কাশ্মীরে খতম দুই লস্কর জঙ্গি!‌ সেনার কাছে আত্মসমর্পণ আরও এক জঙ্গির

কাশ্মীরে খতম দুই লস্কর জঙ্গি!‌ সেনার কাছে আত্মসমর্পণ আরও এক জঙ্গির

ঘটনার পর এলাকায় তল্লাশি চালায় সেনা। সেই তল্লাশিতে বেশ কয়েকটি আগ্নেয়াস্ত্র ও জেহাদি বইপত্র উদ্ধার করা হয়েছে। কাশ্মীর পুলিশের আই জি জানিয়েছেন, সেনা ও পুলিশ যৌথভাবে সাফল্যের সঙ্গে এই অপারেশান চালিয়েছে।

ঘটনার পর এলাকায় তল্লাশি চালায় সেনা। সেই তল্লাশিতে বেশ কয়েকটি আগ্নেয়াস্ত্র ও জেহাদি বইপত্র উদ্ধার করা হয়েছে। কাশ্মীর পুলিশের আই জি জানিয়েছেন, সেনা ও পুলিশ যৌথভাবে সাফল্যের সঙ্গে এই অপারেশান চালিয়েছে।

  • Share this:

    জম্মু ও কাশ্মীরের পাম্পোর জেলায় লস্কর জঙ্গিদের সঙ্গে গুলির লড়াইয়ে ভারতীয় সেনা খতম করল দুই পাকিস্তানি জঙ্গিকে। জঙ্গিদলের সঙ্গে যুক্ত আরও এক স্থানীয় বাসিন্দা সেনার কাছে আত্মসমর্পণ করেছে বলে খবর পাওয়া গিয়েছে। বৃহস্পতিবার সন্ধ্যে থেকে এই গুলির লড়াই চলছিল। ওই অঞ্চলে গোপন সূত্রে জঙ্গিদের উপস্থিতির কথা জানার পরেই সেখানে অভিযান শুরু করে সেনা। প্রথমে এলাকা ঘিরে ফেলে বারবার জঙ্গিদের আত্মসমর্পণ করার নির্দেশ দেয় সেনা। কিন্তু তারা সে কথা শোনেনি। বৃহস্পতিবার থেকেই শুরু হয় গুলির লড়াই। এই লড়াইয়ে আহত হন দুই সাধারণ মানুষও। তাঁদের দু’‌জনকেই হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হলে একজনের মৃত্যু হয়। বাকি একজন এখন সুস্থ আছেন বলে খবর।

    সেনার পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, একাধিকবার আত্মসমর্পণ করার কথা বলা হলেও জঙ্গিরা আত্মসমর্পণ না করে পাল্টা গুলি চালাতে শুরু করে। দু’‌পক্ষের গুলির লড়াইয়েই সাধারণ দুই নাগরিক গুলিবিদ্ধ হন। তাঁদের সঙ্গে সঙ্গে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। বৃহস্পতিবার রাতে জঙ্গিকে নিকেশ করতে পারলেও আরও দুই জঙ্গি ঘটনাস্থলে ছিল। রাতে তারপর এলাকা ঘিরে রাখে সেনা। অপরেশন বন্ধ রেখে থাকে কড়া পাহারা। সকালে ফের শুরু হয় গুলির লড়াই। তখনই এক জঙ্গি আত্মসমর্পণ করে। সে স্থানীয় বাসিন্দা বলে জানিয়েছে পুলিশ। তার নাম খাওয়ার সুলতান মীর। সে দরংবল এলাকার বাসিন্দা বলে পুলিশ জানিয়েছে। পরে নিরাপত্তাকর্মীদের গুলিতে আরও এক জঙ্গির মৃত্যু হয়। মৃত দুই লস্কর জঙ্গিই পাকিস্তানের বাসিন্দা বলে জানিয়েছে সেনা।

    ঘটনার পর এলাকায় তল্লাশি চালায় সেনা। সেই তল্লাশিতে বেশ কয়েকটি আগ্নেয়াস্ত্র ও জেহাদি বইপত্র উদ্ধার করা হয়েছে। কাশ্মীর পুলিশের আই জি জানিয়েছেন, সেনা ও পুলিশ যৌথভাবে সাফল্যের সঙ্গে এই অপারেশান চালিয়েছে। সেই কারণেই একজনের জীবন বেঁচে গিয়েছে। তিনি উল্লেখ করেছেন, সেনার তৎপরতাতেই এভাবে বিপথে যাওয়া যুবকরা সমাজের মূল স্রোতে ফিরে আসতে পারেন।

    Published by:Uddalak Bhattacharya
    First published:

    লেটেস্ট খবর