• Home
  • »
  • News
  • »
  • national
  • »
  • হিজবুল জঙ্গি রিয়াজ নাইকুর দেহ পরিবারকে ফেরত দেওয়া হবে না

হিজবুল জঙ্গি রিয়াজ নাইকুর দেহ পরিবারকে ফেরত দেওয়া হবে না

২০১৬ সালে মৃত্যু হয় হিজবুল নেতা বুরহান ওয়ানির। সেই সময় থেকেই উত্থান হিজাবুল নেতা রিয়াজ নাইকুর। তাঁর মাথার দাম ছিল ১২ লক্ষ টাকা।

২০১৬ সালে মৃত্যু হয় হিজবুল নেতা বুরহান ওয়ানির। সেই সময় থেকেই উত্থান হিজাবুল নেতা রিয়াজ নাইকুর। তাঁর মাথার দাম ছিল ১২ লক্ষ টাকা।

২০১৬ সালে মৃত্যু হয় হিজবুল নেতা বুরহান ওয়ানির। সেই সময় থেকেই উত্থান হিজাবুল নেতা রিয়াজ নাইকুর। তাঁর মাথার দাম ছিল ১২ লক্ষ টাকা।

  • Share this:

    #শ্রীনগর: জঙ্গিদের 'হিরো' বানানো চলবে না। লকডাউনে বন্ধ রাখতে হবে অশান্তিও।এসব দিক মাথায় রেখেই সরকার সিদ্ধান্ত নিয়েছে কুখ্যাত হিজাবুল জঙ্গি রিয়াজ নাইকুর দেহ পরিবারকে ফেরত দেবে না সরকার। পরিবর্তে তার অন্ত্যেষ্টি করবে সরকারই।

    অতীতে বারবার দেখা গিয়েছে, জঙ্গির দেহ ফেরত দিলেই তা নিয়ে বিরাট মিছিল হয়েছে। দলের অপেক্ষাকৃত নতুনদের রক্ত গরম করতে ব্যবহৃত হয়েছে এই মৃতদেহ। শুধু দেশ নয়, পাকিস্তানেও জঙ্গির দেহ ফেরত দিয়ে একই ঘটনা প্রত্যক্ষ করেছে ভারত। কিন্তু এই লকডাউনে জমায়েত যেমন বিপদ, তেমনই কোনও ভাবেই নতুন সন্ত্রাসের বীজ রোপন মেনে নেওয়া যায় না। সে কারণেই অন্ত্যেষ্টির জন্যে কোনও জঙ্গির দেহ আগামী দিনে পরিবারকে ফেরত দিতে চায় না সেনা। প্রয়োজনে জঙ্গিদের পরিবারের হাতে ডিএনএ নমুনা তুলে দেওয়া হবে।

    বুধবার সকালে মৃত্যু হয় রিয়াজ নাইকুর। মঙ্গলবার রাত থেকেই রিয়াজের গ্রাম বেইগপুরা ঘিরে ফেলেছিল যৌথবাহিনী। সকাল হতেই শুরু হয় অভিযান। জম্মু কাশ্মীরের ১০ টি জেলায় ইন্টারনেট বন্ধ করে দেওয়া হয়। রিয়াজ যে বাড়িটায় আশ্রয় নিয়েছিল তাও উড়িয়ে দেয় যৌথবাহিনী।

    ২০১৬ সালে মৃত্যু হয় হিজবুল নেতা বুরহান ওয়ানির। সেই সময় থেকেই উত্থান হিজাবুল নেতা রিয়াজ নাইকু। তাঁর মাথার দাম ছিল ১২ লক্ষ টাকা। পুলিশ অফিসারদের অপহরণ করে হিজাবুলে যোগ দেওয়ানো, খুন করা, নরম গরম বক্তৃতা দিয়ে কাশ্মীরবাসীকে তাতানোর মতো কাজ করে আসছিল সে।

    Published by:Arka Deb
    First published: