকেলডাঙা গ্রামে। ভেঙে পড়েছে বেশ কয়েকটি মাটির বাড়ি। অনেক বাড়ির টিনের ছাদ উড়ে গেছে। প্রচুর ফসলও নষ্ট হয়েছে। সরকারি ত্রাণ পৌঁছনোর আশ্বাস দিয়েছে স্থানীয় প্রশাসন।

বর্ধমান

প্রবল বৃষ্টিতে কুনুর নদীর জলে প্লাবিত বর্ধমানের আউশগ্রাম । গুসকরা, ইলামবাজারে জলের তলায় রাস্তা । বাস চলাচল বন্ধে হয়রানি তুঙ্গে । নৌকো, স্পিডবোট চলছে এলাকায় । ত্রাণ শিবির চালু করেছে প্রশাসন । মুই নদীর জলে প্লাবিত বর্ধমানের চাকুন্দি গ্রামও।

মঙ্গলবার ঝড়বৃষ্টিতে হুগলি, বর্ধমান, উত্তর চব্বিশ পরগনার বিভিন্ন জায়গায় যে বিদ্যুৎ বিভ্রাট হয়েছিল, এদিন সেই সমস্যা কেটেছে। তবে ঝাড়খণ্ডে টানা বৃষ্টির জেরে বিভিন্ন জলাধার থেকে ছাড়া জলে নতুন করে প্লাবনের আশঙ্কা তৈরি হয়েছে।

First published: 09:58:56 AM Oct 12, 2017
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर