Home /News /national /
রাফাল কাণ্ডে ক্ষমা না চেয়েই 'কৌশলী' জবাব রাহুলের, আঙুল তুললেন বিজেপির দিকে

রাফাল কাণ্ডে ক্ষমা না চেয়েই 'কৌশলী' জবাব রাহুলের, আঙুল তুললেন বিজেপির দিকে

  • Share this:

    #নয়াদিল্লি: রাফাল নিয়ে তাঁর মন্তব্য ঘিরে সুপ্রিম কোর্টে আদালত অবমাননার মামলা করেছিল বিজেপি। হলফনামা দিয়ে তার জবাব দিলেন রাহুল গান্ধি। কৌশলী জবাবে ক্ষমা চাইলেন না। দুঃখপ্রকাশও করলেন না। পালটা দায় চাপালেন বিজেপির ঘাড়ে। বিজেপির অবশ্য দাবি, মুখ পুড়েছে রাহুলেরই। রাহুল গান্ধির এই মন্তব্য ঘিরেই বিতর্কের শুরু। বিজেপি সাংসদ মীণাক্ষী লেখি দাবি করেন, আদালতের রায়কে বিকৃত করে রাজনৈতিক স্বার্থে ব্যবহার করেছেন রাহুল গান্ধি। সুপ্রিম কোর্টে আদালত অবমাননার মামলাও করেন তিনি। তার প্রেক্ষিতেই রাহুলকে নোটিস পাঠায় প্রধান বিচারপতি রঞ্জন গগৈয়ের নেতৃত্বাধীন বেঞ্চ। রাহুলের লিখিত জবাব চাওয়া হয়। সোমবার সেই জবাবে কৌশলী রাহুল গান্ধি। কংগ্রেস সভাপতির তরফে দেওয়া হলফনামায় দাবি করা হয়েছে, রাজনৈতিক প্রচারের সময় উত্তেজনার বশে হিন্দিতে মন্তব্যটি করা হয়। ওয়েবসাইটে সুপ্রিম কোর্টের যে নির্দেশ প্রকাশ করা হয় সেটা ছাড়াই ইলেকট্রনিক এবং সোশাল মিডিয়ার রিপোর্ট এবং কর্মীদের কথা শুনে এই মন্তব্য করা হয়েছিল। হলফনামায় একটি টিভি সাক্ষাৎকারে প্রধানমন্ত্রীর মন্তব্যকেও টেনে আনেন রাহুল গান্ধি। প্রধানমন্ত্রী স্পষ্টভাবেই বলেছেন সুপ্রিম কোর্ট তাঁকে রাফাল মামলায় ক্লিনচিট দিয়েছে। কংগ্রেসের প্রশ্ন, সুপ্রিম কোর্ট তো কখনই মোদিকে ক্লিনচিট দেয়নি। তা হলে সেটা দাবি করা কি আদালত অবমাননা নয়? ১০ এপ্রিল সুপ্রিম কোর্ট রায় দেয়, সংবাদমাধ্যমে ফাঁস হওয়া রাফাল-নথি খতিয়ে দেখা হবে। সেই রায়ের প্রসঙ্গ তুলেই রাহুল গান্ধির তরফে জমা দেওয়া হলফনামায় দাবি করা হয়েছে, সরকার চাইছিল রাফাল মামলায় নতুন করে যেন শুনানি না হয়। যাতে তথ্য প্রমাণ আর খতিয়ে না দেখা হয়। কিন্তু, সুপ্রিম কোর্ট নির্দেশ দেয় রাফাল নথি খতিয়ে দেখার। এর ফলে রাফাল মামলায় যাঁরা তদন্তের দাবিতে সরব ছিলেন তাঁরা জয়ের স্বাদ পান। সুপ্রিম কোর্টের নির্দেশের পর তাৎক্ষণিক সাধারণ ধারণা থেকেই ওই মন্তব্য করা হয়। হলফনামায় রাহুল গান্ধি বিজেপির দিকে আঙুল তুলেছেন। দাবি করেছেন, আদালত যা বলেনি বা বোঝাতে চায়নি তাকে রাজনীতির ময়দানে টেনে আনার কোনও উদ্দেশ্যই ছিল না। মামলাকারী রাজনৈতিক উদ্দেশ্যেই ওই মন্তব্যের অপব্যাখ্যা করেছেন। সুপ্রিম কোর্টের গরিমা ক্ষুণ্ণ হয় এমন কিছু বলা হয়নি এবং বলার চেষ্টাও করা হয়নি। পর্যবেক্ষকদের একাংশের মতে, রাহুল গান্ধির এই জবাব অত্যন্ত কৌশলী। কারণ, তিনি ক্ষমাও চাইলেন না, দুঃখপ্রকাশও করলেন না। আবার একইসঙ্গে বিজেপিকে কাঠগড়ায় তুললেন। যদিও গেরুয়া শিবিরের দাবি, যে রাফালকে বার বার অস্ত্র করছেন রাহুল গান্ধি, সেই রাফালেই এবার তাঁর মুখ পুড়ল। রাহুল অবশ্য রাফাল অস্ত্র হাতছাড়া করতে নারাজ। সোমবার ফের রাফাল ইস্যুকে অস্ত্র করেই নরেন্দ্র মোদির দিকে চ্যালেঞ্জ ছুড়ে দেন। পর্যবেক্ষকদের একাংশের মতে, রাহুল গান্ধি এ দিন ফের বুঝিয়ে দিলেন, রাফাল নিয়ে যতই বিজেপি মামলা করুক, তিনি নরেন্দ্র মোদির বিরুদ্ধে রাফালে দুর্নীতির অভিযোগকে অস্ত্র করা, বন্ধ করবেন না।

    First published:

    Tags: Chowkidar, Rahul Gandhi, Supreme Court

    পরবর্তী খবর