গুলামের বিদায়ে ব্যাটন ধরতে পারেন মল্লিকার্জুন, রাজ্যসভায় আগ্রাসী কংগ্রেসের অপেক্ষা

গুলামের বিদায়ে ব্যাটন ধরতে পারেন মল্লিকার্জুন, রাজ্যসভায় আগ্রাসী কংগ্রেসের অপেক্ষা
মল্লিকার্জুন খাড়গে

কংগ্রেস সূত্রে খবর, রাজ্যসভার চেয়ারম্যান এম ভেঙ্কাইয়া নাইডুকে ইতিমধ্যেই এই খাড়গের নামের প্রস্তাব পাঠানো হয়েছে। বিরোধী দলনেতা হিসেবে গুলাম নবি আজাদের সময়সীমা শেষ হচ্ছে আগামী ১৫ ফেব্রুয়ারি।

  • Share this:

    #নয়াদিল্লি: বিদায়ী সাংসদ গুলাম নবি আজাদের জায়গায় রাজ্যসভায় বিরোধী দলনেতা হিসেবে এবার থেকে দেখা যেতে পারে কংগ্রেসের প্রবীণ নেতা মল্লিকার্জুল খাড়গেকে। কংগ্রেস সূত্রে খবর, রাজ্যসভার চেয়ারম্যান এম ভেঙ্কাইয়া নাইডুকে ইতিমধ্যেই এই খাড়গের নামের প্রস্তাব পাঠানো হয়েছে। বিরোধী দলনেতা হিসেবে গুলাম নবি আজাদের সময়সীমা শেষ হচ্ছে আগামী ১৫ ফেব্রুয়ারি। তার পর মল্লিকার্জুন খাড়গেকে দেখা যেতে পারে সেই আসনে।

    এবারের বাজেট অধিবেশন চলাকালীন নিজের বিদায়ী ভাষণে গুলাম নবি আজাদ পাকিস্তানের প্রসঙ্গ টেনে এনেছিলেন। তিনি বলেছিলেন, 'আমি সেই সমস্ত ভাগ্যবানদের মধ্যে পড়ি যে কোনওদিন পাকিস্তান যায়নি। পাকিস্তানের পরিস্থিতির কথা যখন পড়ি তখন নিজেকে একজন গর্বিত হিন্দুস্তানি মুসলিম বলে মনে হয়।' ওই দিন তাঁর বিদায়বেলায় রাজ্যসভায় একেবাকেই অন্য ধরনের দৃশ্য দেখেছিলেন ভারত। বিদায়ী সাংসদদের নিয়ে কথা বলতে গিয়ে বন্ধু তথা বিরোধী দলনেতা গুলাব নবি আজাদের প্রসঙ্গে আবেগে ভেসেছিলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি।

    মোদি সেদিন নিজের গুজরাটের দিনের স্মৃতিচারণা করেন। তিনি বলেন যে, জম্মু-কাশ্মীরে যখন সন্ত্রাসবাদী হানা হয়, অনেক গুজরাটি একটি ধর্মীয় স্থানে আটকে গিয়েছিলেন। তখন আজাদ তাঁকে ফোন করেন বলে জানান মোদি। চোখে জল নিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন যে, আজাদ তাঁদের এমন ভাবে দেখভাল করেছিলেন যেন তাঁরা কংগ্রেস নেতার পরিবারের সদস্য। একই সঙ্গে বিভিন্ন সময় তাঁরা যে একে অপরের সঙ্গে হাসি-মস্করা করতেন সংসদে বসে, সেই কথাও উল্লেখ করেন তিনি। ভোটের রাজনীতিতে প্রবেশ করার আগে থেকেই গুলাম নবি আজাদের সঙ্গে তাঁর পরিচয় বলে জানান প্রধানমন্ত্রী। পুরনো কথা মনে করে মোদির মন্তব্য, 'আজাদ তখন সাংবাদিকদের বলতেন যে টিভি বিতর্কে হয়তো ঝগড়া হয় কিন্তু আসলে তাঁরা পরিবারের মতো।' বন্ধু আজাদের জন্য তাঁর দরজা সর্বদা খোলা থাকবে বলে তিনি জানান।


    রাজ্যসভার চেয়ারম্যান ভেঙ্কাইয়া নাইডু বলেন যে, দীর্ঘ ২৮ বছর ধরে রাজ্যসভার সদস্য গুলাম নবি আজাদ। তাঁর অবদান উচ্চকক্ষকে নিশ্চিত ভাবেই আরও ধনী করেছে বলে প্রশংসা করেন নাইডু। আজাদ সবসময় ভারসাম্যের কণ্ঠ ছিলেন বলেই অভিমত ব্যক্ত করেন উপরাষ্ট্রপতি।

    Published by:Raima Chakraborty
    First published: