corona virus btn
corona virus btn
Loading

শরিফকে কড়া বার্তা, সার্জিক্যাল স্ট্রাইক নিয়ে ভারতকে সমর্থন USA-র

শরিফকে কড়া বার্তা, সার্জিক্যাল স্ট্রাইক নিয়ে ভারতকে সমর্থন USA-র

পাকিস্তানকে কড়া বার্তা দিয়ে সার্জিক্যাল স্ট্রাইক নিয়ে ভারতের অবস্থানকে খোলাখুলি সমর্থন করল মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র। ওবামা

  • Share this:

#নয়াদিল্লি: পাকিস্তানকে কড়া বার্তা দিয়ে সার্জিক্যাল স্ট্রাইক নিয়ে ভারতের অবস্থানকে খোলাখুলি সমর্থন করল মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র। ওবামা প্রশাসনের তরফে দক্ষিণ এশিয়ায় নিযুক্ত মার্কিন প্রতিনিধি পিটার ল্যাভয়ের মন্তব্য, সন্ত্রাসবাদীরা সীমান্ত পেরিয়েই উরিতে হামলা চালিয়েছে। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র এই হামলার তীব্র নিন্দা করছে। এমন ঘটনা ভয়ঙ্কর। প্রত্যেক দেশেরই আত্মরক্ষার অধিকার আছে বলেও পাকিস্তানকে কড়া বার্তা দিয়েছে হোয়াইট হাউস। একইসঙ্গে যুদ্ধবিধ্বস্ত আফগানিস্তানের সঙ্গে কাশ্মীরের তুলনা টানার বিষয়টিও উড়িয়ে দিয়েছেন ল্যাভয়। গত সপ্তাহেই কাশ্মীরে নওয়াজ শরিফের দূই দূতের সঙ্গে দেখা করেন ল্যাভয়। নওয়াজের দুই প্রতিনিধিই কাশ্মীরের সঙ্গে আফগানিস্তানের তুলনা টানেন। চলতি বছরের শেষেই এনএসজি-তে ভারতের স্থান পাকা হবে বলে আশ্বাস দিয়েছেন পিটার ল্যাভয়।

উরি জঙ্গি হামলার পর, গোটা বিশ্বে নিন্দার ঝড় ৷ পাকিস্তানকে সমলোচনা করে গোটা বিশ্বই ক্ষোভে ফেটে পড়েছে ৷ আকারে-ইঙ্গিতে বিশ্বের অন্যান্য দেশ ভারতের পাশে থাকার কথাও জানিয়েছেন ৷ এবার পাকিস্তানকে আরও কোণঠাসা করার জন্য সন্ত্রাশে মদতদাতা দেশ ঘোষণা করল মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের প্রায় ৫ লক্ষ মানুষ ৷

হোয়াইট হাইজ পাকিস্তানের সমালোচনা করে জমা পড়ল প্রায় পাঁচ লক্ষ মার্কিনি মানুষের স্বাক্ষর৷ পিটিশনের দাবি অনুযায়ী, পাকিস্তানকে সন্ত্রাসে মদতদাতা দেশ হিসেবে ঘোষণা করতে হবে ৷ এই পিটিশন জমা পড়েছে হোয়াইট হাইজে ৷ ৬০ দিনের মধ্যে এই নিয়ে সিদ্ধান্ত জানাবে ওবামা সরকার ৷

পাক ভূমিতে সার্জিক্যাল স্ট্রাইক নিয়ে দিল্লির রাজনীতির জলঘোলা। সুরবদল করে বিজেপিকে আক্রমণের রাস্তায় নেমেছে কংগ্রেস। পি চিদাম্বরমের কটাক্ষ, বেশি মাতামাতি না করে ভিডিও প্রকাশ্যে আনুক সরকার। একই দাবি তুলে বিজেপিকে কৌশলে খোঁচা দিয়েছেন অরবিন্দ কেজরিওয়ালও। বিতর্কে জল ঢেলে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর ঘোষণা, দেশের মানুষ সেনাকে বিশ্বাস করে।

সার্জিক্যাল স্ট্রাইকের পর, তা অস্বীকার করে বরাবরের মতো ময়দানে নেমেছিল পাকিস্তান। তবে মোদির পাশে দাঁড়িয়ে ঐক্যবদ্ধ ভারতের চেহারা ফুটিয়ে তুলেছিল কংগ্রেস-সহ অন্যান্য বিরোধীরা। দু’দিন যেতেই সুরবদল। এমন হামলা ইউপিএ আমলেও হয়েছিল বলে দাবি প্রাক্তন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী পি চিদাম্বরমের। ঘুরিয়ে পেঁচিয়ে ওই হামলার ভিডিও প্রকাশের দাবি তুলেছেন তিনি।

কৌশলে একই দাবি করেছেন অরবিন্দ কেজরিওয়ালও। বিতর্ক বাড়লেও অনড় দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী ৷ কার্গিল সফরের মধ্যেই এই খোঁচায় বিদ্ধ কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীও। বির্তকে ইতি টানার চেষ্টা করেছেন রাজনাথ সিং। সার্জিক্যাল স্ট্রাইকের খবর উপগ্রহচিত্রের মাধ্যমে পৌঁছেছে মার্কিন গোয়েন্দা দফতরের কাছেও। সেই খবর প্রকাশ্যে এলেও রাজনৈতিক বিতর্কের ঝড় থামছে না।

First published: October 13, 2016, 9:13 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर