• Home
  • »
  • News
  • »
  • national
  • »
  • TRIPURA BJP SAYS NO INNER CONFLICT NOW REPORT WILL BE SENT TO J P NADDA AKD

শিয়রে মুকুল || আপাতত সব ঠিক আছে, দিল্লির নেতারা ফিরতেই বলছে ত্রিপুরা বিজেপি

সুদীপের মুখে কুলুপ। ত্রিপুরা বিজেপি বলছে সমস্যা নেই।

সূত্রের খবর, অজয় জামওয়াল দুদিন ধরে যে ভাবে পরিস্থিতি দেখলেন, দলের সর্বভারতীয় সভাপতি জে পি নাড্ডাকে বিস্তারিত রিপোর্ট দেবেন তাই নিয়ে।

  • Share this:

    #আগরতলা: দু'দিনের ত্রিপুরা সফর সাঙ্গ করে ঘরে ফিরলেন বিজেপির ভারপ্রাপ্ত সর্বভারতীয় সাধারণ সম্পাদক বিএল সন্তোষ। সূত্রের খবর, প্রথমে তিনি বিক্ষুব্ধ বিধায়কদের সঙ্গে ছোট ছোট  ভাগে ভাগ করে বৈঠক করেছেন, ক্ষোভ বিক্ষোভ শুনেছেন। সবশেষে সমস্ত বিধায়ক মন্ত্রীরদের নিয়েও তিনি একটি বৈঠক করেন যেখানে উপস্থিত ছিলেন মুখ্যমন্ত্রী বিপ্লব দেব, বিজেপির রাজ্য সভাপতি মানিক সাহা। উপস্থিত ছিলেন ছিলেন ত্রিপুরার সাংগঠনিক সভাপতি ফণীন্দ্রনাথ শর্মা এবং কেন্দ্রের উত্তর-পূর্বের  সাধারণ সম্পাদক (সাংগঠনিক) অজয় জামওয়াল। বৃহস্পতিবার বিকেলের দিকে রাজ্য বিজেপি এবং কেন্দ্রের নেতারা আইপিএফটি মন্ত্রী এবং বিধায়কদের সঙ্গেও দেখা করেন।

    বৃহস্পতিবার বিএল সন্তোষ মা ত্রিপুরেশ্বরী মন্দিরে পুজো দেন। একটি সাংগঠনিক কমিটির মিটিং ডাকেন তিনি। তারপর ধাপে ধাপে বিজেপির মন্ত্রী এবং বিক্ষুব্ধ বিধায়কদের সঙ্গে দেখা করেন। বিএল সন্তোষের আলাদা করে কথা হয় আইটি সেল এর সঙ্গেও। সূত্রের খবর, অজয় জামওয়াল দুদিন ধরে যে ভাবে পরিস্থিতি দেখলেন, দলের সর্বভারতীয় সভাপতি জে পি  নাড্ডাকে বিস্তারিত রিপোর্ট দেবেন তাই নিয়ে। তারপরেই ঠিক হবে কী ভাবে ক্ষোভ-বিক্ষোভ প্রশমিত করা যায়।

    যদিও রাজ্য (ত্রিপুরা) বিজেপির তরফ থেকে দাবি করা হচ্ছে, নেতাদের মধ্যে আর কোনো ক্ষোভ নেই। সর্বভারতীয় সভাপতির ডাকা মিটিংয়ে সকলের সাড়া দিয়েছেন। দলীয় মুখপাত্র সুব্রত চক্রবর্তীর কথায়, আমরা সবাই একটি পরিবারের অংশ একটা বড় পরিবারে মতপার্থক্য থাকবেই কিন্তু আলাপ-আলোচনার মাধ্যমে সেই সমস্যাগুলো মিটিয়ে ফেলা গিয়েছে।

    সূত্রের খবর বিএল সন্তোষ এই দুদিনের সফরে দলের প্রতিনিধিদের বুঝিয়েছেন, কী ভাবে সরকার পরিচালনায় দল ভূমিকা নিতে পারে। তাঁর যুক্তি বিজেপি ত্রিপুরায় যথেষ্ট ভালো কাজ করছে। পাশাপাশি কী ভাবে আরও একজোট হয়ে কাজ করা যায় সে ব্যাপারেও উপদেশ দিয়েছেন তিনি। তিনি চান আগামী দিনে সংগঠন পরিচালনা ভুলের পরিমাণ কমুক।

    শোনা যাচ্ছে, পার্বত্য় এডিসি নির্বাচনে দলের সংগঠন আদৌ দুর্বল হয়নি বলেই মত বিজেপি রাজ্য নেতাদের। সূত্রের খবর, বৈঠকেই স্থির হয়েছে, নানা মহল থেকে দলের সাংগঠনিক ভিত্তি নিয়ে বিষয়ে নানা ধরনের কথা উঠলেও রাজ্য নেতারা বলছেন গণতন্ত্র রক্ষা করার স্বার্থে তারা কোন মত দেবেন না।

    Published by:Arka Deb
    First published: